মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
সোমবার, ২৮ অক্টোবর ২০১৩, ১৩ কার্তিক ১৪২০
চীনকে রুখতে প্রস্তুত জাপান
চীনের ভূখ-গত স্বার্থ উদ্ধারের চেষ্টায় শক্তি প্রয়োগের আশ্রয় নিলে জাপান চীনের মোকাবেলা করতে প্রস্তুত রয়েছে। জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে রবিবার যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াল স্ট্রিট জার্নালে প্রকাশিত এক সাক্ষাতকারে এ হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। আবে বলেন, আমি উপলব্ধি করেছি যে, কেবল অর্থনৈতিক ক্ষেত্রেই নয়, এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের নিরাপত্তার ক্ষেত্রেও জাপান নেতৃত্ব দেবে বলে প্রত্যাশা করা হয়। তিনি আঞ্চলিক নেতাদের সঙ্গে চলতি মাসে কয়েক দফা শীর্ষ সম্মেলনের পর ওই সাক্ষাতকার দিচ্ছিলেন। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে চীন ও জাপানের মধ্যকার সম্পর্কের অবনতি ঘটে। চীন শনিবার সতর্ক করে দেয় যে, যদি জাপান চীনের ড্রোন বিমান ভূপাতিত করে, তা হলে সেটিকে বেজিং ‘যুদ্ধের কাজ’ বলে বিবেচনা করবে। এ বিবৃতিতে আবের প্রতিরক্ষা পরিকল্পনা অনুমোদনের খবরের প্রতি ইঙ্গিত করা হচ্ছিল। এ পরিকল্পনায় জাপানের আকাশসীমায় মনুষ্যবিহীন চীনা বিমান গুলি করে নামাতে বিমানবাহিনীর বিমান ব্যবহারের কথা বিবেচনা করতে বলা হয়। এক গুচ্ছ দ্বীপের মালিকানা নিয়ে সৃষ্ট বিরোধও দুটি দেশের মধ্যকার আরেক উত্তেজনাকর ইস্যু। পূর্ব চীন সাগরে অবস্থিত এসব দ্বীপ টোকিওর নিয়ন্ত্রণে রয়েছে, কিন্তু বেজিং এগুলোর মালিকানা দাবি করছে। খবর এএফপি ও বিবিসি অনলাইনের।
শিনজো আবে দাবি করেন যে, জাপান চীনের ক্রমবর্ধমান ক্ষমতা মোকাবেলায় এশিয়ায় দৃঢ়তর নেতৃত্বের ভূমিকা পালন করুক বলে অন্য দেশ কামনা করে। তিনি বলেন, জাপান গত ১৫ বছর ধরে অভ্যন্তরীণ বিষয়ে খুব বেশি ব্যস্ত রয়ে গেছে, কিন্তু অর্থনৈতিক শক্তি পুনরুদ্ধার করার সঙ্গে সঙ্গে আমরা বিশ্বকে উৎকৃষ্টতর স্থানে পরিণত করতে আরও অবদান রাখতে চাইব।
জার্নালে বলা হয়, এশিয়ায় চীনের প্রভাব রোধ করাই হবে জাপানের ওইরূপ অবদান রাখার অন্যতম উপায় বলে তিনি স্পষ্ট করে দেন।
আবে বলেন, আইনের শাসন অনুযায়ী নয়, বরং শক্তি বলে চীন স্থিতাবস্থায় পরিবর্তন আনার চেষ্টা করছে বলে উদ্বেগ রয়েছে। কিন্তু চীন যদি সেই পথ বেছে নেয়, তবে সে শান্তিপূর্ণ উপায়ে উন্নতি ঘটাতে সমর্থ হবে না।
তিনি বলেন, কাজেই চীনের সেই পথ অনুসরণ করা উচিত নয় এবং জাপান এ মত দৃঢ়ভাবে ব্যক্ত করুক বলে অনেক রাষ্ট্রই চায়। তারা আশা করছে যে, এর ফলে চীন আন্তর্জাতিক পরিম-লে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করবে।
