মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৩, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২০
আগামী মাসেই কনোকো ও ওএনজিসির সঙ্গে পেট্রোবাংলার চুক্তি
অগভীর সমুদ্রে তেল গ্যাস অনুসন্ধান
স্টাফ রিপোর্টার ॥ অগভীর সমুদ্রে তেল গ্যাস অনুসন্ধানে আগামী মাসেই মার্কিন কোম্পানি কনোকো-ফিলিপস ও ভারতের রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান অয়েল এ্যান্ড ন্যাচারাল গ্যাস কর্পোরেশন (ওএনজিসি) সঙ্গে চুক্তি করতে যাচ্ছে পেট্রোবাংলা। প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনের জন্য আজ-কালের মধ্যে এ-সংক্রান্ত নথি প্রেরণ করা হবে। একই দিন বিকেলে জ্বালানি বিভাগে এক বৈঠকে চুক্তির আনুষাঙ্গিক প্রক্রিয়া শেষ করতে পেট্রোবাংলাকে নির্দেশ দিয়েছে মন্ত্রণালয়।
বৈঠক সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রীর জ্বালানিবিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-এলাহীর এক প্রশ্নের জবাবে পেট্রোবাংলা বলছে আগামী জানুয়ারির মধ্যে দ্বিমাত্রিক জরিপ শেষ হলে আগামী বছর সেপ্টেম্বর বা অক্টোবরে অনুসন্ধান কূপ খনন করা সম্ভব হবে। বৈঠকে উপদেষ্টা দ্রুত চুক্তি করতে সকল প্রক্রিয়া শেষ করার নির্দেশ দেন।
জ্বালানি বিভাগ সূত্র জানায়, বিষয়টিতে সরকারের পক্ষ থেকে সর্বাধিক গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে। পেট্রোবাংলার প্রস্তাবটি প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনের জন্য প্রেরণ করা হয়েছে। আশা করা হচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনের পর পরই আগ্রহী কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি সম্পাদন করা যাবে। সবমিলিয়ে আগামী মাসেই চুক্তি করা সম্ভব বলে মনে করছেন কর্মকর্তারা।
পেট্রোবাংলা সূত্র জানায়, অগভীর সমুদ্রের সাত নম্বর ব্লকে অনুসন্ধানের আগ্রহ প্রকাশ করেছে কনোকো। প্রস্তাবে কনোকো জানায়, দুই হাজার ৩৫০ বর্গকিলোমিটার এলাকায় দ্বিমাত্রিক ভূকম্পন জরিপ পরিচালনা করা হবে। এরপর দ্বিতীয় পর্যায়ে ৫০০ কিলোমিটার এলাকায় চালানো হবে ত্রিমাত্রিক ভূকম্পন জরিপ। এছাড়া একটি অনুসন্ধান কূপ খননের কথাও জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। এতে কোম্পানিটি চার কোটি ডলার ব্যয় করবে। কনোকো ফিলিপস আগে থেকেই গভীর সমুদ্রে ১০ এবং ১১ নম্বর ব্লকে কাজ করছে। কোম্পানিটি দ্বিমাত্রিক জরিপকাজ শেষ করেছে। যদিও পেট্রোবাংলা অথবা কনোকো কেউই জরিপের ফলাফল জানায়নি।
অন্যদিকে ভারতের ওএনজিসি ৪ ও ৯ নম্বর ব্লকের তেল গ্যাস অনুসন্ধান উত্তোলনের আগ্রহ প্রকাশ করেছে। চার নম্বর ব্লকে দুই হাজার ৭০০ কিলোমিটার এলাকায় দ্বিমাত্রিক ভূকম্পন জরিপ এবং ২০০ কিলোমিটার এলাকায় ত্রিমাত্রিক ভূকম্পন জরিপ চালাবে তারা। দুটি অনুসন্ধান কূপ খননসহ এ প্রকল্পে তারা পাঁচ কোটি ৮০ লাখ ডলার ব্যয় করার প্রস্তাব দিয়েছে। একইভাবে নয় নম্বর ব্লকে দুই হাজার ৮৫০ কিলোমিটার এলাকায় দ্বিমাত্রিক ভূকম্পন জরিপ ও ৩০০ কিলোমিটার এলাকায় ত্রিমাত্রিক ভূকম্পন জরিপ পরিচালনা করবে ওএনজিসি। দুই পর্যায়ে মোট তিনটি অনুসন্ধান কূপ খননসহ এ কাজে সাড়ে আট কোটি ডলার ব্যয় করবে প্রতিষ্ঠানটি।
সমুদ্রে তেল গ্যাস অনুসন্ধানের ক্ষেত্রে রফতানি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। অগভীর সমুদ্রে প্রতি ইউনিট গ্যাসের দাম পড়বে সাড়ে তিন ডলার। পেট্রোবাংলা কোম্পানির লভ্যাংশের গ্যাস কিনতে না চাইলে দেশের মধ্যে তৃতীয়পক্ষের কাছে বিক্রি করা যাবে।