মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
বৃহস্পতিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১১, ১ পৌষ ১৪১৮
এসএমই ক্লাস্টার উন্নয়নে সমন্বয় কমিটি গঠন
প্রান্তিক পর্যায় থেকে অর্থনৈতিক উন্নয়ন নিশ্চিত করতে বিবির এ ব্যতিক্রমী উদ্যোগ
অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ হাল্কা প্রকৌশল ক্লাস্টার অর্থায়নে ও উন্নয়নে বিদ্যমান সমস্যা চিহ্নিত করে সমাধানকল্পে ৰুদ্র ও মাঝারি শিল্পের (এসএমই) ক্লাস্টার উন্নয়নে কাজ করবে সমন্বয় কমিটি। দেশে কার্যরত ব্যাংকগুলোকে এর সঙ্গে সম্পৃক্ত করার মাধ্যমে ও স্থানীয় উদ্যোক্তাদের প্রত্যক্ষ অংশগ্রহণে উদীয়মান এ শিল্পকে আরও এগিয়ে নিতে গঠন করা হয়েছে এই কমিটি। প্রান্তিক পর্যায় থেকে অর্থনৈতিক উন্নয়ন নিশ্চিত করতে এসএমই উদ্যোগকে সংগঠিত করতে বাংলাদেশ ব্যাংক ব্যতিক্রমী এ উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। এতে গ্রামীণ পর্যায়ে কর্মসংস্থান নিশ্চিত করার পাশাপাশি মানুষের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা রাখবে।
এ উপলক্ষ্যে সম্প্রতি সংশ্লিষ্ট ক্লাস্টারের উদ্যোক্তা, সকল ব্যাংকের ব্যবস্থাপক এবং এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি/সেক্রেটারির উপস্থিতিতে এক মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের এসএমই এবং স্পেশাল প্রোগ্রামস বিভাগের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) সুকোমল সিংহ চৌধুরী। ইস্টার্ন ব্যাংক, ইসলামী ব্যাংক ও বেসিক ব্যাংক এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের সমন্বয়ে বগুড়া পর্যটন হোটেলে এ সভার আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠান শেষে আটজন উদ্যোক্তাদের মধ্যে ৯০ লাখ টাকার ঋণপত্র বিতরণ করা হয়।
সভায় সুকোমল সিংহ চৌধুরী বলেন, আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে ব্যাংকগুলোকে উদ্যোগ নিতে হবে। ব্যাংক ও উদ্যোক্তার মাঝে সম্পর্ক হবে একই পরিবারের সদস্যের মতো। এ সম্পর্ক শুধু ঋণের মাঝে সীমাবদ্ধ না রেখে একটা আত্মিক সম্পর্ক গড়ে তুলতে হবে। আর কথা নয়, এখন কাজ করার সময় এসেছে।
এসএমই খাতের প্রসঙ্গ তুলে ধরে তিনি বলেন, বাংলাদেশে কতগুলো ক্লাস্টার আছে তার কোন সঠিক পরিসংখ্যান নেই। তবে কিছু ক্লাস্টার চিহ্নিত করা হয়েছে। ক্লাস্টার উন্নয়নের অপার সম্ভাবনা রয়েছে বগুড়ায়।
ব্যাংকগুলোকে উদ্দেশে তিনি বলেন, যোগ্য উদ্যোক্তা খুঁজে বের করে তাদের সহায়তায় এগিয়ে আসুন। তিনি বলেন, শুধু অর্থ দিয়ে সহযোগিতা করলেই চলবে না সামাজিক ও অর্থনৈতিক উন্নয়নে অংশগ্রহণ করতে হবে।
ক্লাস্টার উন্নয়নে কাজ করছে এমন কিছু ব্যাংকের প্রশংসা করে সুকোমল সিংহ চৌধুরী বলেন, একাধিক ক্লাস্টার উন্নয়নে কাজ করছে ব্যাংকগুলো। বগুড়ায় ক্লাস্টার উন্নয়নে কেন্দ্রীয় ব্যাংক, ইস্টার্ন, ইসলামী ও বেসিক ব্যাংকের সমন্বয় কমিটি আগামী জানুয়ারির মধ্যে কাজ শুরম্ন করবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
বিসিকের কার্যক্রম প্রসঙ্গ তুলে ধরে তিনি বলেন, বিসিক সঠিকভাবে নেতৃত্ব পাচ্ছে না। বিসিকের সঠিক নেতৃত্ব প্রয়োজন। অনেক ৰেত্রে নীতিমালা থাকলেও যথাযথ প্রয়োগ নেই বলে তিনি জানান।
