মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
শুক্রবার, ১ ফেব্রুয়ারী ২০১৩, ১৯ মাঘ ১৪১৯
যুক্তরাষ্ট্রে সুপারিশ ছাড়া চাকরি পাওয়া কঠিন!
যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করছেন রিজু পারাখ। দীর্ঘদিন ধরে চাকরি খুঁজছেন। তাঁর এক বন্ধু যখন তাঁর চাকরির জন্য সুপারিশ করল তখনই তার আবেদনপত্রটি গুরুত্ব পেল চাকরিদাতার কাছে। ডাক পড়ল সাক্ষাতকারের। চাকরির জন্য আবেদন করার তিন সপ্তাহের মধ্যেই তার ডাক পড়ল। সাক্ষাতকারের ডাক পেয়ে অবাক হয়ে যান রিজু।
যুক্তরাষ্ট্রের বড় প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের শ্রমিক সংগ্রহের উদ্যোগ নিচ্ছেন সরাসরি। কারও মাধ্যমে নয়। এর ফলে তাদের ব্যয় ও সময় কমছে। কিন্তু যে সমস্ত চাকরি প্রার্থীর মূল প্রতিষ্ঠানে কোন সুপারিশের লোক নেই তাঁরাই আছেন সমস্যায়। যুক্তরাষ্ট্রের বেকারত্বের সংখ্যা সম্প্রতি সামান্য হ্রাস পায়। যুক্তরাষ্ট্রের শ্রম বিভাগ গত শুক্রবার দীর্ঘদিন বেকার রয়েছেন এমন ব্যক্তিদের পরিসংখ্যান প্রকাশ করে। এতে দেখা গেছে, যাদের যোগাযোগ কম তারাই দীর্ঘদিন বেকার রয়েছেন। যোগাযোগ রয়েছে এমনরা দ্রুত চাকরি পাচ্ছেন।
নির্বাহী নিয়োগকারী এক প্রতিষ্ঠানের পরিচালক ল্যারি ন্যাশ বলেন, কারও সুপারিশ রয়েছে এমন আবেদনপত্র সামনের দিকে নিয়ে আসা হয়। নিচে পড়ে যায় ওয়েবসাইট থেকে আবেদন, জব সাইট থেকে দেয়া আবেদনপত্রগুলো। একটি বিশাল কোম্পানির মানব সম্পদ পরামর্শক জন সুলিভান বলেন, চেনাজানা লোকজন নেই এমন প্রতিষ্ঠানে আবেদন করার অর্থই হচ্ছে কৃষ্ণগহ্বরে নিক্ষেপ করা। সানফ্রানসিসকো স্টেট ইউনিভার্সিটির ব্যবস্থাপনার শিক্ষক সুলিভান বলেন, চেনাজানা লোক ছাড়া চাকরি পাওয়া কষ্টকর। এটাকে আপনি যেভাবেই ব্যাখ্যা করেন না কেন। কর্পোরেট চাকরিদাতা সুলিভান বলেন, ইন্টারনেটের জব সাইট থেকে পাওয়া আবেদনপত্রের সংখ্যা হয় ব্যাপক। এর মাঝ থেকে সঠিক আবেদনপত্র বের করা কঠিন হয়ে থাকে। সে কারণে তা এড়িয়ে থাকেন অনেকেই। সুবিধাজনক অবস্থা হচ্ছে সেই প্রতিষ্ঠানে কোন কর্মকর্তা যদি কারও চাকরির জন্য সুপারিশ করে থাকেন সেটা। এই সুপারিশের ভিত্তিতে তার সাক্ষাতকার নেয়া হয়ে থাকে। ফলে চাকরি পাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। সূত্র : নিউইয়র্ক টাইমস