মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
বুধবার, ১৩ মার্চ ২০১৩, ২৯ ফাল্গুন ১৪১৯
বাংলাদেশ-জাপান সমকালীন চিত্রকলা উৎসব শিল্পকলায়
সংস্কৃতি সংবাদ
স্টাফ রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ ও জাপানের সম্মিলিত শিল্প গোষ্ঠী পরিচালিত প্রতিষ্ঠান কাহাল আর্ট গ্রুপ। বিশ্বব্যাপী তরুণ শিল্পীদের চিত্রকল্পকে দর্শকের সামনে উপস্থাপন করাই এ প্রতিষ্ঠানের প্রধান অভিপ্রায়। সেই লক্ষ্যে ফেব্রুয়ারি মাসে প্রতিষ্ঠানটি সারা দেশের তরুণ শিল্পীদের কাছ থেকে চিত্রকর্ম সংগ্রহ করে। একইসঙ্গে জাপানের তরুণ শিল্পীদের শিল্পকর্মও সংগ্রহ করা হয়। সংগৃহীত চিত্রকর্ম থেকে বাছাইকৃত ছবি নিয়ে অনুষ্ঠিত হয় প্রতিযোগিতা। আর সেই প্রতিযোগিতায় জমা পড়া ছবি নিয়ে ৮ মার্চ থেকে শিল্পকলা একাডেমীর জাতীয় চিত্রশালায় চলছে প্রদর্শনী। বাংলাদেশ-জাপান সমকালীন চিত্রকলা উৎসব হিসেবে পরিচিত এ প্রদর্শনীর শিরোনাম চিন্তার স্বাধীনতা। বাংলাদেশের ১৩৯ ও জাপানের এগারো শিল্পীর আঁকা ২২২টি চিত্রকর্ম উপস্থাপিত হয়েছে প্রদর্শনীতে।
চিত্রশালার দোতলায় চলছে এই প্রদর্শনী। উপস্থাপিত হয়েছে নানা মাধ্যমে সৃজিত হরেক রকম বিষয়ের শিল্পকর্ম। বিপুল সংখ্যক শিল্পকর্মের উপস্থিতিতে প্রদর্শনীটি পেয়েছে বিশেষ মাত্রা। শিল্পকর্মের বিষয় বৈভব সহজেই শিল্পপিপাসুর মন রাঙিয়ে দেয়। প্রদর্শনালয়ে ঢুকতেই নজর কেড়ে নেয় বাঙালী বধূ শিরোনামের কাজটি। তেলরংয়ে ছবিটি এঁকেছেন কামরুল হাসান লিপু। রঙিলা ক্যানভাসজুড়ে ছড়িয়ে দেয়া হয়েছে নানা লোকজ মোটিভ। চিত্রপটের মাঝখানে আবির্ভূত হয়েছে ঘোমটা টানা লাজনম্র তিন বাঙালী বধূ। এ্যাক্রিলিক মাধ্যমে আমাদের সময়ের আদিবাসী নারী শীর্ষক চিত্রকর্ম সৃজন করেছেন চারু পিন্টু। ছবিতে উঠে এসেছে আদিবাসীদের অস্তিত্ব সংকটের দৃশ্যকল্প। চারপাশের নানা প্রতিবন্ধকতার আগ্রাসনে বিপর্যস্ত এক আদিবাসী রমণী। মুখাবয়বে আতংকের ছাপ। আশরাফুল হাসানের আহত প্রকৃতি শিরোনামের চিত্রকর্মে পাওয়া যায় প্রকৃতিবিনাশী কর্মকা-ের প্রতিবাদী বার্তা। এ্যাক্রিলিক মাধ্যমে চিত্রিত চিত্রকর্মে বৃক্ষের অবয়বে উপস্থাপিত হয়েছে মানবের শরীর। বিপন্ন প্রকৃতির প্রতীক হিসেবে সেই শরীরে চির ধরেছে। চির ধরা শরীরের মাঝখান থেকে বেরিয়ে আসছে রক্তস্রোত। জলরংয়ে বসন্তের ছবি এঁকেছেন মোঃ রাজন। ক্যানভাসে সবুজ পাতার ফাঁক গলে বেরিয়েছে একগুচ্ছ গাঁদা ফুল। চিত্রপটে নীল আর সবুজ রং ছড়িয়ে প্রকৃত ভালবাসা শিরোনামের ছবি এঁকেছেন নাফিসা অনন্যা। মনন গাথা শিরোনামে গোপাল চন্দ্র