মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
সোমবার, ১ ডিসেম্বর ২০১৪, ১৭ অগ্রহায়ন ১৪২১
অনুমোদিত মূলধন বাড়াবে ফু-ওয়াং সিরামিক
অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত সিরামিক খাতের কোম্পানি ফু-ওয়াং সিরামিকের পরিচালনা পর্ষদ অনুমোদিত মূলধন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কোম্পানিটি ১০০ কোটি টাকা থেকে ৩০০ কোটি টাকা পর্যন্ত মূলধন বাড়াবে। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
জানা যায়, এ কারণে কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদ অতিরিক্ত সাধারণ সভা (ইজিএম) করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আগামী ২৮ ডিসেম্বর সকাল সাড়ে ৮টায় স্পেক্ট্রা কনভেশন সেন্টার, হাউস ১৯, রোড ৭, গুলশান ১-এ ইজিএম অনুষ্ঠিত হবে।
এদিকে ঋণমানে ফু-ওয়াং সিরামিক ‘বিবিবি২’ হিসেবে বিবেচিত হয়েছে। অর্থাৎ সার্বিকভাবে কোম্পানিটি নেতিবাচক অবস্থায় রয়েছে। কোম্পানিটির ২০১৪ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাব বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন ও সংশ্লিষ্ট অন্যান্য তথ্যের ভিত্তিতে এ মূল্যায়ন করেছে ক্রেডিট রেটিং এজেন্সি অব বাংলাদেশ লিমিটেড (সিআরএবি)।
এদিকে চলতি হিসাব বছরের প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) কোম্পানিটির মুনাফা কমেছে ৩৯ শতাংশ। অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুসারে চলতি হিসাব বছরের জুলাই থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সময়ে কোম্পানিটির কর-পরবর্তী মুনাফা হয়েছে ৯৬ লাখ ৮০ হাজার টাকা ও ইপিএস ১১ পয়সা। তবে আগের হিসাব বছরের একই সময়ে এর মুনাফা ছিল ১ কোটি ৫৮ লাখ ৮০ হাজার টাকা ও ইপিএস ১৯ পয়সা।
বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা যায়, ডিএসইতে বৃহস্পতিবার এ শেয়ারের দর বাড়ে ৩ দশমিক শূন্য ৮ শতাংশ বা ৪০ পয়সা। দিনভর এর দর ১৩ টাকা থেকে ১৩ টাকা ৫০ পয়সার মধ্যে ওঠানামা করে। সর্বশেষ লেনদেন হয় ১৩ টাকা ৪০ পয়সায়; যা সমন্বয় শেষে ১৩ টাকা ৪০ পয়সা ছিল। এদিন ১৩২ বারে এর ১ লাখ ৬৯ হাজার শেয়ার লেনদেন হয়। গত এক মাসে এর সর্বনিম্ন দর ছিল টাকা ১৩ টাকা ও সর্বোচ্চ দর ১৬ টাকা ১০ পয়সা। গত ছয় মাসে এর সর্বনিম্ন দর ১৩ টাকা ও সর্বোচ্চ দর ছিল ১৮ টাকা ২০ পয়সা।
জানা গেছে, কোম্পানিটি ডিজিটাল প্রিন্টিং মেশিন আমদানি করবে। সম্প্রতি এ নিয়ে কোম্পানিটি স্পেনের কোম্পানি ইএফআই ক্রিটাপ্রিন্ট এসএলইউয়ের সঙ্গে একটি চুক্তি করেছে। কোম্পানিটির এ প্রিন্টিং মেশিন আমদানিতে ব্যয় হবে ২ লাখ ৫০ হাজার ইউরো, যা প্রায় ২ কোটি ৫০ লাখ টাকা। সম্প্রতি এজন্য কোম্পানিটি ঋণপত্রও খুলেছে।
২০১৪ সালের ৩০ জুন সামাপ্ত হিসাব বছরের জন্য ১০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে কোম্পানি কর্তৃপক্ষ। এ হিসাব বছরে এর ইপিএস হয়েছে ৪৯ পয়সা ও কর-পরবর্তী মুনাফা ৪ কোটি ১০ লাখ ৯০ হাজার টাকা। ২৮ ডিসেম্বর রাজধানীর স্পেক্ট্রা কনভেনশন সেন্টারে এর এজিএম অনুষ্ঠিত হবে।
২০১৩ সালের জন্য কোম্পানিটির ১০ শতাংশ বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ হিসেবে দেয়া হয়েছে। নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুসারে এ হিসাব বছরে নেট মুনাফা ৫ কোটি ৫০ লাখ ১০ হাজার টাকা ও ইপিএস ৭২ পয়সা। কোম্পানিটি ১৯৯৮ সালে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। বর্তমানে এর ১০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধন ও ৮৪ কোটি ৬০ লাখ টাকা পরিশোধিত মূলধন রয়েছে। এর মোট শেয়ার ৮ কোটি ৪৬ লাখ ১২ হাজার ৩৮৮টি; যার প্রতিটির অভিহিত দর ১০ টাকা ও মার্কেট লট ৫০০টি শেয়ারে। কোম্পানিটির রিজার্ভের পরিমাণ ১১ কোটি ৭৬ লাখ টাকা। মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা-পরিচালক ১৯ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী ২৯ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে ৫২ শতাংশ। সর্বশেষ বার্ষিক প্রতিবেদন ও বাজারদরের ভিত্তিতে এর দর আয় অনুপাত ২০ দশমিক ৬২।