মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
শুক্রবার, ২৫ নভেম্বর ২০১১, ১১ অগ্রহায়ন ১৪১৮
বিকাশগত পার্থক্য নিয়ন্ত্রণে জিন
পৃথিবীতে যত রকমের প্রজাতির অসত্মিত্ব আছে সবাই জিনের তারতম্য ঘটিয়ে ভিন্ন ভিন্ন পথে নিজেদের বিকাশ ঘটাতে সক্ষম। যার কারণে শেষ পর্যন্ত তারা বিভিন্ন আকার, সাইজ, বর্ণ ও সেঙ্ ধারণ করে। জিনের এই যে নমনীয়তা বা পরিবর্তনযোগ্যতা এর জন্যই প্রাণীরা নিজ নিজ পরিবেশে সাফল্যের সঙ্গে চলতে পারে। নতুন এক গবেষণায় দেখা গেছে, সামাজিক কীটপতঙ্গের বিকাশগত পার্থক্য রচনার জন্য যেসব জিন অপরিহার্য সেগুলো প্রাণীর ক্রিয়াকলাপের অন্যান্য দিক নিয়ন্ত্রণকারী জিনগুলোর তুলনায় আরও দ্রুত বিবর্তিত হয়।
সুইজারল্যান্ডের একদল গবেষক পরিচালিত এই সমীৰায় আরও দেখা গেছে যে, আগুনে পিঁপড়া ও মধুমৰিকার ভিন্ন ভিন্ন সেঙ্, জীবনের বিভিন্ন পর্যায় ও জাত সৃষ্টির ৰেত্রে যেসব জিন জড়িত সেগুলো বিকাশের এসব প্রক্রিয়ায় জড়িত না থাকা জিনের তুলনায় আরও দ্রম্নত বিবর্তিত হয়। গবেষকরা আরও লৰ্য করেছেন যে, দ্রুত বিবর্তনশীল এই জিনগুলো কোন প্রাণীর বিভিন্ন রূপ সৃষ্টির কাজে রিক্রুট হবার আগেই বিবর্তনের উচ্চতর হার প্রদর্শন করে থাকে। গবেষণালব্ধ এই তথ্য বিজ্ঞানীদের কাছে সম্পূর্ণ অপ্রত্যাশিতরূপেই দেখা দিয়েছে কারণ বেশিরভাগ মতবাদে বলা হয় যে, প্রাণীর বিভিন্ন রূপ সৃষ্টির কাজে জড়িত জিনগুলো দ্রুত বিবর্তিত হবে সুনির্দিষ্টভাবে এই কারণে যে, এরা বিকাশগত পার্থক্য রচনা করে থাকে। তার পরিবর্তে এই গবেষণায় দেখা গেছে, দ্রম্নত বিবর্তনশীল জিনগুলোর প্রকৃতপৰে আগে থেকেই বিকাশের নতুন নতুন রূপ সৃষ্টির ঝোঁক সম্পন্ন হয়ে থাকে। গবেষণার এই ফলাফল সম্প্রতি প্রসিডিংস অব দ্য ন্যাশনাল একাডেমি অব সায়েন্সেস সাময়িকীতে ছাপা হয়েছে।
সমাজবদ্ধ কীটপতঙ্গের মধ্যে একটা আধুনিক সামাজিক কাঠামো লৰ্য করা যায়। সেখানে রানীরা সনত্মান উৎপাদন করে এবং শ্রমিকরা সনত্মান পরিচর্যা ও কলোনি রৰার কাজে নিয়োজিত থাকে। আগুনে পিঁপড়া সোলেনোপসিস ইনভিকটার বিকাশের বিভিন্ন পর্যায়, সেঙ্ ও জাত ইত্যাদির সঙ্গে সংশিস্নষ্ট জিনের বিবর্তন সম্পর্কে অনুসন্ধান চালিয়ে গবেষকরা নির্ণয় করেছেন কিভাবে সমাজবদ্ধ কীটপতঙ্গ জিনগতভাবে একই রকমের কীটপতঙ্গ থেকে এ জাতীয় ভিন্ন রূপ ও ক্রিয়াকলাপ সৃষ্টি করে থাকে।
বিশেস্নষণ করে দেখা গেছে, অনেক আগুনে পিঁপড়ার জিন সেই পিঁপড়া পুরম্নষ না স্ত্রী, রানী না শ্রমিক এবং শূককীট না পূর্ণবয়স্ক তার ওপর ভিত্তি করে ভিন্ন ভিন্নভাবে নিয়ন্ত্রিত হয়। ভিন্ন ভিন্নভাবে প্রকাশিত এই জিনগুলো বিবর্তনের উচ্চতর হার প্রদর্শন করে থাকে। বিকাশগত পার্থক্য রচনার কাজে জড়িত জিনগুলোর বিবর্তনের ওপর এটাই সবচেয়ে ব্যাপকভিত্তিক সমীৰা ।
সূত্র : এ্যানিমেল সায়েন্স