এ সাক্ষাতকার প্রকাশিত হওয়ার কয়েক দিন পূর্বে আবে এক প্রতিরক্ষা পরিকল্পনা অনুমোদন করেছেন বলে খবর বেরোয়। এতে জাপানের আকাশসীমা ছেড়ে চলে যেতে দেয়া সতর্ক সঙ্কেত উপেক্ষা করবে এমন বিদেশী ড্রোন বিমানকে বাধা দিতে এবং গুলি করে নামানোর কথা বিবেচনা করতে বলা হয়। শনিবার এর জবাবে চীনা প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, যদি জাপান বিমান ভূপাতিত করার মতো বল প্রয়োগের আশ্রয় নেয়, তবে সেটি আমাদের প্রতি এক গুরুতর উস্কানি, এক যুদ্ধের কাজই হবে।
মুখপাত্র জেং ইয়ানশেং মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে বলেন, আমরা পাল্টা আঘাত আনার চূড়ান্ত পদক্ষেপ নেব এবং যে পক্ষ সেই গোলযোগ ঘটিয়ে থাককে, তাকেই সব পরিণতি বহন করতে হবে। পূর্ব চীন সাগরে ভূখ-গত বিরোধকে কেন্দ্র করে বেজিং ও টোকিওর মধ্যকার সম্পর্ক এক বছরেরও বেশি সময় ধরে উত্তেজনাপূর্ণ হয়ে রয়েছে।
ওই সাগরে এক ক্ষুদ্র, জনমানবশূন্য দ্বীপপুঞ্জ জাপানের নিয়ন্ত্রণ রয়েছে, কিন্তু চীন এর মালিকানা দাবি করছে। এটি জাপানে সেনকাকু ও চীনে দিয়াওয়ু নামে পরিচিত। জাপানের ওকিনাওয়া দ্বীপপুঞ্জের কাছে আন্তর্জাতিক জলসীমার আকাশে চারটি চীনা সামরিক বিমান ওড়ে যাওয়ার পর জাপান সেখানে পরপর দু’দিন জঙ্গী জেট বিমান পাঠায়। রবিবার প্রকাশিত খবরে এ কথা বলা হয়।
শুক্র ও শনিবার জাপানি জেট বিমানগুলো ওই আকাশসীমায় টহল দেয়। এর আগে চারটি চীনা সামরিক বিমান ওকিনাওয়ার প্রধান দ্বীপ এবং মিয়াকো দ্বীপের মধ্যে ওড়ে যায়। তবে সেগুলো জাপানের আকাশসীমা লঙ্ঘন করেনি। জিজি প্রেস ও কিওডো বার্তা সংস্থা এ খবর জানায়।
লালুকে নিয়ে জোট গড়তে রাহুলকে চাপ
আগামী লোকসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে ভারতের ক্ষমতাসীন কংগ্রেস দলের ভেতর চলছে এখন আসন জেতার তোড়জোড়। আর এ জন্য দলটির সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীসহ সহসভাপতি রাহুল গান্ধীকে বোঝাতে ওঠেপড়ে লেগেছেন দলের অনেক নেতা। কংগ্রেসের কেন্দ্রীয় ও বিহার নেতৃত্বের একটি বড় অংশ মনে করেন, লালুপ্রসাদ ও রামবিলাস পাসোয়ানকে নিয়ে জোট গঠন করলে দল উপকৃত হবে। অন্যদিকে লালুপ্রসাদকে বাদ দিয়ে নাতনি নীতীশ কুমার ও রাজবিলাসকে নিয়ে জোট গড়লে ফল কোন দিকে যাবে, তারই অঙ্ক করছেন রাহুল গান্ধী। খবর আনন্দবাজার অনলাইনের।
