মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
বুধবার, ১৯ জানুয়ারী ২০১১, ৬ মাঘ ১৪১৭
জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী আজ
স্টাফ রিপোর্টার ॥ বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক রাষ্ট্রপতি মরহুম জিয়াউর রহমানের ৭৫তম জন্মবার্ষিকী আজ। জন্মবার্ষিকী উপলৰে বিএনপি ও এর অঙ্গ সংগঠনের পক্ষে তেরো দিনব্যাপী কর্মসূচী হাতে নেয়া হয়েছে। কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে জিয়াউর রহমানের মাজার জিয়ারত, আলোচনা সভা, স্বেচ্ছায় রক্তদান ও বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা প্রদান। ১৯৩৬ সালের এই দিনে বগুড়া জেলার গাবতলী উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন জিয়াউর রহমান। জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলৰে বিএনপি মহাসচিব খোন্দকার দেলোয়ার হোসেন বাণী দিয়েছেন।
জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলৰে আজ ভোরে সারাদেশে বিএনপির সকল ইউনিট কার্যালয়ে দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে। সকাল ১০টায় বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া দলের সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে নিয়ে জিয়াউর রহমানের মাজারে পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং মাজার জিয়ারত করবেন। দুপুর ২টায় বিএনপির উদ্যোগে রাজধানীর মহানগর নাট্যমঞ্চে জিয়ার কর্মময় জীবনের ওপর আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া ডক্টরস এ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ড্যাব) সকাল নয়টায় নয়াপল্টনের দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে স্বেচ্ছায় রক্তদান ও বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা প্রদানের আয়োজন করেছে।
জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলৰে খোন্দকার দেলোয়ার হোসেন তাঁর বাণীতে জিয়াউর রহমানের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান এবং তাঁর আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন। বিএনপি মহাসচিব বলেন, এদেশের এক চরম নৈরাজ্যকর পরিস্থিতিতে রাজনীতির পাদপ্রদীপের আলোয় উদ্ভাসিত হন সাবেক রাষ্ট্রপতি শহীদ জিয়াউর রহমান। মাতৃভূমির মুক্তির জন্য নেতৃত্বহীন জাতির দুঃসময়ে তিনি স্বাধীনতার ঘোষণা দেন এবং মুক্তিযুদ্ধ শুরম্ন করেন। স্বাধীনতাউত্তর দুঃসহ স্বৈরাচারী দুঃশাসনে চরম হতাশায় দেশ যখন নিপতিত, জাতি হিসেবে আমাদের এগিয়ে যাওয়া যখন বাধাগ্রসত্ম ঠিক তখনই জিয়াউর রহমান জনগণের নেতৃত্বভার গ্রহণ করেন। তাই আধিপত্যবাদের এদেশীয় এজেন্টরা নিজেদের নীলনকশা বাসত্মবায়নের পথে কাঁটা ভেবে জিয়াকে নির্মমভাবে হত্যা করে। কিন্তু তাঁর এই আত্মত্যাগে জনগণের মধ্যে গড়ে উঠেছে দেশবিরোধী চক্রানত্মকারীদের বিরম্নদ্ধে স্বদেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রৰার এক ইস্পাতকঠিন গণঐক্য। শহীদ জিয়ার জন্মদিনে তাঁর প্রদর্শিত পথেই অগণতান্ত্রিক শক্তি ও আধিপত্যবাদের ষড়যন্ত্রকে মোকাবেলা করে জনগণের ঘাড়ে চেপে বসা ফ্যাসিবাদী শক্তিকে পরাভূত করতে হবে। খোন্দকার দেলোয়ার তাঁর বাণীতে দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব, গণতন্ত্র, মৌলিক ও মানবাধিকার সুরৰায় ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার জন্য দেশবাসীসহ সকলের প্রতি আহ্বান জানান।