মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
শুক্রবার, ১ ফেব্রুয়ারী ২০১৩, ১৯ মাঘ ১৪১৯
সিরিয়ায় অস্ত্রবাহী কনভয়ে ইসরাইলী বিমান হামলা
মার্কিন কর্মকর্তাদের অভিমত, লক্ষ্যস্থল নিয়ে ভিন্নমত দামেস্কের
ইসরাইলী জঙ্গী বিমানগুলো বুধবার সিরীয় ভূখণ্ডের অভ্যন্তরে অস্ত্রবাহী কনভয়কে লক্ষ্য করে আঘাত হানে। আমেরিকান কর্মকর্তারা এ কথা জানান। সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কোর উপকণ্ঠে অত্যাধুনিক বিমান বিধ্বংসী অস্ত্র বহনকারী একটি কনভয়ই ওই হামলার লক্ষ্যস্থল ছিল বলে তাঁরা ধারণা ব্যক্ত করেন। লেবাননের হিজবুল্লাহ শিয়া মিলিশিয়াদের জন্য সেসব অস্ত্র নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল বলে মনে করা হয়। খবর বিবিসি ও নিউইয়র্ক টাইমস অনলাইনের।
ইসরাইল ওই হামলার বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রকে অবহিত করেছিল বলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই কর্মকর্তারা জানান। সিরীয় সরকার ওই হামলাকে ঔদ্ধত্য ও আগ্রাসন বলে নিন্দা জানিয়েছে। হিজবুল্লাহ যাতে এর অস্ত্রশক্তি বাড়াতে সিরিয়ার অরাজকতার সুযোগ নিতে না পারে, তা নিশ্চিত করতে ইসরাইলের দৃঢ়প্রতিজ্ঞাই ওই হামলার মাধ্যমে প্রকাশ পেল। হিজবুল্লাহ উত্তর সীমান্তে ইসরাইলের পরম শত্রু।
বুধবার ভোরের আগেই ইসরাইলী বিমানবাহিনী পাঁচ বছরেরও বেশি সময়ের মধ্যে প্রথমবারের মতো সিরিয়ার কোন লক্ষ্যস্থলে হামলা চালাল। সঙ্কটাপন্ন প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদ পাল্টা ব্যবস্থা নেবেন বলে প্রত্যাশা না করা হলেও ওই হামলার ফলে সিরীয় গৃহযুদ্ধ দেশটির সীমান্তের বাইরে ছড়িয়ে পড়ছে বলে উদ্বেগের মাত্রা বেড়ে গেছে। ইসরাইলী বিমানগুলো সিরীয় ভূখণ্ডে আঘাত হানে বলে সিরীয় সেনাবাহিনী নিশ্চিত করে, তবে তারা লেবানন অভিমুখী অস্ত্রবাহী লরিগুলোর ওপর আঘাত হানা হয় বলে প্রচারিত খবরের সত্যতা অস্বীকার করে। সেনাবাহিনীর এক বিবৃতিতে বলা হয়, দামেস্কোর উপকণ্ঠে অবস্থিত সামরিক গবেষণা কেন্দ্রে ইসরাইলী হামলা চালানো হয়। এতে দুব্যক্তি নিহত এবং পাঁচ ব্যক্তি আহত হয়। বিবৃতিতে ওই হামলাকে সিরীয় সার্বভৌমত্ব ও আকাশসীমার সুস্পষ্ট লঙ্ঘন বলে অভিহিত করা হয়। লেবানন সীমান্তের কাছে একটি অস্ত্রবাহী কনভয়ের ওপর আঘাত হানা হয় বলে লেবাননী নিরাপত্তা সূত্র, পশ্চিমা কূটনীতিক ও সিরীয় বিদ্রোহীরা জানায়। সিরীয় ক্ষেপণাস্ত্র ও রাসায়নিক অস্ত্র লেবাননের হিজবুল্লাহর মতো জঙ্গীদের হাতে পড়তে পরে বলে ইসরাইল উদ্বেগ ব্যক্ত করে থাকে। ইসরাইল ও যুক্তরাষ্ট্র ওই ঘটনা নিয়ে মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে। ইসরাইলী কর্মকর্তারা যথারীতি ওই বিমান হামলার সত্যতা নিশ্চিত করেননি। কিন্তু সিরিয়ার চারদিকে রাসায়নিক ও অন্যান্য অস্ত্রের সম্ভাব্য চালান নিয়ে প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর সঙ্গে নিরাপত্তা কর্মকর্তারা কয়েক দিন ধরে জোর শলাপরামর্শ করেন। ইসরাইল হিজবুল্লাহর হাতে এরূপ অস্ত্রের চালান পৌঁছানো রোধ করার ব্যবস্থা নেবে বলেও হুঁশিয়ার করে দেয়। সিরীয় সেনাবাহিনীর বিবৃতিতে বলা হয়, ইসরাইলী বিমানের হামলায় সামরিক গবেষণা কেন্দ্রটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এতে সংলগ্ন একটি ভবন ও কার পার্কেরও ক্ষতি হয়।
এর কয়েক ঘণ্টা আগে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এমন লেবাননী নিরাপত্তা সূত্রে বলা হয়, ইসরাইলী জঙ্গী বিমানগুলো লেবাননী সীমান্তের দিকে চলমান ক্ষেপণাস্ত্রবাহী লরিগুলোর ওপর আঘাত হানে।
লরিগুলো রুশনির্মিত এসএ-১৭ বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র বহন করছিল বলে এক মার্কিন কর্মকর্তার উদ্ধৃতি দিয়ে এক বার্তা সংস্থা জানায়। সংবাদদাতারা বলেন, ইসরাইলের আশঙ্কা, লেবাননী শিয়া জঙ্গী দল হিজবুল্লাহ ট্যাঙ্ক বিধ্বংসী ও বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র হাতে পেয়ে যেতে পারে এবং এভাবে ইসরাইলী বিমান হামলার জবাব দেয়ার সামর্থ্য বৃদ্ধি করতে পারে।