রাহুল গান্ধীর চাপেই সম্প্রতি সাজাপ্রাপ্ত বা দাগী আসামিদের রক্ষায় জারি করা অধ্যাদেশটি বাতিল হয়ে যায়। আর এ জন্যই পশুখাদ্য মামলায় অভিযুক্ত লালুপ্রসাদকে পার্লামেন্ট সদস্য পদ হারিয়ে কারাগারে যেতে হয়েছে। অথচ লোকসভা ভোটে সে লালুকে ফের জোট বন্ধু করতে দলের মধ্যে এখন চাপের মুখে আছেন রাহুল। কংগ্রেসের বিহার ও কেন্দ্রীয় নেতাদের অনেকেই তাই দলটির সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীকে নিয়মিত বুঝিয়ে চলছেন। যাতে মাকে দিয়েও চাপ বাড়ানো যায় ছেলে রাহুল গান্ধীর ওপর। তবে রাহুল নীতীশ কুমার ও রামবিলাসকে নিয়ে জোট গঠনের বিষয়টি চিন্তা করছেন। আর এখানেই রাহুলের সঙ্গে মতের অমিল দলের বিহার ও কেন্দ্রীয় নেতত্বের মধ্যে।
শাকিল আহমেদ, দিগি¦জয় সিংহ, সিপি জোশী, জয়রাম রমেশের মতো নেতারা চান জোট হোক লালুপ্রসাদের সঙ্গে। এরা মনে করেন, লালুর সঙ্গে জোট না করাটা জেনেশুনে বিষপানের শামিল হবে।
অনেক কংগ্রেস নেতাই মনে করেন, লালুপ্রসাদকে সঙ্গে নিয়ে জোট করলে ২০০৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়া সম্ভব হবে। কারণ, এ জোট ২০০৪-এ ৪০টি আসনের মধ্যে ২৯টি আসন পেয়েছিল। বর্তমানে ক্ষমতায় না থাকলেও লালুর ভোট কমেনি বিহারে। বিধানসভার আসন সংখ্যার হিসাবে আরজেডি এখন প্রান্তিক শক্তি।
নীতীশ ও রামবিলাসকে নিয়ে কংগ্রেসের জোট গঠনের সিদ্ধান্তে দলের নেতারা মনে করেন, নীতীশের রেখাচিত্র এখন নিম্নগামী।
২০০২ সাল থেকে মেরকেল মার্কিন গোপন নজরদারিতে
ডার স্পাইগেলের রিপোর্ট
জার্মান চ্যান্সেলর এ্যাঞ্জেলা মেরকেলের মোবাইলে যুক্তরাষ্ট্র ২০০২ সাল থেকে গোয়েন্দা নজরদারি করে আসছে। দেশটির সাপ্তাহিক সংবাদপত্র ডার স্পাইগেল পত্রিকায় প্রকাশিত রিপোর্টে একথা বলা হয়েছে। মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা ন্যাশনাল সিকিউরিটি এজেন্সির (এনএসএ) গোপন নজরদারির তালিকা পত্রিকাটির নজরে এসেছে বলে জানিয়েছে। খবর এএফপি ও বিবিসি অনলাইনের।
জার্মান পত্রিকাটির ভাষ্যমতে, ২০০২ সাল থেকে এনএসএ’র গোপন নজরদারির তালিকায় মেরকেলের নাম ছিল। উল্লেখ্য, তখন মেরকেল জার্মানির চ্যান্সেলর হননি। এ তালিকায় ২০১৩ পর্যন্ত তাঁর নামটি ছিল এবং এটি এখনও বাদ দেয়া হয়নি বলে ডার স্পাইগেল জানিয়েছে। এদিকে এনএসএ’র গোপন নজরদারি কর্মসূচীর বিরুদ্ধে শনিবার ওয়াশিংটনে প্রতিবাদ বিক্ষোভ হয়েছে বলে জানা গেছে। হাজার হাজার মানুষ ক্যাপিটল হিল অভিমুখে মিছিল করে এনএসএ’র গোপন নজরদারির সীমিত করার আহ্বান জানিয়েছে। মিছিলে অংশগ্রহণকারী অনেকের হাতে ছিল এনএসএ’র সাবেক স্টাফ এডওয়ার্ড স্নোডেনের ছবি। মিছিলকারীদের অবস্থান ছিল স্নোডেনের পক্ষে। স্নোডেন এ বছর আরও কয়েক মাস আগে যুক্তরাষ্ট্রের এনএসএ’র নজরদারির পরিসীমার কথা ফাঁস করে দিয়ে বিশ্বজুড়ে আলোড়ন তুলেছিলেন। এনএসএ যেন মানুষের ব্যক্তিগত গোপনীয়তা রক্ষা করে নিজেদের কর্মকা- পরিচালনা করে সে লক্ষ্যে আইন প্রণয়নের জন্য প্রতিবাদকারীরা আহ্বান জানান। তাঁরা এনএসএ’র গোপন নজরদারির আওতার পূর্ণ বিবরণ প্রকাশ চেয়ে অনলাইনে ৫ লাখ ৭৫ হাজার