মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
মঙ্গলবার, ৪ জানুয়ারী ২০১১, ২১ পৌষ ১৪১৭
বিদায়ী বছরের রক টপ চার্ট
বিদায় ২০১০। আর তাই বছর শেষে বিদায়ী বছরের সাংস্কৃতিক অঙ্গনের বিভিন্ন কাজের মূল্যায়ন করতে গিয়ে ইতোমধ্যে শুরম্ন হয়ে গেছে সমালোচকদের ইঁদুরদৌড়। সিনেমা, সঙ্গীত, নৃত্যসহ সর্বৰেত্রে এখন মূল্যায়নের চার্ট। জনপ্রিয়তার বিচারে কে কাকে হারাল তার বিশেস্নষণ। এই পর্যায়ে আমরাও পিছিয়ে নেই। ডি-প্রজন্মের সকল বন্ধুদের অনুরোধে আমাদের আজকের আয়োজন বিদায়ী বছরের শ্রেষ্ঠ দশটি রক গান এবং আলোচিত ব্যান্ডসমূহের কিছু তথ্য।
দি বস্ন্যাক কিয়স (ঞযব ইষধপশ শবুং) : মার্কিন বস্নু রক ব্যান্ড বস্ন্যাক কিসের জন্ম ২০০১ সালে। মাত্র দু'জন মেম্বারের সমন্বয়ে গঠিত ব্যান্ডটি বিশ্ব সামাজিক প্রেৰাপটে প্রভাবশালী রাষ্ট্রসমূহের অনৈতিক হস্তক্ষেপের প্রতি ইঙ্গিত রেখেই ব্যান্ডের নাম রাখেন দি বস্ন্যাক কিয়স যার অর্থ দাঁড়ায় অদৃশ্য চাবি।
২০০২ সালের প্রথম দিকেই ব্যান্ডটি রিলিজ করে তাদের প্রথম ডেবু্য এ্যালবাম দি বিগ কাম আপ (ঞযব নরম ঈড়সব ঁঢ়)। চমৎকার ব্যবসাসফল এ্যালবামটিতে ড্রামার পেটরিক কার্নেস আশির দশকের ৮-ট্র্যাক টেপ ব্যবহার করেন। এই এ্যালবামের বেশ কিছু গান টপ চার্টে স্থান করে নেয়। এরপর ২০০৩ সালে থিকফ্রিকনেস (ঞযরপশ ভৎবধশহবংং) এবং ২০০৪ সালে রাবার ফ্যাক্টরি (জঁননবৎ ভধপঃড়ৎু) সাফল্যের পর ২০০৫ সালে ব্যান্ডটি রিলিজ করে তাদের প্রথম লাইভ এ্যালবাম। তবে ২০১০ সাল ব্যান্ডটিকে নতুন এক মাত্রায় নিয়ে আসে। গেল বছরে রিলিজ হওয়া তাদের এ্যালবাম ব্রাদার্স (ইৎড়ঃযবৎং) ব্যাপক সাফল্য অর্জন করে। এ্যালবামের একটি গান ইতোমধ্যে ফিফা ১১ সাউন্ড ট্র্যাকে রাখা হয়। এবং দর্শক বিচারে ২০১০ সালের অন্যতম শ্রেষ্ঠ রক গান নির্বাচিত হয়।
লিনকিন পার্ক (খরহশরহ চধৎশ) সংৰেপে এল.পি (খ.চ) বিশ্বময় অত্যনত্ম জনপ্রিয় একটি রক ব্যান্ড। ১৯৯৬ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার র্যাপ-রকের নতুন মিশেলে ব্যান্ডটি ফর্ম করে। এবং ডেবু্য এ্যালবামেই চমৎকার সব গানের মাধ্যমে শ্রোতাদের মনে স্থান করে নেয়। ব্যান্ডটির প্রথম এ্যালবাম হাইব্রিড থিওরি (ঐুনৎরফ ঃযবড়ৎু) রিলিজ হয় ২০০০ সালের ২৪ অক্টোবর এবং রিলিজ হওয়ার প্রথম বছরেই এ্যালবামটি বিশ্বব্যাপী ৪.৮ মিলিয়ন কপি বিক্রি হয়। এছাড়া এ্যালবামটির কল্যাণে গ্র্যামি এওয়ার্ডের তিনটি ক্যাটাগরিতে পুরস্কার জিতে নেয়। এছাড়া ২০১০ সালে হাইতির প্রলয়ঙ্করী ভূমিকম্পে ৰতিগ্রসত্মদের সাহায্যার্থে ব্যান্ডটি নট এ্যালোন (ঘড়ঃ ধষড়হব) নামে একটি গান রিলিজ করে। ২০১০ সালে ব্যান্ডটি রিলিজ করে তাদের আরেকটি এ্যালবাম এ থাউজেন্ড সং (অ ঞযড়ঁংধহফ ঝড়হম) এ্যালবামের একটি গান ওয়েটিং ফর দা এ্যান্ড ২০১০ সালের চার্টে দ্বিতীয় স্থান দখল করে নেয়।
তৃতীয় স্থানে উঠে আসে কানাডীয় ব্যান্ড থ্রি ডেস গ্রেস (ঞযৎবব ফধুং মৎধপব) ব্যান্ডের ওয়ার্ল্ড সো কল্ড (ডড়ৎষফ ংড় পড়ষফ) গানটি। এরপর পর্যায়ক্রমে বাকি গান এবং ব্যান্ডের নাম দেয়া হলো।
ডি-প্রজন্ম প্রতিবেদক