মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
বৃহস্পতিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১১, ১ পৌষ ১৪১৮
মুক্তিপণ দাবিতে সুন্দরবনে ১০ জেলেসহ ট্রলার অপহরণ
মুকুল বাহিনীর হামলা
নিজস্ব সংবাদদাতা, বাগেরহাট, ১৪ ডিসেম্বর ॥ সুন্দরবনে জেলে ট্রলারে বনদস্যু মুকুল বাহিনী হামলা করে লুটপাটের পর মুক্তিপণের দাবিতে ১০ জেলেসহ একটি ট্রলার অপহরণ করেছে। বুধবার বিকেলে বনদসু্য মুকুল বাহিনীর সদস্যরা সুন্দরবনের গহীনে কালিরখাল এলাকায় জেলে ট্রলারে হামলা করে ডাকাতির পর অস্ত্রের মুখে তাদের অপহরণ করে নিয়ে যায়। অপহৃত জেলেদের অধিকাংশের বাড়ি সাতক্ষীরা জেলায় বলে জানা গেছে। বুধবার সন্ধ্যার দিকে সাগর থেকে ফিরে আসা জেলে ও কোস্টগার্ড সূত্রে এ কথা জানা গেছে। কোস্টগার্ড মংরাস্থ পশ্চিম জোনের সদস্যরা জেলেদের সূত্রে খবর পেয়ে অপহৃত জেলেদের উদ্ধারে অভিযান শুরম্ন করেছে।
ফিরে আসা জেলেরা জানান, বুধবার ভোর রাতে শরণখোলা এলাকার সহিদুল মেম্বারের একটি ট্রলারে ১৫ জন জেলে পূর্ব সুন্দরবনের কালিরখালে মাছ ধরতে যায়। এ সময় এই এলাকা নিয়ন্ত্রণকারী বনদসু্য মুকুল বাহিনীর সদস্যরা তাদের ট্রলারে হামলা করে সর্বস্ব লুটপাটের পর ২ লাখ টাকা মুক্তিপণের দাবিতে ওই ট্রলারসহ ১০ জেলেকে আপহরণ করে নিয়ে যায়। মুকুল বাহিনীর সশস্ত্র সদস্যরা জেলেদের ওপর নির্মম নির্যাতন চালায়। আগামী ৩ দিনের মধ্যে দসু্যদের চাহিদা মতো চাঁদা পরিশোধে ব্যর্থ হলে জেলেদের হত্যা করা হবে বলে ওই বনদসু্যরা হুমকি দিয়েছে বলে অপহরণের শিকার জেলেরা অন্যদের জানিয়েছে। অপহৃত জেলেদের অধিকাংশের বাড়ি সাতক্ষীরা জেলায় বলে জানা গেছে। মংলা কোস্টগার্ড অপারেশন অফিসার মোঃ হাসানুজ্জামান জানান, তাঁরা জেলে ট্রলারে হামলা ও জেলেদের অপহরণের খবর শুনেছেন। তাঁরা ফিরে আসা জেলেদের নিকট থেকে খবর পেয়ে অপহৃত জেলেদের উদ্ধার করতে কোস্টগার্ডের একটি দল রাত থেকে অপরেশন শুরম্ন করেছেন। সুন্দরবন পূর্ব বিভাগের ডিএফও মিহির কুমার দো জানান, তাঁরা সুন্দরবনে জেলে ট্রলারসহ ১০ জেলেকে অপহরণের কথা শুনেছেন। বিষয়টি কোস্টগার্ডকে জানানো হয়েছে। তবে এলাকাটি দুর্গম হওয়ায় তিনি বিসত্মারিত কিছু জানাতে পারেননি।