ব্যক্তির স্বাক্ষরিত একটি দাবিনামা কংগ্রেসের কাছে হস্তান্তর করেন। ২০০১ সালে নিউইয়র্কের টুইন টাওয়ার হামলার পর কংগ্রেস যেদিন মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর নজরদারির পরিধি সম্প্রসারিত করে প্যাট্রিয়ট আইনটি পাস করে তার ঠিক ১২ বছর পর এ বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হলো। এতে প্রায় সাড়ে চার হাজার লোক অংশ নিয়েছেন বলে আয়োজক সংগঠনগুলো জানিয়েছে। এ বিক্ষোভ এমন এক সময় অনুষ্ঠিত হলো যখন এনএসএ’র সর্বব্যাপী নজরদারির খবর ফাঁসের পর দেশে-বিদেশে বিব্রতকর অবস্থায় রয়েছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার প্রশাসন।
এনএসএ’র গোপন নজরদারির খবর গত কয়েক মাস ধরে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়ে আসছে। জার্মানি ও ফ্রান্স এ চলতি বছরের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে একটি নো স্পাইং চুক্তি স্বাক্ষরের কথা বললেও চুক্তিটি আপাতত হচ্ছে না বলে জানা গেছে। ডার স্পাইগেল আরও জানিয়েছে, ইউরোপের প্রায় সব দেশের নেতাই মার্কিন নজরদারি আওতায় রয়েছে। বুধবার প্রথম এ খবর প্রকাশের পর মেরকেল ওবামাকে ফোন করেছিলেন। ওবামা দৃঢ়তার সঙ্গেই বলেছিলেন তিনি এ ব্যাপারে কিছুই জানেন না।
দুর্বৃত্তের গাড়িচাপায় কানাডা প্রবাসী বাংলাদেশী ছাত্র নিহত
সংবাদদাতা, টরন্টো থেকে ॥ দুর্বৃত্তের গাড়িচাপায় নিভে গেল কানাডা প্রবাসী মেধাবী বাংলাদেশী ছাত্র রাফসানের প্রাণ। ছিনতাই করে পালিয়ে যাওয়ার সময় রাফসানকে গাড়িচাপা দেয় ওই দুষ্কৃতকারী। ২২ বছর বয়সী রাফসান পড়াশোনা করতেন ইউনিভার্সিটি অব টরন্টোতে। পরিবারের সঙ্গে টরন্টোর কেনেডি রোড এলাকায় বসবাস করতেন রাফসান। তাঁকে হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে স্থানীয় পুলিশ রবিবার ২৪ বছর বয়সী এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে। পুলিশ জানিয়েছে, শনিবার গভীর রাতে কেনেডি রোডে এক ট্যাক্সি ড্রাইভারের সর্বস্ব ছিনিয়ে পিকআপ ট্রাকে করে পালিয়ে যাওয়ার সময় রাফসানকে চাপা দেয় ওই দুষ্কৃতকারী। কেনেডি রোড ও এগলিংটন এ্যাভিনিউসংলগ্ন স্থানে রাত ১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয় পুলিশের কনস্টেবল ক্লিন্ট স্টিব রবিবার সাংবাদিকদের বলেন, ঘাতক পিকআপ ট্রাকটিকে শনাক্ত করা হয়েছে। এর চালক বর্তমানে পুলিশি হেফাজতে রয়েছে। তার বিরুদ্ধে হত্যা ও লুণ্ঠনসহ বেশ কয়েকটি অভিযোগ আনা হবে। রাফসানের মৃত্যুতে এখন পরিবারে শোকের মাতম। শোকের ছায়া নেমে এসেছে টরন্টো প্রবাসী বাংলাদেশী কমিউনিটিতেও। পরিবারের সঙ্গে মাত্র চার বছর বয়সে বাংলাদেশ থেকে কানাডায় আসেন রাফসান। ইউনিভার্সিটি অব টরন্টোতে বিবিএ পড়তেন তিনি। দুর্ঘটনাস্থলের মাত্র কয়েক ব্লক দূরে একটি বাড়িতে বসবাস করত তাঁর পরিবার। রাফসানের চাচা মোহাম্মদ এ্যালান সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা আমাদের পুত্রকে হারিয়েছি, আমাদের পরিবারের রতœকে হারিয়েছি। সে ছিল পরিবারের সবচেয়ে উজ্জ্বল রতœ।’
