মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
সোমবার, ১ ডিসেম্বর ২০১৪, ১৭ অগ্রহায়ন ১৪২১
এস এস সি পরীক্ষার পড়াশোনা
বাংলাদেশের ইতিহাস ও বিশ্বসভ্যতা
(পূর্ব প্রকাশের পর)
গ. বঙ্গবন্ধু তৎকালীন রমনার রেসকোর্স ময়দানে ৭ই মার্চ যে ভাষণ দিয়েছিলেন তার প্রভাব বা তাৎপর্য নিম্নরূপ:
পাকিস্তানী শাসকদের প্রতিক্রিয়া :
ইয়াহিয়া খান ১৫ই মার্চ ঢাকায় আসেন ও বঙ্গবন্ধুকে আলোচনায় বসার জন্য অনুরোধ জানান। এর আড়ালে যুদ্ধের প্রস্তুতি গ্রহণ করতে থাকেন। প্রকৃতপক্ষে আলোচনার নামে সময়ক্ষেপণ করে জাহাজ ভরে পাকিস্তান হতে সৈন্য-অস্ত্র-রসদ আনা হয়। এরই ফলশ্রুতিতে দীর্ঘদিন সময় নষ্ট করে আলোচনা অসমাপ্ত রেখে ২৫ শে মার্চ রাতে বঙ্গবন্ধুকে গ্রেফতার ও গণহত্যার নির্দেশ দিয়ে তিনি ঢাকা ত্যাগ করেন।
‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম’- এর প্রভাবে বাঙালি জনমনে আন্দোলন দুর্বার হয়ে ওঠে। ২৩ শে মার্চ পাকিস্তান প্রজাতন্ত্র দিবসে বাংলাদেশের মানচিত্র খচিত পতাকা সর্বত্র ওড়ানো হয়। উদ্যোমী তরুণরা পাড়া -মহল্লায় স্থানীয় অস্ত্রের মহড়া ও সামরিক প্রশিক্ষণ নিতে শুরু করে। গ্রেফতারের পূর্বে বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতার ঘোষণা ওয়্যারলেসযোগে পৌঁছে দিয়ে তা প্রচারের নির্দেশ দেন। ফলে শুরু হয় মুক্তিযুদ্ধ।
তাই বলা যায়, ৭ই মার্চের ভাষণ একদিকে পাকিস্তানীদের ভিত কাঁপিয়ে দেয় অন্যদিকে বাঙালি জনতার মনে আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়ার অনুপ্রেরণা জাগিয়ে ছিল।
ঘ. ১৯৭১ সালে ৭ই মার্চের ভাষণে বঙ্গবন্ধু বাঙালি জনতার মনে স্বাধীনতার বীজ বুনে দেন। ছাত্র, শিক্ষক, চিকিৎসক, প্রকৌশলী, ব্যবসায়ী, কৃষক, দিনমজুর, শ্রমিক তথা সর্বস্তরের মানুষ বঙ্গবন্ধুর ডাকে সাড়া দেয় এবং অসহযোগ আন্দোলনের কর্মসূচি পালন করতে থাকে।
গ্রামের ও শহরের পাড়া, মহল্লায় উৎসাহী তরুণরা বাঁশ ও স্থানীয় হাতিয়ারের সাহায্যে যুদ্ধের প্রশিক্ষণ ও মহড়া দিতে শুরু করে। বঙ্গবন্ধু বেসরকারি সরকার চালু রাখেন। ৩৫ টি চিঠির আওতায় চলা প্রশাসনে পাকিস্তানি সরকার ব্যবস্থা অস্তিত্বহীন হয়ে পড়ে। বাঙালির মনে আসে স্বাধীনতার অনুভূতি আর হাতে আসে বাস্তবতার সার্বভৌমত্ব। পূর্বে বাংলার সামগ্রিক ব্যবস্থাতেই বঙ্গবন্ধুর নির্দেশের ছাপ পরিলক্ষিত হয়। তাই ৭ই মার্চের ভাষণে উজ্জীবিত হয়ে আপামর বাঙালি প্রত্যক্ষ স্বাধীনতা যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে। মুক্তি ছিনিয়ে আনতে প্রত্যেকেই নিজ নিজ অবস্থান থেকে সর্বোচ্চ সহযোগিতার হাত সম্প্রসারিত করে।
মুক্তিযুদ্ধে সকলের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ অংশগ্রহণ দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হওয়া আত্মোৎসর্গের বিনিময়ে হলেও স্বাধীনতা লাভ করার মহান উদ্দেশ্যের ফলেই অর্জিত হয়েছে স্বাধীনতা। ৩০ লক্ষ প্রাণের বিনিময় ২ লক্ষ মা-বোনের ইজ্জতের দাম, দুঃসহ যন্ত্রণা আর অপরিমেয় ক্ষয়ক্ষতি সকলের অংশ গ্রহণের দিকেই আঙ্গুল নির্দেশ করে। যার বিনিময়ে আমরা পেয়েছি বিজয়। একটি স্বাধীন দেশ, বাংলাদেশ।

বহুনির্বাচনী প্রশ্ন :
১। ইংরেজ শাসনের বিরুদ্ধে প্রথম সংগঠিত ও সংঘবদ্ধ আন্দোলন ছিল কোনটি?
