মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৩, ৬ কার্তিক ১৪২০
রূপগঞ্জে প্রশাসনের বাধায় বিএনপি-আ’লীগের পাল্টাপাল্টি সভা পণ্ড
বিক্ষোভ, বিএনপি কর্মীদের বাড়িতে হামলা
নিজস্ব সংবাদদাতা, রূপগঞ্জ, ২০ অক্টোবর ॥ রূপগঞ্জে প্রশাসন ও পুলিশী বাধার মুখে উপজেলা বিএনপি ও আওয়ামী লীগের পাল্টাপাল্টি সভা পণ্ড হয়েছে। রবিবার বিকেলে দাউদপুর ইউনিয়নের দেবই সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে ইউনিয়ন বিএনপির উদ্যোগে আয়োজিত সভার আয়োজন করে বিএনপি। বিএনপির সভা পূর্বঘোষিত হলেও রবিবার দুপুরে হঠাৎ করেই স্থানীয় আওয়ামী লীগ পার্শ্ববর্তী দেবই মাদ্রাসা মাঠে আরেকটি সভা ডাকে। এ খবর শুনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দেবই ও আশেপাশের এলাকায় সভা না করার নির্দেশ প্রদান করে। বিকেলে বিএনপির নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে সভাস্থলে আসলেও পুলিশি বাধার মুখে তাদের সভা পণ্ড করে দেয়া হয়। পরে বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল বের করে বেলদী বাজার এলাকায় এক পথসভার আয়োজন করে। এ সময় গোটা এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। সভা প-র সংবাদ এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে ছাত্রদল ও যুবদলের নেতাকর্মীরা বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ করেছে। বিক্ষোভ মিছিলে অংশ নেয়ায় বিরাব এলাকায় ৫ বিএনপি কর্মীর বাড়িতে হামলা ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে। এ সময় ৩ জনকে পিটিয়ে আহত করে আওয়ামী লীগের লোকেরা।
স্থানীয় প্রশাসন, বিএনপি ও আওয়ামী লীগ সূত্র জানায়, রবিবার বিকেল ৩টায় দেবই সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দাউদপুর ইউনিয়ন বিএনপির উদ্যোগে কর্মীসভার আয়োজন করা হয়। উপজেলা বিএনপির সম্পাদক এ্যাডভোকেট হুমায়ন এ সভার জন্য স্কুল কর্তৃপক্ষের কাছে থেকে কয়েকদিন পূর্বে অনুমতি নেন। রবিবার সকালে স্থানীয় আওয়ামী লীগের সভাপতি আফাজ খান ২০ দূরত্বে পার্শ¦বর্তী দেবই মাদ্রাসা মাঠে কর্মীসভা ডাকে। বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির আশঙ্কায় উপজেলা বিএনপির পক্ষ থেকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অনুমতি চাইতে গেলে তিনি সভা না করার নির্দেশ প্রদান করেন। বিকেলে বিএনপির নেতাকর্র্মীরা সভাস্থলে মিছিল নিয়ে গেলে পুলিশ তাদের বাধা দেয়। একপর্যায়ে পুলিশ বাধা দিয়ে সভা প- করে দেয়। পরে বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে বেলদী বাজার এলাকায় এক পথসভার আয়োজন করে। এ্যাডভোকেট হুমায়ন দাবি করেন বিএনপির সভা প- করতেই এ কৌশল বেছে নিয়েছে আওয়ামী লীগ। আফাজ খান বলেন, আমরা সাংগঠনিক তৎপরতা বৃদ্ধির জন্য বর্ধিত সভার আয়োজন করি। প্রশাসন না করায় আমরা আর ঘটনাস্থলে যাইনি। বিএনপি আয়োজিত পথসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা বিএনপির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান মনির। প্রশাসনের বাধার মুখে বিএনপির সভা প- হয়েছে এমন সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে কাঞ্চন, বিরাবসহ বিভিন্ন এলাকায় ছাত্র ও যুবদলের নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল বের করে। বিক্ষোভ মিছিলে অংশ নেয়ায় বিরাব এলাকার বিএনপি কর্মী উজ্জ্বল, আজিজুল, মোজাম্মেল, জোবেদ আলী ও ফারুকের বাড়িতে হামলা চালিয়েছে স্থানীয় আওয়ামী লীগের লোকেরা। এ সময় ব্যাপক ভাংচুর, লুটপাটসহ উজ্জ্বল, আজিজুল ও মোজাম্মেলকে পিটিয়ে আহত করে।
কর্মীসভা প- করার ঘটনায় নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী মনির বলেন, প্রশাসন যা করেছে তা রীতিমতো ন্যাক্কারজনক। ফ্যাসিবাদী আওয়ামী লীগের দালাল হয়ে পুলিশ-প্রশাসন কাজ করছে। পুলিশ ভাইদের বলব আওয়ামী লীগের চামচামি ছেড়ে দিন। তাদের সময় শেষ হয়ে গেছে। আর বিএনপি কর্মীদের বাড়িঘরে হামলার ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি।
থানার অফিসার ইনচার্জ আসাদুজ্জামান মীর বলেন, বিশৃঙ্খলা এড়ানোর দায়ে সভা নিষেধ করা হয়েছে। শুধু বিএনপি নয় আওয়ামী লীগকেও নিষেধ করা হয়েছে।
রূপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু জাফর রাশেদ বলেন, একই এলাকায় উভয় দল সভা আহ্বান করায় সংঘাতময় পরিস্থিতি এড়াতে তাদের উভয়কে চিঠি দিয়ে সভা না করার জন্য বলা হয়েছে। তবে উভয় পক্ষ ঘটনাস্থল ত্যাগ করায় ১৪৪ ধারা জারি করতে হয়নি।