মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
বুধবার, ২৩ নভেম্বর ২০১১, ৯ অগ্রহায়ন ১৪১৮
ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত শান্তিপূর্ণ দক্ষিণ এশিয়া গড়ার প্রত্যয়
'ঢাকা ঘোষণা'র মধ্য দিয়ে ৫ দিনের বর্ণাঢ্য আয়োজন সমাপ্ত
বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার ॥ অন্যরকম দৰিণ এশিয়া গড়ার অঙ্গীকার ও 'ঢাকা ঘোষণা'র মধ্য দিয়ে শেষ হলো দক্ষিণ এশিয়া সোশ্যাল ফোরামের পাঁচ দিনের বর্ণাঢ্য অয়োজন। পাঁচ দিনের বিশাল বর্ণাঢ্য আয়োজনে দৰিণ এশিয়ার জন্য সাম্যভিত্তিক, ৰুধা-দারিদ্র্যমুক্ত, শোষণ-নিপীড়ন ও শান্তিপূর্ণ একটি অঞ্চল করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন সম্মেলনে অংশ নেয়া দেশের প্রতিনিধিরা।
শহীদ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের 'স্বাধীনতা সত্মম্ভে' সমাপনী অনুষ্ঠানে মঙ্গলবার বিকেলে দেশী-বিদেশী প্রতিনিধি ও দৰিণ এশিয়ার মানবাধিকার নেতৃবৃন্দ ও বিভিন্ন পেশাজীবী মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে এই প্রত্যয়ের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করেন। আনুষ্ঠানিক 'ঢাকা ঘোষণা' পাঠ করেন ওয়ার্ল্ড সোশ্যাল ফোরাম প্রতিনিধি অমিত সেন । ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও দৰিণ এশিয়া সোশ্যাল ফোরাম ২০১১ (এসএএস এফ) যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত এই সমাপনী অধিবেশনে উপস্থিত ছিলেন ঢাবি উপাচার্য ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, পিকেএসএফের চেয়ারম্যান ড. কাজী খলীকুজ্জমান, পাকিস্তানের ফারুক তারিক, ফিলিপিন্সের লিডি ন্যাকপিল, ব্রাজিলের চিকো হোয়াই টেকার, পাকিস্তানের শাকিলা নাজ, নেপালের ড. কেশব খাড়কা, ফিলিস্তিনের আহমদ জারদার, ভারতের বিনোদ রায়না, ইরাকের ইসমাইল দাউদ, ঢাবি ফার্মেসি অনুষদের ভারপ্রাপ্ত ডিন এ.বি.এম ফারুক ও ভারতের অমিত সেন।
পাঁচ দিনের বর্ণাঢ্য এ আয়োজনে ছিল ১৩টি পেস্ননারি, অর্ধশতাধিক সেমিনার, সিম্পোজিয়াম, কর্মশালা, মেলা, যুব ফোরাম শোভাযাত্রা, গান, পথনাটক, চিত্র ও চলচ্চিত্র প্রদর্শনী। বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে ভাঙল পাঁচ দিনের এ আন্তর্জাতিক মানবাধিকার কর্মী, উন্নয়নকর্মী, রাজনীতিবিদ, শিক্ষাবিদ, অর্থনীতিবিদ, সমাজতাত্তি্বক, পেশাজীবী ও শিক্ষার্থীদের মিলনমেলা।
এর আগে সমাপনী দিনের সকালে সিনেট ভবন মিলনায়তনে 'অভিন্ন পানি বণ্টন, আঞ্চলিক সহযোগিতা ও সাম্যতা' শীর্ষক পেস্ননারি অনুষ্ঠিত হয়। মুহাম্মদ হিলালউদ্দিনের সঞ্চালনা ও অর্থনীতিবিদ কাজী খলীকুজ্জমানের সভাপতিত্বে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন একেএম মাসুদ আলী। প্রবন্ধে তিনি প্রকৃতি প্রদত্ত পানির বাণিজ্যিকীকরণের সমালোচনা করেন এবং পানির ওপর ন্যায্য অধিকার নিশ্চিত করতে আঞ্চলিক সহযোগিতামূলক মনোভাবের ওপর জোর দেন। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন পররাষ্ট্র সচিব মিজারম্নল কায়েস, ভারতের কুলদীপ নায়ার, এ্যাকশন এইডের সমীর দোসানী, নেপালের পানি বিশেষজ্ঞ দিনুমনি পোখরেল, সামসুল হুদা, নিউজিল্যান্ডের ডগলাস হিল প্রমুখ ।
সমাপনী অধিবেশন শেষে সব শ্রেণীর মানুষ, অংশগ্রহণকারী ও দেশী-বিদেশী প্রতিনিধিরা মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন। প্রসঙ্গত, আগামী ২৩ থেকে ২৫ নবেম্বর পর্যনত্ম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনে চলবে ওয়ার্ল্ড সোশ্যাল ফোরামের ইন্টারন্যাশন্যাল কাউন্সিল। অন্য রকম দৰিণ এশিয়া গড়ার প্রত্যয়ে অনুষ্ঠিত দৰিণ এশিয়া সোশ্যাল ফোরামে সাধারণ, প্রানত্মিক, সকল প্রকার সংখ্যালঘু ও সর্বোপরি নারী উন্নয়ন ও বৈষম্য রোধে সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী মঞ্চ গড়ার আহ্বান জানানো হয়।