ক. নীল বিদ্রোহ খ. ফকির বিদ্রোহ
গ. সিপাহি বিদ্রোহ ঘ. বারাসাত বিদ্রোহ
২। ফকির মজনু শাহের মৃত্যুর পর ফকির সন্ন্যাসী আন্দোলন স্থিমিত হয়ে পড়ে কেন?
ক. অর্থের অভাবে খ. জমিদারদের অত্যাচারে
গ. অস্ত্রের অভাবে ঘ. নেতৃত্বের অভাব ও অন্তর্দ্বন্দ্বে
৩। নীল বিদ্রোহের শিক্ষণীয় বিষয় কী?
ক. সমাজের নিম্নশ্রেণীর মানুষেরাও আন্দোলনকে সফল করতে পারে
খ. শিক্ষিতরাই কেবল আন্দোলন করতে পারে
গ. আন্দোলনই একমাত্র শান্তির পথ
ঘ. অশিক্ষিত ও দুর্বল কৃষক দ্বারা আন্দোলন সম্ভব নয়
৪। বাংলার সৈয়দ আহমদ কাকে বলা হয়?
ক. নওয়াব আব্দুল লতিফকে খ. হাজী মুহম্মদ মুহসীনবে
গ. সৈয়দ আমীর আলীকে ঘ. দুদু মিয়াকে
৫। ভারতীয় মুসলমানদের রাজনৈতিক আন্দোলনের পথপ্রদর্শকÑ
ক. নবাব সলিমুল্লাহ খ. রাজা রামমোহন রায়
গ. সৈয়দ আমীর আলী ঘ. নওয়াব আব্দুল লতিফ
৬। মর্লি মিন্টো সংস্কার আইনের বৈশিষ্ট্য ছিলÑ
ক. প্রতিনিধিত্বশীল শাসন ব্যবস্থা
খ. পরিষদের ক্ষমতা বৃদ্ধি
গ. মুসলমানদের জন্য পৃথক নির্বাচন
ঘ. সবগুলোই
৭। ক্রীপস মিশন কোন উদ্দেশ্যে এদেশে আগমন করে?
ক. সাংস্কৃতিক খ. রাজনৈতিক
গ. অর্থনৈতিক ঘ. সামাজিক
৮। ফজলুল হক সরকারি চাকরির শতকরা ৫০ ভাগ মুসলমানদের জন্য সংরক্ষণ করার ফলে মুসলমাদের ওপর কী ধরনের প্রভাব পড়ে?
র) মুসলমানদের আর্থিক উন্নতি হয়
রর) মুসলিম লীগ আরো সক্রিয় হয়ে উঠে
প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার প্রস্তুতি
বাংলা ভাষা ও সাহিত্য
বিষয় : বাংলা
১। ‘বাংলা ভাষার ইতিবৃত্ত‘ গ্রন্থটি কার রচনা?
ক. মুহম্মদ আবদুল হাই খ. ড. সুকুমার সেন
গ. ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ ঘ. ড. আহমদ শরীফ
২। ‘দস্ত-ব-দস্ত’ কথার অর্থ কী?
ক. বন্ধু বনাম বন্ধু খ. হাতে নাতে
গ. খেতে-খেতে ঘ. আস্তে আস্তে
৩। ‘সে তোমার মাথা খেয়েছে’Ñ এ বাক্যে মাথা খাওয়ার অর্থ কী?
ক. মস্তক কামড়ে খাওয়া খ. সর্বনাশ করা
গ. পাগলিমা করা ঘ. মাথায় আঘাত করা
৪। ব্রজভাষা কি?
ক. বাংলার ভাষা খ. বৃন্দাবনের ভাষা
গ. মথুরার ভাষা ঘ. কোনটিই নয়
৫। ‘এ ভরা বাদর মাহ ভাদর
শূন্য মন্দির মোর’ কে লিখেছেন?
ক. চণ্ডীদাস খ. রবীন্দ্রনাখ গ. বিদ্যাপতি ঘ. জয়রাজ
৬। ‘তেইশ নম্বর তৈলচিত্র’ গ্রন্থটি কার?
