মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০১১, ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪১৮
মির্জা আব্বাস, ব্যানা হুদাসহ শতাধিক নেতার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা
খালেদা জিয়া দেশে ফিরলেই কার্যকর
শরীফুল ইসলাম ॥ বিএনপিতে উচ্ছৃঙ্খল নেতাকর্মীদের তালিকা হচ্ছে। সূত্র মতে দ্বন্দ্ব-কোন্দল নিরসনসহ দলের ভেঙ্গে পড়া শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে সংশিস্নষ্টদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিতেই হাইকমান্ডের নির্দেশে এই তালিকা করা হচ্ছে। প্রাথমিক তালিকায় ইতোমধ্যেই শতাধিক নেতাকর্মীর নাম উঠে এসেছে। এর মধ্যে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য থেকে সাধারণ কর্মীর নামও রয়েছে বলে জানা গেছে।
প্রাপ্ত তথ্য মতে, দলে আধিপত্য বিস্তার করতে গিয়ে দ্বন্দ্ব-সংঘাতে লিপ্ত হওয়া, সভাসমাবেশে বসার স্থান নিয়ে ঝামেলা সৃষ্টি করা, মঞ্চে বসার যোগ্য নেতা না হওয়া সত্ত্বেও আসন দখল করে বসে থাকা, বেফাঁস কথা বলে দলকে বেকায়দায় ফেলা, মঞ্চে বক্তব্য দিয়ে দলীয় কর্মীদের প্রতিপৰ নেতার বিরম্নদ্ধে উস্কে দেয়া এবং চেন অব কমান্ড না মানা নেতাকর্মীদের বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারী হিসেবে চিহ্নিত করে তাদের নাম তালিকাভুক্ত করা হচ্ছে।
সংশিস্নষ্ট সূত্র থেকে প্রাপ্ত তথ্য মতে, বিএনপিতে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীদের মধ্যে প্রাথমিক তালিকায় যাদের নাম উঠে এসেছে তাদের মধ্যে স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসও রয়েছেন। বিভিন্ন সভাসমাবেশে প্রকাশ্যে উস্কানিমূলক বক্তব্য দিয়ে নিজের পৰের নেতাকর্মীদের প্রতিপৰ নেতার বিরম্নদ্ধে লেলিয়ে দেয়ায় তাঁর নাম এই তালিকায় উঠে এসেছে। দলের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ও বর্তমানে প্রাথমিক সদস্য ব্যারিস্টার নাজমুল হুদার নাম উঠে এসেছে বেফাস কথা বলে দলকে বেকায়দায় ফেলানোর দায়ে। সাংগঠনিক সম্পাদক মজিবুর রহমান সারোয়ারের নাম উঠে এসেছে আধিপত্য বিসত্মার করতে দলের প্রতিপৰ নেতাকে হুমকি ও ক্যাডারবাহিনী দিয়ে হামলা করার দায়ে। এ তালিকায় উলেস্নখযোগ্য আরও যাঁদের নাম রয়েছে তাঁরা হলেন_ বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য ও স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক মীর শরাফত আলী সপু, যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল আলম নীরব, মহিলা দল নেত্রী ও সাবেক সংসদ সদস্য সাইমুন বেগম, কমিশনার মর্জিনা বেগম, ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক আনিসুর রহমান খোকন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক ওবায়দুল হক নাসির, সাবেক মহাসচিব খোন্দকার দেলোয়ার হোসেনের ছেলে আখতার হামিদ পবন, রমনা থানা বিএনপি নেতা আবদুল হান্নান, ডেমরা থানা বিএনপি নেতা নবীউলস্নাহ নবী প্রমুখ।
এ ব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু জনকণ্ঠকে বলেন, কোন অবস্থাতেই আর কাউকে দলে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে দেয়া হবে না। আমরা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীদের চিহ্নিত করা শুরম্ন করেছি। তাদের বিরম্নদ্ধে কঠোর শাসত্মির ব্যবস্থা করা হবে। তিনি বলেন, ৯ মে বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশে যারা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করেছে মূলত তাদের খুঁজে বের করার করার জন্য আমাকে এক সদস্যবিশিষ্ট তদনত্ম কমিটির দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। টিভি ফুটেজ দেখে প্রায় ২০ জনকে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে দেখা গেছে। এর মধ্যে আমাদের দলের ৫ থেকে ৬ জনকে চিনতে পেরেছি। এ ঘটনায় দায়ীদের ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য ইতোমধ্যেই বিএনপি চেয়ারপার্সনের কাছে রিপোর্ট দিয়েছি। আশা করছি যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র সফর শেষে দেশে ফিরে এসে শীঘ্রই তিনি এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেবেন।