মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
বৃহস্পতিবার, ২৪ ডিসেম্বর ২০০৯, ১০ পৌষ ১৪১৬
নতুন বছরের শুরুতে প্রিয়াঙ্কার পেয়ার ইম্পসিবল
অনেক বছর আগে প্রখ্যাত চিত্র নির্মাতা শেখর কাপুর নির্মাণ করেছিলেন মাসুম ছবিটি। শাবানা আজমী নাসির উদ্দিন শাহ অভিনীত মাসুম ছবিটি সব দর্শকের হৃদয় ছুঁয়ে গিয়েছিল। মাসুম ছবিতে একটি সুন্দর ফুটফুটে শিশু শিল্পীর অপূর্ব অভিনয়ের কথা দর্শক আজও ভুলতে পারে না। ঐ ছবিতে নাসির উদ্দিন শাহর ছেলের ভূমিকায় অভিনয় করেছিল ঐ শিশুশিল্পী। এই ফুটফুটে সুন্দর ছেলেটিই একসময় বড় হয়ে হিন্দী সিনেমায় নায়ক রূপে আত্মপ্রকাশ করেছিল। আগলে লাগ যা, পাপা ক্যাহতে হ্যায়, মোহাব্বাতেসহ বেশ কিছু ছবিতে তাকে নায়ক চরিত্রে অভিনয় করতে দেখেছেন হিন্দী সিনেমার দর্শক। একদার সাড়া জাগানো শিশুশিল্পী এবং পরবতর্ীতে নায়করূপে আবিভর্ূত হওয়া যুগল হংসরাজ আজকাল আর অভিনয় করেন না। কয়েক বছর আগে পরিচালকের খাতায় নাম লিখিয়েছেন। বলিউডের নামীদামী ব্যানার যশরাজ ফিল্মস-এর প্রযোজনায় নির্মিত এ্যানিমেশন ছবি রোড সাইড রোমিও পরিচালনা করেছেন যুগল। এছাড়া যশরাজ ফিল্মস-এর দুটি ছবি সালাম নমস্তে এবং আজা নাচালের পরিচালকের প্রধান সহকারী হিসেবে কাজ করে হাত পাকিয়েছেন। এবার তিনি নিজেই একটি পূর্ণদৈর্ঘ্য রোমান্টিক কমেডি হিন্দী সিনেমা পরিচালনা করেছেন। যুগল হংসরাজ পরিচালিত পেয়ার ইম্পসিবল ছবিটি আগামী নতুন বছরে অর্থাৎ ২০১০-এর প্রথম সপ্তাহেই দর্শকদের সামনে আসছে। রোমান্টিক কমেডি ধাঁচে এ ছবিটি নির্মিত হয়েছে বলিউডের প্রেস্টিজিয়াস ব্যানার যশরাজ ফিল্মস থেকে। নানা কারণে এ ছবিটি মুক্তির আগেই আলোড়ন তুলেছে বলিউডে। তরুণ পরিচালক যুগল হংসরাজের এ ছবির কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন এই সময়ের ব্যস্ত জনপ্রিয় নায়িকা প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। আজকাল তাকে হিন্দী সিনেমার সেরা ৫ নায়িকার অন্যতম একজন ভাবা হয়ে থাকে। যেনতেন সিনেমায় তিনি অভিনয় করেন না। ২৭ বছর বয়সী প্রিয়াঙ্কা বলিউডের শীর্ষ নায়কদের বিপরীতেই অভিনয় করেন অধিকাংশ ছবিতে। কিন্তু পেয়ার ইম্পসিবল ছবিতে তিনি নায়িকা হয়েছেন অপোকৃত দুর্বল অবস্থানের সাধারণ এক নায়ক উদয় চোপড়ার বিপরীতে। প্রখ্যাত প্রযোজক পরিচালক যশ চোপড়ার ছোট ছেলে উদয় চোপড়া তাদের নিজস্ব ব্যানারের ছবি ছাড়া বাইরের ব্যানারের মাত্র একটি ছবিতেই অভিনয় করেছেন। গত বেশ কয়েক বছরে মোহাব্বতে মেরা ইয়ার কা সাদি, মুঝছে দোস্তি করোগি, ধুম ধুমটু, নিল এন নিকি প্রভৃতি ছবিতে নায়ক সাজলেও দর্শক তাকে মোটেও গ্রহণ করেনি। তারপরেও বাবার প্রভাব প্রতিপত্তির কারণে উদয় নায়ক হচ্ছেন। তাদের পারিবারিক ব্যানারের সিনেমাতেই নায়ক সেজে চলেছেন। এবার যশরাজ ফিল্মস-এর ব্যানারে নির্মিত যুগল হংসরাজ পরিচালিত অন্যরকম প্রেমের ছবি পেয়ার ইম্পসিবল-এ প্রথম যখন নায়ক উদয় চোপড়ার বিপরীতে প্রিয়াঙ্কা চোপড়াকে নায়িকা সাজার