ক. আলাউদ্দিন আল আজাদ খ.রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
গ. প্যারিচাঁদ মিত্র ঘ. হরিপদ দত্ত
৭। ‘শীকর’ শব্দের অর্থ কী?
ক. শিশির খ. নীহারিকা
গ. জলকণা ঘ. পদ্মফুল
৮। ‘আমার পূর্ব বাংলা’ কবিতার রচয়িতা কে?
ক. জসীম উদ্দীন খ. তালিম হোসেন
গ. জীবনানন্দ দাশ ঘ. সৈয়দ আলী আহসান
৯। ‘সম্পৃক্ত‘ শব্দটির সঠিক অর্থ কোনটি?
ক. সংযুক্ত খ. আঁটবাধা
খ. অন্তর্ভুক্ত ঘ. দুই বা তার অধিকের মিলন
১০। জসীম উদ্দীনের প্রথম কাব্যগ্রন্থ কোনটি?
ক. রাখালী খ. বালুচর গ. ধানক্ষেত ঘ. নকশী কাঁথার মাঠ
১১। ‘রাবণের চিতা’ বাগধারাটির অর্থ কী?
ক. অনিষ্টে ইষ্টলাভ খ. চির অশান্তি
গ. পাপের শাস্তি ঘ. অরাজক দেশ
১২। নিচের কোন নাটকের রচয়িতা দীনবন্ধুমিত্র?
ক. নবীন তপস্বিনী খ. কমলে কামিনী
গ. বিয়ে পাগলা বুড়ো ঘ. সবগুলো
১৩. ‘হনন করার ইচ্ছাকে’ এক কথায় কি বলে?
ক. জিঘাংসা খ. জিগীষা
গ. দিদৃক্ষা ঘ. জুগুপ্সা
১৪। গিরিশচন্দ্র সেনের প্রথম ও শ্রেষ্ঠ বিয়োগাত্মক নাটকÑ
ক. চ- খ. জনা
গ,. প্রফুল্ল গ. জারানিধি
১৫। মৈয়মনসিংহ’ গীতিকার ‘মহুয়া পালার’ রচয়িতাÑ
ক. দ্বিজ ঈলান খ. দ্বিজ কানাই
গ. নয়ন চাঁদ ঘ. চন্দ্রাবতী
১৬। যে স্ত্রীলোক প্রিয় কথা বলে তাকে বলা হয়Ñ
ক) প্রিয়ংবদা খ. আবীরা
গ. মধুকর ঘ. কেকা
১৭। ‘চাষী ওরা, নয়কো চাষা, নয়কো ছোট লোক’ বলেছেনÑ
ক. কবি ইকবাল খ. কাজী নজরুল ইসলাম
গ. গোলাম মোস্তফা ঘ. জসীম উদ্দীন
১৮। বাংলা ব্যাকরণ প্রথম রচনা করেনÑ
ক. এন.বি.হ্যালহেড খ. উইলিয়াম কেরী
গ. ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ ঘ. সুনীতিকুমার চট্টোপাধ্যায়
১৯। ‘ডালে ডালে কুসুম ভার’Ñ এখানে ‘ভার’ কোন অর্থ প্রকাশ করছে?
ক. সমূহ খ. বোঝা
গ. গুরুত্ব ঘ. বিষাদ
২০। ‘চপল’ এর বিপরীতার্থক শব্দÑ
ক. স্তব্দ খ. রাশভারী
গ. ঠা-া ঘ. গম্ভীর
২১। ‘তিলে তৈল হয়’Ñ এ বাক্যে কোন কারকে কোন বিভক্তি বিদ্যমান?
ক. কর্তৃকারকে প্রথমা খ. অপাদান কারকে তৃতীয়া
গ. সম্প্রদান কারকে চতুর্থী ঘ. অপাদান কারকে সপ্তমী
২২। কোন বাগধারাটি ভিন্নার্থক?
ক. উত্তম-মধ্যম খ. অহিনকুল
গ. আদায়-কাঁচকলায় ঘ. সাপে-নেউলে
২৩। ‘পাঠক’ শব্দটি কোন শ্রেণীর ধাতু হতে গঠিত?
ক. সংস্কৃত খ. খাঁটি বাংলা
গ. দেশী ঘ. বিদেশী
উত্তর : ১.গ ২.খ ৩.খ ৪.গ ৫.গ ৬.ক ৭.গ ৮.ঘ ৯.ক ১০.ক ১১.খ ১২.ঘ ১৩.ক ১৪.গ ১৫.খ ১৬.ক ১৭.খ ১৮.ক ১৯.ক ২০.খ ২১.ঘ ২২.ক ২৩.ক