ড্রোন গুলি করে নামানো ঠিক হবে না ॥ পাক মন্ত্রী
পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষা উৎপাদন মন্ত্রী রানা তানভির হুসেইন মনে করেন যে, ড্রোন বিমান গুলি করে নামানো বিজ্ঞতার পরিচায়ক হবে না, যদিও দেশটির তা করার সামর্থ্য রয়েছে। খবর ডন অনলাইনের।
তিনি বলেন, পাকিস্তানের মার্কিন ড্রোন বিমান গুলি করে ভূপাতিত করার সক্ষমতা রয়েছে। কিন্তু চিন্তাভাবনা করার পরই এরূপ সিদ্ধান্ত নেয়া প্রয়োজন। ঠিক এখন ড্রোন ভূপাতিত করার পদক্ষেপ নেয়া ঠিক হবে না। তিনি শুক্রবার লাহোরে বেতার যোগাযোগ যন্ত্রপাতি উৎপাদন ইউনিট পরিদর্শনের পর সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছিলেন।
রানা তানভির এক প্রশ্নকারীকে বলেন, প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ ড্রোন ইস্যু নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সঙ্গে কথা বলেছিলেন। ওই আলোচনার ফল শীঘ্রই দৃশ্যমান হবে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর যুক্তরাষ্ট্র সফর সফল হয়েছে এবং জাতি আগামী দিনগুলোতে এর ইতিবাচক ফল দেখতে পাবে।
এ্যাবোটাবাদ অভিযান সম্পর্কিত এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, আমাদের রাডার যে কোন কিছু ধরতে পারে। কিন্তু এটি কেন ওই রাতে (২ মে, ২০১১) মার্কিন মেরিনদের হেলিকপ্টারের খোঁজ পায়নি, তা আমি বলতে পারব না।
নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর চলমান উত্তেজনা সম্পর্কে মন্তব্য করতে গিয়ে তিনি বলেন যে, ভারতের প্রধানমন্ত্রীর বিবৃতি ওই অঞ্চলে পরিস্থিতির অবনতি ঘটিয়েছে। তিনি বলেন, ভারতীয় নেতারা আগামী বছর অনুষ্ঠেয় সাধারণ নির্বাচনে সুবিধা পেতে পাকিস্তান ভীতিকে কাজে লাগাচ্ছে।
সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আশফাক পারভেজ কায়ানির উত্তরাধিকারী মনোনয়নের ক্ষেত্রে বিলম্বের বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, পরবর্তী সেনাপ্রধান নিয়োগের ক্ষেত্রে কোন ইস্যুই জড়িত নয়। এ ক্ষেত্রে যথাসময়ে সিনিয়রিটির ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।
সংবাদের জন্য ফেসবুক ব্যবহারে তরুণদের আগ্রহ কম
পিউ রিসার্চের জরিপ
ফেসবুক সংবাদ সংগ্রহের একটি ভাল উৎস। তবে কেবল সংবাদের জন্য সবাই ফেসবুক ব্যবহার করে না। সদ্যপ্রকাশিত পিউ রিসার্চের এক জরিপের ফলে বলা হয়েছে, ফেসবুক ব্যবহারকারী যুক্তরাষ্ট্রের প্রাপ্তবয়স্ক জনগোষ্ঠীর ৩০ শতাংশ বা কেবল সংবাদ জানার উৎস হিসেবে ফেসবুক ব্যবহার করে থাকে। তরুণদের মধ্যে সুসংবাদের জন্য ফেসবুক ব্যবহারের আগ্রহ কম। খবর ওয়েবসাইট।
জরিপে অংশগ্রহণকারী একজন উত্তরদাতা বলেছেন, ‘আমাদের জন্য এটি দেখা জরুরী নয়। ফেসবুক সংবাদ সংগ্রহের একটি ভাল উৎস। তবে আমরা পুরোপুরি এর ওপর নির্ভরশীল নই।’ উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্রের ৬৪ শতাংশ লোক বৃহত্তম এ সামাজিক যোগাযোগ নেটওয়ার্কটি ব্যবহার করে থাকেন। দেখা গেছে, প্রাপ্তবয়স্ক জনগোষ্ঠীর ৩০ শতাংশ সংবাদ জানার উৎস হিসেবে ফেসবুক ব্যবহার করে থাকেন, এ সংখ্যা মোট ব্যবহারকারীর ৪৭ শতাংশ বা প্রায় অর্ধেক। ফেসবুক বন্ধুদের পোস্ট করা লিঙ্ক অথবা যেসব সংবাদ উৎস একজন ব্যবহারকারী ফলো করে থাকেন, সেখান থেকে তারা সর্বশেষ খবরগুলো পেয়ে যান। অনেকেই মনে করেন, সংবাদের উৎস হিসেবে ফেসবুক একটি ভাল জায়গা কিন্তু এটাই খবর সংগ্রহের একমাত্র জায়গা নয়। কেবলমাত্র ৪ শতাংশ উত্তরদাতা জানিয়েছেন যে, তারা এটি তাদের সংবাদ জানার প্রধান উৎস। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটির জনপ্রিয়তা দিন দিন বাড়ল একে ভিত্তি করে সংবাদ সংগ্রহের প্রবণতা সেভাবে বাড়ে নাই। ফেসবুক ব্যবহারকারী প্রাপ্তবয়স্ক জনতার ৩০ শতাংশ জানিয়েছেন, সংবাদ পাওয়ার জন্য ঐতিহ্যবাহী উৎসগুলোর ওপর আর নির্ভরশীল নন। পিউ রিসার্চের পরিচালক এমি মিচেল বলেছেন, সংবাদ পরিবেশনের ক্ষেত্রে ভিন্ন ধারা এনেছে ফেসবুক। এখানে সংবাদ অনুসন্ধান ছাড়াই একজন ব্যবহারকারী প্রয়োজনীয় খবরগুলো জেনে নিতে পারছেন। তিনি বলছেন, ফেসবুক ব্যবহারকারীরা অন্যত্র সংবাদ অনুসন্ধান কমিয়ে দিয়েছেন, এমন কোন প্রবণতা তাঁরা দেখতে পাননি। ফেসবুক থেকে সংবাদ সংগ্রহের ক্ষেত্রে শীর্ষে আছে বিনোদন জগতের খবর। শতকরা ৭৩ শতাংশ উত্তরদাতা বলেছেন, তাঁরা ফেসবুক থেকে বিনোদনমূলক খবর পেতে আগ্রহী।
২১ বছর পর ঘুম ভাঙল মাউন্ট ইটনার
২১ বছর পর ঘুম ভাঙল ইউরোপের সবচেয়ে সক্রিয় আগ্নেয়গিরি মাউন্ট ইটনার। শনিবার ভোররাত থেকেই সিসিলি দ্বীপের পূর্ব উপকূলীয় এলাকায় অবস্থিত এই আগ্নেয়গিরির থেকে অগ্ন্যুৎপাত ঘটতে থাকে। মাউন্ট ইটনারের গহ্বর থেকে লাভা, ধোঁয়া বের হতে দেখা যায়। অগ্ন্যুৎপাতের ধোঁয়ায় বন্ধ করে দিতে হয় স্থানীয় ক্যাটানিয়া বিমানবন্দর। খবর ওয়েবসাইটের।