প্রস্তাব দেয়া হয়, তিনি সঙ্গে সঙ্গে সে প্রস্তাব নাকচ করে দিয়েছিলেন। প্রিয়াঙ্কাকে রাজি করানোর জন্য যশরাজ ফিল্মস সাধারণ রেটের চেয়ে অনেক বেশি পরিমাণে আকাশ ছোঁয়া পারিশ্রমিক অফার দেয়া হয়। অনেক প্রচেষ্টার পর প্রিয়াঙ্কাকে পেয়ার ইম্পসিবল ছবির নায়িকা আলিশা চরিত্রে অভিনয়ে রাজি করানো সম্ভব হয়। পেয়ার ইম্পসিবল ছবিটি মূলত প্রিয়াঙ্কাকেন্দ্রিক একটি রোমান্টিক কমেডি মুভি। এখানে প্রিয়াঙ্কা অভিনয় করেছেন একজন প্রাণোচ্ছল অপূর্ব সুন্দরী আকর্ষণীয়া স্মাট মিশুক স্বভাবের তরুণী আলিশা চরিত্রে। তার রূপেগুণে সবাই মুগ্ধ। সবাই তাকে ভীষণ পছন্দ করে। সব যুবকের স্বপ্নকন্যা সে। প্রিয়তমা হিসেবে তাকে ভাবতে চায় অনেকেই। আলিশার অগণিত ভক্ত অনুরাগীর মধ্যে একজন অভয়। ভীতু স্বভাবের আনস্মাট অতি সাধারণ এই যুবক কোনভাবেই নিজেকে আলিশার প্রেমিক হিসেবে ভাবতে পারে না। তবে সে মনে মনে আলিশাকে অনেক ভালবাসে। আলিশাকে নিয়ে মনে মনে অনেক কিছু কল্পনা করলেও মনের সেই একান্ত অনুভূতির কথা অভয়ে মুখ ফুটে বলার সাহস পায় না। দ্বিধা সংকোচ জড়তা ভয় সবই তাকে চেপে ধরে রাখে। এ রকম দুই তরুণ-তরুণীর মধ্যে প্রেম ভালবাসা কোনভাবেই সম্ভব না হলেও পেয়ার ইম্পসিবল ছবির সাজানো গল্পে দেখা যাবে ঘটনাচক্রে তাদের মধ্যে প্রেম ভালবাসা হয়ে যায়। এ রকম অসম্ভব এক প্রেমকাহিনী নিয়ে সমকালীন পটভূমিকায় নির্মিত পেয়ার ইম্পসিবল ছবিটি নিয়ে দর্শকদের মধ্যে আলাদা কৌতূহল সৃষ্টি হয়েছে। এছাড়া উদয় চোপড়ার সঙ্গে প্রিয়াঙ্কার জুটি কেমন লাগে তা দেখার জন্যেও কেউ কেউ উৎসুক হয়েছেন। ইতোমধ্যে টিভি প্রমোটে আলিশারূপী প্রিয়াঙ্কার গ্ল্যামারাস পারফরমেন্স দর্শকদের চমকিত করেছে। ২০০৯-এ প্রিয়াঙ্কা অভিনীত কামিনে এবং হোয়াটস ইয়ু্যর রাশি ছবি দুটি মুক্তি পেয়েছে। 'কামিনে' ছবিটির ব্যবসায়িক সাফল্য তার অবস্থানকে আরও শক্ত করেছে। হোয়াটস ইয়ু্যর রাশি ছবিটিতে একসঙ্গে ১২টি চরিত্রে অভিনয় করে ভারতীয় চলচ্চিত্রের ইতিহাসে নতুন এক রেকর্ড সৃষ্টি করেছেন প্রিয়াঙ্কা। এর আগে কোন ভারতীয় অভিনেত্রী একই ছবিতে এক সঙ্গে এতো বেশি চরিত্রে অভিনয় করেননি। প্রিয়াঙ্কার এ ধরনের কৃতিত্ব তাকে বলিউডে বিশেষ অবস্থানে অধিষ্ঠিত করেছে। আগামীতে পরিচালক বিশাল ভারদ্বাজের নতুন ছবিতে তাকে সাত ভিন্ন স্বামীর সাতজন ভিন্ন ভিন্ন স্ত্রীর ভূমিকায় অভিনয় করতে দেখা যাবে। সম্প্রতি বিশ্বসুন্দরী প্রতিযোগিতায় একজন অন্যতম বিচারকের দায়িত্ব পালনের সুযোগ পেয়েছিলেন সাবেক মিস ওয়ার্ল্ড প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। বর্তমানে বিভিন্ন প্রেস্টিজিয়াস ব্র্যান্ডের বিজ্ঞাপনে একের পর এক মডেল হচ্ছেন তিনি। বিভিন্ন বিজ্ঞাপনে প্রিয়াঙ্কার গর্জিয়াস রূপ দর্শকদের বার বার মুগ্ধ চমকিত করছে। নতুন বছরের শুরুতে দুর্দান্ত চমক নিয়ে আসছেন প্রিয়াঙ্কা। অসম্ভব প্রেমকে সম্ভব করে পেয়ার ইম্পসিবল ছবিতে তিনি কতটা সাফল্য পান সেটাই হলো দেখার বিষয়।
_রেজাউল করিম খোকন