অনুষ্ঠানে ইস্টার্ন ব্যাংকের এসএমই বিভাগের প্রধান খোরশেদ আলম বলেন, বগুড়ায় ক্লাস্টার উন্নয়নে লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং খাতে ইস্টার্ন ব্যাংকের অর্থায়ন রয়েছে। এমএমই খাতে শুধু বগুড়ায় ২ কোটি ৭৫ লাখ টাকা বিতরণ করা হয়েছে। তিনি বলেন, উদ্যোক্তা তৈরি হলে অর্থনীতি সচল হবে। একই সঙ্গে গ্যাস ও বিদু্যতের চাহিদা মেটানো সম্ভব বলেও তিনি মনে করেন। এসএমই খাতের সমস্যা সমাধানে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি। ইসলামী ব্যাংকের এসএমই বিভাগের প্রধান নজরম্নল ইসলাম খান বলেন, ইসলামী ব্যাংক প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই এসএমই খাতের উন্নয়নে কাজ করছে। ২৫টিরও বেশি ক্লাস্টার উন্নয়নে ইসলামী ব্যাংক কাজ করছে বলে তিনি জানান। বেসিক ব্যাংকের এসএমই বিভাগের প্রধান মরিয়ম বেগম বলেন, ১৯৮৯ সাল থেকে ৰুদ্র ও মাঝারি শিল্প উন্নয়নে কাজ করছে বেসিক ব্যাংক। এছাড়া আর্থসামাজিক উন্নয়নে বেসিক ব্যাংকের অবদান রয়েছে।
অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ব্যাংকের ডিজিএম এস এম ফেরদৌস হোসেন, যুগ্ম-পরিচালক মোঃ মনিরম্নজ্জামান সরকার ও বগুড়ার বাংলাদেশ ব্যাংকের ডিজিএম মনোজ কানত্মি বৈরাগী।
স্থানীয় উদ্যেক্তাদের মধ্যে গোলাম আযম টিকুল, আইনুল হক সুহেল, সরকার বাদলসহ চেম্বার ও এসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দরা বক্তব্য রাখেন। তারা জানান, ক্লাস্টার খাতে সম্ভাবনা থাকলেও নীতিনির্ধারকদের অবহেলার কারণে এ খাতে ৰতিগ্রসত্ম হচ্ছেন ব্যবসায়ীরা। শুধু অর্থ দিয়ে সুদের হার গুনলে চলবে না, সকল ব্যাংকগুলোকে ক্লাস্টার উন্নয়নে এগিয়ে আসার দাবি জানান ব্যাবসায়ীরা। তারা আরও বলেন, বিসিককে সচল করে এ খাতে অংশগ্রহন করা জরম্নরী। এছাড়া উন্নত প্রযুক্তির ব্যবহার ও ৰুদ্র ও মাঝারি শিল্পে দৰ শ্রমিকের অভাব রয়েছে বলে তাঁরা জানান।
সমন্বয় কমিটি : হাল্কা প্রকৌশল কাস্টার অর্থায়নে ও উন্নয়নে বিদ্যামান সমস্যা চিহৃিত করে সমাধান কল্পে গঠন করা হয়েছে সমন্বয় কমিটি। বাংলাদেশ ব্যাংক বগুড়ার মহাব্যবস্থাপক কমিটি প্রধান, সকল ব্যাংক ব্যবস্থাপকম চেম্বার, এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ও সম্পাদক, বিসিকের একজন প্রতিনিধি এই কমিটিতে সদস্য হিসেবে কাজ করবেন। এছাড়া ইসলামী ব্যাংক, ইস্টার্ন ব্যাংক ও বেসিক ব্যাংক সমন্বয়কারীর ভূমিকা পালন করবে। অন্যান্য সকল ব্যাংক অর্থায়ন করবে।
সমন্বয় কমিটির কাজ : সমন্বয় কমিটি প্রথমে সমস্যা চিহ্নিত করে সমাধানে কাজ করবে। প্রতি মাসে অনত্মত একটি মিটিংয়ের আয়োজন করবে এই কমিটি। এছাড়া মাসিক, ত্রৈমাসিক, ষান্মাষিক প্রতিবেদন তৈরি করে কেন্দ্রীয় ব্যাংকে পাঠাবে। কমিটি অন্য ব্যাংকগুলোকে ক্লাস্টার উন্নয়নে কাজ করতে উৎসাহ ও প্রেরণা যোগাবে।
অনুষ্ঠানে সভাপতির ভাষণে মনোজ কানত্মি বৈরাগী দায়িত্ব পালনে বগুড়া অফিসের সদিচ্ছা ও ইতিবাচক মনোভাবের বিষয়ে সকলকে নিশ্চয়তা প্রদান করেন। সভাপতি সকলের প্রতি ক্লাস্টার উন্নয়নে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।