অগ্ন্যুৎপাতের মাত্রা মারাত্মক নয়। এর ফলে পুরো অঞ্চল ধোঁয়ায় ঢেকে যায়। উদ্গিরণের ফলে ক্ষয়ক্ষতির কোন খবর পাওয়া না গেলেও, স্থানীয়দের সতর্ক থাকতে পরামর্শ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। মাউন্ট ইটনা আগ্নেয়গিরি ইউরোপের একমাত্র সক্রিয় আগ্নেয়গিরি। ১৯৯২ সালে শেষবার বড় ধরনের লাভা উদ্গিরণের ঘটনা ঘটে। অবশ্য মাঝেমধ্যেই অল্পস্বল্প জেগে ওঠে মাউন্ট ইটনা। চলতি বছর মার্চেও অগ্ন্যুৎপাত হয় মাউন্ট ইটনা থেকে। তবে বড় ধরনের অগ্ন্যুৎপাত ২১ বছর পর এই প্রথম। সিসিলি দ্বীপের পূর্ব উপকূলীয় এলাকায় অবস্থিত এই সক্রিয় আগ্নেয়গিরিটি। মাউন্ট ইটনা আফ্রিকা প্লেট ও ইউরোশিয়া প্লেটের মধ্যবর্তী স্থানে অবস্থিত।

আলোচনায় বসুন ॥ তালেবানের প্রতি আফগান ওলামা পরিষদ
আফগানিস্তানের ওলামা পরিষদ সে দেশের সর্বোচ্চ শান্তি পরিষদের সঙ্গে সরাসরি আলোচনায় বসার জন্য তালেবানদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। খবর ওয়েবসাইটের।
ওলামা পরিষদের বিবৃতিতে সে দেশে যুদ্ধের অবসান ঘটানোর জন্য শান্তি পরিষদের সঙ্গে আলোচনায় বসতে তালেবানদের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে, যাতে বিদেশী সেনা উপস্থিতির আর কোন সুযোগ না থাকে। ওলামা পরিষদের বিবৃতিতে বেসামরিক মানুষ হত্যা ও ধর্মীয় কেন্দ্রগুলোতে তালেবানের হামলারও নিন্দা জানোনো হয়। বিবৃতিতে আরও বলা হয়, আফগানিস্তানে সঙ্কটের প্রধান কারণ ধর্মীয় নয় বরং রাজনৈতিক। তাই আফগান আলেম সমাজ ও জনগণকেই এ সঙ্কট অবসানের পদক্ষেপ নিতে হবে। আফগানিস্তানের ওলামা পরিষদ আগামী এপ্রিলে অনুষ্ঠেয় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে, যাতে তারা নিজেদের রাজনৈতিক ভবিষ্যত নির্ধারণ করতে পারে।



উইকিপিডিয়ায় মেসেজ সেবা

ব্যবহারকারীর অনুরোধের ভিত্তিতে তথ্য এবার মোবাইল ফোনের মেসেজের মাধ্যমে পাঠাবে অনলাইন এনসাইক্লোপিডিয়া উইকিপিডিয়া। সম্প্রতি মেসেজের মাধ্যমে তথ্য প্রদানের নতুন এ সেবা পরীক্ষামূলকভাবে চালু হয়েছে। প্রাথমিক পর্যায়ে আফ্রিকার ব্যবহারকারীদের দেয়া হচ্ছে এ সুবিধা। অনলাইন এনসাইক্লোপিডিয়া ও মোবাইল অপারেটর এয়ারটেল যৌথভাবে বিনামূল্যে কেনিয়ায় শুরু করেছে এ প্রকল্পের কাজ। উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশনের টেকনিক্যাল পার্টনার ম্যানেজার ড্যান ফয় বলেন, তিন মাসব্যাপী চলবে এ পরীক্ষা। উন্নয়নশীল বিশ্বে ইন্টারনেটযুক্ত স্মার্টফোন খুব বেশি ব্যবহৃত হয় না। ফলে কোটি কোটি মানুষ তাদের মোবাইল ফোনে উইকিপিডিয়া দেখতে পারেন না। পাশ্চাত্য প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো ভবিষ্যতের প্রধান বাজার হিসেবে দেখছে আফ্রিকাকে। এ জন্য প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো সহজে চালানো যায়, এমন প্রযুক্তি চালু করছে। আফ্রিকার প্রযুক্তি সংবাদভিত্তিক ওয়েবসাইট হিউম্যানআইপিওর সম্পাদক টম জ্যাকসন বলেছেন, উইকিপিডিয়ার উদ্যোগকে আমরা স্বাগত জানাই। সূত্র: বিবিসি অনলাইন।