সাহার সিরিজ ছবিতে আছে মুগ্ধতার ছোঁয়া। জলরংয়ে আঁকা ছবিতে উপস্থাপিত হয়েছে নারীর রূপময়তা। একটি চিত্রকর্মে হাল্কা নীল রংয়ের ছোঁয়ায় চমৎকারভাবে উপস্থাপিত হয়েছে বিবসনা তিন রমণী। এর মধ্যে একজন ঘুমিয়ে আছে। আর বাকি দুই নারী ব্যস্ত কেশ বিন্যাস ও রূপ চর্চায়। সম্প্রতি ঘটে যাওয়া বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের হামলাকে ক্যানভাসে মেলে ধরেছেন লুমি বড়ুয়া। অন্ধকার আকাশে অগ্নিশিখা শিরোনামের ছবিতে আছে বৌদ্ধদের ওপর মানুষরূপী বর্বরদের অযাচিত ও অনৈতিক আক্রমণের বীভৎসতার দৃশ্যকল্প। চিত্রপটের চারপাশে ছড়িয়ে পড়েছে আগুনের লেলিহান শিখা। তীব্র তাপ দহনে পুড়ছে গৌতম বুদ্ধের প্রতিমা। আর ক্যানভাসের নিচে দৃশমান ঘটনার সংঘটক সাম্প্রদায়িক ও বর্বর কিছু মানুষের বিকৃত মুখাবয়ব। তেলরংয়ে আঁকা বুদ্ধিবৃত্তিক দ্বন্দ্বের যাতনা শীর্ষক পারভেজ হাসানের চিত্রকর্মে দৃশ্যমান দু’জন মানুষ। চিন্তার প্রকাশকে থামিয়ে দিতে একজন অপরজনের গলা চেপে ধরেছে। শৈশব ও বাস্তবতা শীর্ষক সিরিজ ছবি এঁকেছেন জয়ন্ত সরকার। উঠে এসেছে রাস্তার ধারে প্রান্তিক শিশুদের কানামাছি খেলার দৃশ্য। এছাড়াও প্রদর্শনীর বেদনার্ত মুহূর্ত, বসন্তের চুম্বন, সম্পর্ক, বুদ্ধিবৃত্তিক দ্বন্দ্বের যাতনা, তিন নারীর নৃত্য, প্রকৃতি, সভ্যতার সংকট, বাংলার সৌন্দর্য, ধ্বংসাত্মক মানবতা শিরোনামের শিল্পকর্মগুলোতে পাওয়া যায় ভালো লাগার আবেশ।
আট দিনের এ প্রদর্শনী শেষ হবে শুক্রবার। সকাল ১১টা থেকে সন্ধ্যা সাতটা পর্যন্ত খোলা থাকবে।
আর্ট ডিরেক্টরি অব বাংলাদেশ ॥ বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর উদ্যোগে সারা দেশে শিল্প-সংস্কৃতির বিভিন্ন শাখার শিল্পী, সাংস্কৃতিক সংগঠন ও সাংস্কৃতিক বৈশিষ্ট্যের তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। একাডেমী ডিজিটাল প্রযুক্তিতে সংস্কৃতির ভৌত সুবিধাদি সন্নিবেশকরণ শীর্ষক কর্মসূচীর আওতায় সারা দেশের শিল্পী ও সাংস্কৃতিক সংগঠনসমূহের তালিকা, বিশিষ্ট শিল্পী ও জাতীয় ব্যক্তিত্বদের তালিকা এবং সাংস্কৃতিক বৈশিষ্ট্যপূর্ণ ঐতিহ্যের তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করে ‘আর্ট ডিরেক্টরি অব বাংলাদেশ’ প্রকাশ করার উদ্যোগ নিয়েছে। দেশের ৬৪ জেলার শিল্পকলা একাডেমী /জেলা প্রশাসক, উপজেলা শিল্পকলা একাডেমীর সহযোগিতায় এসব তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ এবং তালিকা প্রস্তুত করে ঢাকার সেগুনবাগিচার বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীতে পাঠাবে।