মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
বৃহস্পতিবার, ২৪ ডিসেম্বর ২০০৯, ১০ পৌষ ১৪১৬
বন্ধুত্বের বন্ধনে আবদ্ধ ইউটুর বোনো ও 'জিম সেরিডান'
সেই ১৯৭৭ সালের কথা। পল হিউসন নামের এক আইরিশ কিশোর ডাবলিনের প্রজেক্ট আর্ট সেন্টারে ভর্তি হয়। উদ্দেশ্য মুকাভিনয়ে পাঠ নেয়া। সেদিনের হিউসনই আজ ইউটুর। বিশ্বখ্যাত রক সঙ্গীত তারকা বোনো নামে পরিচিত ডাবলিনের ঐ আর্ট সেন্টারের পুরোধা জিম সেরিডান আয়ারল্যান্ডের সবচেয়ে খ্যাতিমান চলচ্চিত্র নির্মাতা, আর্ট সেন্টার থেকেই দুজনের বন্ধুত্বের সূচনা।
জিমের সঙ্গে তার বন্ধুত্বের সম্পর্কে বোনো বলেন, জিমের সঙ্গে আমার বন্ধুত্বে সব রসায়নেরই সমন্বয় ঘটেছে। রক ব্যান্ড ও ছয় বার অস্কার মনোনয়নপ্রাপ্ত তারকার মধ্যে সম্পর্কের ব্যাপারে বোনো বলেন, আমরা বহু আগে অভিনয়, সঙ্গীত ও শিল্পকলার জন্য খ্যাত ডাবলিনের একটি সংস্কৃতি কেন্দ্র পরিচালনায় যুক্ত ছিলাম। জিম ও তার ভাই পিটার আর্ট সেন্টার নামের এই প্রগতিশীল থিয়েটার গ্রুপ পরিচালনা করতেন। বিচিত্র সব মানুষের সমাবেশ ঘটত সেখানে। সেদিনের ঘটনার স্মৃতিচারণ করে বোনো বলেন, আমার মনে পড়ে ইউটু নামে প্রথম যেদিন অনুষ্ঠান করি সেদিনের কথা। ঐ স্থানটি ডার্ক স্পেস নামে পরিচিত ছিল। প্রজেক্ট আর্ট সেন্টারের গুদামঘরের মতো এ স্বল্প পরিসরে ২৪ ঘণ্টাই সঙ্গীত উৎসবে মেতে থাকত। এরপর রয়েছে আমাদের অনেক ইতিহাস...।
এই কাহিনীর পরবতর্ী অধ্যায় হচ্ছে 'ব্রাদার্স'। সেরিডানের আলোড়ন সৃষ্টিকারী এই ছবিতে ইউটুর নতুন গান উইন্টার। চিত্রায়িত হয়েছে। ব্রাদার্স ছবির জন্য বিশেষভাবে গানটি লেখা হয়েছে। পরিবার যুদ্ধ ও ত্যাগের শাশ্বত মহিমায় গড়ে উঠেছে ছবির কাহিনী। ইউটু দ্বিতীয়বারের মতো তাদের গোল্ডেন গ্লোব এ্যাওয়ার্ডের জন্য মনোনয়ন পেয়েছে। এই উইন্টার গানের জন্যই ইউটু এ মনোনয়ন লাভ করে। ১৫ ডিসেম্বর এ মনোনয়ন লাভের ঘোষণা দেয়া হয়। ২০০৩ সালে 'গ্যস অব নিউইয়র্ক' ছবির দ্য হ্যান্ডস দ্যট বিল্টইন আমেরিকা গানের জন্য ইউটু গোল্ডেন গ্লোব এ্যাওয়ার্ড জিতে নেয়। ২০০৪ সালে নির্মিত ড্যানিশ ছবি ব্রোদ্রের রিমেক হচ্ছে ব্রাদার। ছবিটি সম্পর্কে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে বোনো বলেন, এটা দেখে আমরা বলেছি হঁ্যা এখানেই আমরা জেতে চেয়েছি। উইন্টারের কিছু গানের কলি শ্রোতা দর্শকদের হৃদয়ে সহজেই দাগ কাটে। যেমন আমার বয়স পঁচিশ/চেষ্টা করে যাচ্ছি বেঁচে থাকার জন্য/বিশ্বের এক প্রান্তে/লড়াই করছি অদৃশ্য শত্রুর বিরুদ্ধে/এখানে যেন নরকের উত্তাপ/ আর আমরা যেন টোস্টে লাগান মাখন/এ ধরার বুকে নেই কোন সৈন্য/ যারা খুঁজতে পারে ভূতের সনে। ইউটুর জন্য সবকিছুই যেন এখন সোনায় সোহাগা। ২৬ বছর অপোর পর গ্লাসটনবেরির ঐতিহ্যবাহী খামার বাড়িতে বিশ্বের বৃহত্তম ব্যান্ড দল ইউটুর অনুষ্ঠান হতে যাচ্ছে। গ্লাসটনবেরির ৪০ বছর পূর্তি উপল েআগামী বছর ২৫ জুন সঙ্গীতের এ পীঠস্থানে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। গ্লাসটনবেরির ঐতিহ্যবাহী পিরামিড স্টেজে এটাই হবে বিশ্বখ্যাত এই রক ব্যান্ড দলের প্রথম সঙ্গীত উৎসব। আগামী বছরের বহুল প্রতীতি এ অনুষ্ঠানের টিকেট মাত্র ২৪ ঘণ্টায় বিক্রি হয়ে গেছে। এই রক উৎসবের অফিসিয়াল মিডিয়া স্পন্সর হচ্ছে ব্রিটেনের বিখ্যাত গার্ডিয়ান পত্রিকা। শিল্প বোদ্ধাদের ধারণা এটাই হবে বিশ্বের সেরা সঙ্গীত উৎসব।
_ইব্রাহিম নোমান