মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
শনিবার, ১৮ জুন ২০১১, ৪ আষাঢ় ১৪১৮
আ লা প ন ॥ বড় শিল্পী হতে চাই ॥ পুতুল
সম্ভাবনাময়ী সঙ্গীত প্রতিভার একজন পুতুল। যোগ্যতা আর অদম্য আত্মবিশ্বাস যার পুঁজি। ক্লোজআপ ওয়ানের দ্বিতীয় আসর থেকে উঠে আসা সঙ্গীতের এই তারকার সঙ্গে তাঁর সঙ্গীত জীবন নিয়ে কথা বলেছেন গৌতম পাণ্ডে

এত বিষয় থাকতে সঙ্গীত নিয়ে পড়াশোনা করতে গেলেন কেন?
মনেপ্রাণে সঙ্গীত ভালবাসি। সঙ্গীত নিয়েই ক্যারিয়ার গড়তে চাই। ইউওডাতে সঙ্গীত বিষয়ে অনার্সের শেষ বর্ষের ছাত্রী আমি। ভবিষ্যতে একজন বড় সঙ্গীত শিল্পী হতে চাই।
আপনার সঙ্গীত জীবন সম্পর্কে কিছু বলুন।
সঙ্গীতে হাতেখড়ি আমার বড় বোনের কাছে। এর পর ওসত্মাদ সুরেন বর্মণ, ওসত্মাদ আতিকুর রহমানের কাছে তালিম নিয়েছি। বর্তমানে সুজিত মোসত্মফার কাছে সঙ্গীত শিখছি। ছোটবেলা থেকে অনেক পুরস্কার পেয়ে এসেছি। স্কুল-কলেজে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে ১২টি সোনার মেডেল এবং বেশ কিছু ক্রেস্ট পেয়েছি। এছাড়া ক্লোজআপ ওয়ানে দ্বিতীয় আসরে সেরা দশের ষষ্ঠ স্থান অধিকার করেছি।
এবার আপনার এ্যালবামের কথা কিছু বলুন।
আমার সলো এ্যালবাম দু'টি। এবং মিঙ্ড এ্যালবাম তিনটি। আমার প্রথম সলো এ্যালবামের নাম 'সন্ধ্যা বাড়ির বারান্দায়'। এটি প্রকাশিত হয় জি সিরিজের ব্যানারে। আর দ্বিতীয়টি হলো 'মাটির পুতুল'। এটি বের হয় লেজার ভিশন থেকে। মাটির পুতুল এ্যালবামটিতে আমি নিজেই মিউজিক কম্পোজিশন করেছি ও ডিরেকশন দিয়েছি। এটিতে রয়েছে শতবর্ষ প্রাচীন পাঁচটি সংগৃহীত গান। এটিতে ২৫টি এ্যাকুয়াস্টিক বাদ্যযন্ত্র ব্যবহার করা হয়েছে। সেলটিকে ফোক ধাঁচের এই এ্যালবামটি আমাদের দেশে এই প্রথম।
সঙ্গীত নিয়ে আপনার ভবিষ্যত পরিকল্পনা কি?
সঙ্গীতে আমার আদর্শ মৌসুমী ভৌমিক। তিনি যেমন নিজের কথা, সুর ও কম্পোজিশনে নিজেই গান করেন, আমি ও নিজের কথা ও সুর দিয়ে নিজেই কম্পোজিশন করে সঙ্গীত উপহার দিতে চাই। সঙ্গীতে উচ্চতর শিৰা নেয়ার ইচ্ছা আছে। বিশেষ করে ইউএসএ থেকে সঙ্গীত বিষয়ে উচ্চতর ডিগ্রী নিতে চাই।