মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
সোমবার, ২৬ আগষ্ট ২০১৩, ১১ ভাদ্র ১৪২০
পুনর্অর্থায়নের প্র্র্রথম কিস্তির অর্থ ছাড়
অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ ইনভেস্টমেন্ট কর্পোরেশন অব বাংলাদেশের (আইসিবি) আবেদনের পরিপ্র্রেক্ষিতে পুনর্অর্থায়নের তহবিলের অর্থ ছাড় করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। সোম অথবা মঙ্গলবার আইসিবির এ্যাকাউন্টে এ অর্থ জমা হতে পারে বলে আইসিবি সূত্রে জানা গেছে। রবিবার দুপুরে আইসিবি পুনর্অর্থায়ন তহবিলের প্রথম কিস্তির ৩০০ কোটি টাকার জন্য আবেদন করলে কেন্দ্রীয় ব্যাংক তা মঞ্জুর করে।
এর আগে গত বৃহস্পতিবার ক্ষুদ্র বিনিয়োকারীদের জন্য পুনর্অর্থায়ন তহবিল ছাড় বিষয়ক সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) স্বাক্ষরিত হয়। বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় বাংলাদেশ ব্যাংকের কনফারেন্স রুমে কেন্দ্রীয় ব্যাংক, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) এবং ইনভেস্টমেন্ট কর্পোরেশন অব বাংলাদেশের (আইসিবি) মধ্যে ত্রিপক্ষীয় সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়।
জানা যায়, ২০০৯ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ২০১১ সালের ৩০ নবেম্বর পর্যন্ত যেসব ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারী ১০ লাখ টাকার নিচে বিনিয়োগ করে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন শুধু তারাই পুনর্অর্থায়ন তহবিল থেকে ঋণ সুবিধা পাবেন। এর আগে গত বুধবার বাংলাদেশ ব্যাংক তহবিলের উৎসদাতা হিসেবে সমঝোতা চুক্তির খসড়া চূড়ান্ত করে।
বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক সাইফুর রহমান, আইসিবির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোঃ ফায়েকুজ্জামান এবং কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক এসএম মনিরুজ্জামান চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।
সূত্র জানায়, তিন বছর মেয়াদী এ তহবিলে ৩০০ কোটি করে মোট ৯০০ কোটি টাকা ছাড় করবে অর্থ বিভাগ। নীতিমালা অনুযায়ী তহবিলের মেয়াদ কার্যকর থাকবে ২০১৬ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত।
ক্ষতিগ্রস্ত ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীরা ৯ শতাংশ সুদে মার্চেন্ট ব্যাংক ও ব্রোকারহাউজ থেকে ঋণ পাবেন। এ ঋণ আইসিবি থেকে মার্চেন্ট ব্যাংক ও ব্রোকারহাউজগুলো পাবে ৭ শতাংশ সুদে। আর সরকার আইসিবিকে তা দিচ্ছে ৫ শতাংশ সরল সুদে।