মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
শুক্রবার, ৩০ ডিসেম্বর ২০১১, ১৬ পৌষ ১৪১৮
চলে গেলেন দোয়েল
সংস্কৃতি ডেস্ক
জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা দোয়েল আর নেই। বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা ২০ মিনিটে ঢাকার ধানমন্ডির ডিফাম হসপিটালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃতু্যকালে তাঁর বয়স হয়েছিলো ৪৫। দোয়েলের পুরো নাম ইফতে আরা ডালিয়া। ১৯৬৫ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর তিনি বিক্রমপুরে জন্মগ্রহণ করেন। দোয়েলের স্বামী সুব্রত জানান, ২০০৯ সালের শেষ দিক দোয়েলের মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হলে তাঁকে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর থেকে তাঁর শারীরিক অবস্থার তেমন কোন উন্নতি হয়নি। সর্বশেষ গত এক মাসে চিকিৎসার জন্য তিনটি হাসপাতাল পরিবর্তন করা হয়। চলতি সপ্তাহের মাঝামাঝি তাঁর শ্বাসকষ্ট বেড়ে গেলে তাঁকে জরুরী ভিত্তিতে বারডেম হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু সেখানে কেবিন খালি না থাকায় তাঁকে ধানমন্ডির একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। কিন্তু সেখানেও তাঁর শারীরিক অবস্থা আরও অবনতি হয়। আর পরিশেষে গতকাল তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন।
বরেণ্য চলচ্চিত্র নির্মাতা চাষী নজরুল ইসলাম পরিচালিত 'চন্দ্রনাথ' ছবিতে অভিনয়ের মধ্যদিয়ে দেশীয় চলচ্চিত্রে নায়িকা হিসেবে দোয়েলের অভিষেক ঘটে। ছবিটিতে তাঁর বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন নায়ক রাজ রাজ্জাক। চিত্রনায়ক সুব্রত দোয়েলের স্বামী। তাদের বিয়ে হয় ১৯৮৮ সালে। জনপ্রিয় ক্ষুদে মডেল তারকা ও চলচ্চিত্রের শিশুশিল্পী দিঘী তাদের কন্যা সনত্মান। তাদের বড় ছেলে অনত্মর। দোয়েল অভিনীত অন্যান্য উলেস্নখ্যযোগ্য ছবি হচ্ছে হিসাব নিকাশ, জিপসী সর্দার, ফয়সালা, সৎ ভাই, প্রেমকাহিনী, তওবা, ওগো বিদেশিনী, আজ তোমার কাল আমার, মার্শাল হিরো, লক্ষী বধূ, বিক্রম, ঘোমটা ইত্যাদি। দোয়েল সর্বশেষ কাজী হায়াৎ পরিচালিত 'কাবুলিওয়ালা' ছবিতে অভিনয় করেন। একই ছবিতে দোয়েলের স্বামী সুব্রত ও তাঁর কন্যা দিঘীও অভিনয় করেন। দোয়েলের কন্যা দিঘী এরইমধ্যে বিজ্ঞাপনচিত্রে মডেল হয়ে ব্যাপক দর্শকপ্রিয় হয়ে উঠেছে। শুধু তাই নয় দিঘী অনেক চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেছে। দিঘীর অভিনয়ে তাঁর মা দোয়েলরই সবচেয়ে বেশি উৎসাহ ছিল। যেখানেই দিঘী সেখানেই ছিল দোয়েলের উপস্থিতি। মেয়েকে নিজের চেয়েও অধিক ভালবাসাতেন তিনি। মায়ের মৃতু্যতে বাকরম্নদ্ধ হয়ে পড়েছে দিঘী। কারো সঙ্গে কোন কথা বলছে না সে। শতাধিক ছবির অভিনেত্রী দোয়েলের মৃতু্যতে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি, চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতি, চলচ্চিত্র প্রযোজক-পরিবেশক সমিতি গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করেছে। সেই সঙ্গে তাঁর বিদেহী আত্নার মাগফেরাত কামনা করেছে। গতকাল দুপুরে পান্থপথস্থ জামে মসজিদে প্রথম নামাজে জানাজা, বাদ আছর এফডিসিতে দ্বিতীয় জানাজা এবং সন্ধ্যায় মিরপুর ২ নম্বর জামে মসজিদে তৃতীয় জানাজার নামাজ শেষে মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হয়।