মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
সোমবার, ১৬ মে ২০১১, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪১৮
সিরাজগঞ্জ আদালত থেকে ৬ বিএনপি নেতার জামিন লাভ
ট্রেনে অগ্নিসংযোগ মামলা
স্টাফ রিপোর্টার, সিরাজগঞ্জ ॥ বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশারাফ হোসেন ব্রিগেডিয়ার আ স ম হান্নান শাহ, যুগ্মমহাসচিব আমানউলস্নাহ আমান, বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ও জেলা বিএনপির সভাপতি ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু ছাত্রদল কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, সাধারণ সম্পাদক আমীরম্নল ইসলাম খান আলীম রবিবার দুপুরে সিরাজগঞ্জের চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে উপস্থিত হয়ে ট্রেনে অগি্নসংযোগ ও ভাংচুরের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় হাইকোর্ট থেকে অগ্রিম জামিন নিয়ে বেলবন্ড জমা দিয়ে জামিন নিয়েছেন। এর আগে তাঁরা ৬ মাসের অন্তর্বর্তীকালীন জামিনে ছিলেন। এবার হাইকোর্টের ৪ মাসের অগ্রিম জামিনের আদেশে সিরাজগঞ্জে জামিন পেলেন। ২০১০ সালের ১১ অক্টোবর বেগম খালেদা জিয়া সিরাজগঞ্জের সয়দাবাদে জনসভাস্থলে ট্রেনে অগি্নসংযোগ, ভাংচুরের ঘটনায় এপিপি এ্যাডভোকেট গোলাম হায়দার বিএনপির স্থায়ী কমিটির তিন সদস্যসহ কেন্দ্রীয় ৮ নেতার বিরম্নদ্ধে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানায় মামলা দায়ের করেছিলেন। সেই মামলায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরম্নল ইসলামসহ ২ জন এখনও জামিনে রয়েছেন।
আদালতে জামিন নিয়ে সাংবাদিকদের কাছে প্রতিক্রিয়ায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশারাফ হোসেন বলেছেন, বর্তমান সরকার দেশকে একটি বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির দিকে ঠেলে দিচ্ছে। দ্রব্যমূল্যের উর্ধগতি, আইনশৃঙ্খলা, মানবাধিকার, সীমানত্ম সর্ব ক্ষেত্রে এ সরকার ব্যর্থ। এই ব্যর্থতাকে অন্যদিকে প্রবাহিত করার জন্য সংবিধান নিয়ে নানা রকমের ঘটনা ঘটাচ্ছে। উচ্চ আদালতকে ব্যবহার করে সংবিধানকে নিয়ে একটা সঙ্কটের দিকে যাচ্ছে।
তিনি আরও বলেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনেই নির্বাচন হতে হবে, কোন দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন এ দেশের জনগণ মেনে নেবে না। বিএনপিও সেটা মেনে নেবে না।