মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
বুধবার, ২৩ জানুয়ারী ২০১৩, ১০ মাঘ ১৪১৯
পাক প্রধানমন্ত্রীর দুর্নীতি তদন্ত স্থগিত
পাকিস্তানে তদন্তকারী কর্মকর্তার মৃত্যুর পর প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে দুর্নীতি মামলার তদন্ত স্থগিত করা হয়েছে। দেশটির দুর্নীতিবিরোধী সংস্থা জাতীয় জবাবদিহিতা ব্যুরো (এনএবি) সোমবার এ তথ্য জানায়। খবর বিবিসি/ অনলাইনের।
গত শুরুবার সরকারী হোস্টেল থেকে প্রধানমন্ত্রী রাজা আশরাফ পারভেজের দুর্নীতি তদন্তকারী কামরান ফয়সালের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়। অন্যান্য সহকর্মীর সঙ্গে তিনি ইসলামাবাদের ওই হোস্টেলে থাকতেন। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, তিনি আত্মহত্যা করেছেন। সিলিং ফ্যানের সঙ্গে তাঁর লাশ ঝুলতে দেখা গেছে। কিন্তু ফয়সালের পরিবার বলেছে, তাঁর হাতের কব্জিতে ক্ষতচিহ্ন ছিল। তাঁর আত্মহত্যার সত্যতা সম্পর্কে প্রশ্ন তুলেছেন তাঁরা। এনএবির চেয়ারম্যান ফসিহ বোখারি বলেন, কামরানের আত্মহত্যার মামলার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ভাড়াভিত্তিক বিদ্যুত কেন্দ্র (আরপিপি) মামলা স্থগিত থাকবে। পানি ও বিদ্যুতমন্ত্রী থাকাকালে ঘুষ নেয়ার অভিযোগে রাজা পারভেজ আশরাফ ও অন্যান্য কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দীর্ঘদিন ধরে তদন্ত চলছে। এনএবি জানায়, অন্যদের পরিচালিত তদন্ত যদি তাদের সন্তুষ্ট করতে না পারে, তবে সংস্থাটি নিজ উদ্যোগেই ফয়সালের মৃত্যুর ঘটনার তদন্ত করবে। কামরান ফয়সালের মৃত্যুর ঘটনার তদন্ত করতে একজন অবসরপ্রাপ্ত বিচারককে নিয়োগ দিয়েছে পাকিস্তান সরকার। রবিবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রেহমান মালিক বলেন, সুপ্রীমকোর্টের অবসরপ্রাপ্ত একজন বিচারপতিকে প্রধান করে তদন্ত কমিশন গঠন করা হয়েছে। দুই সপ্তাহের মধ্যে তাঁরা প্রতিবেদন জমা দেবে। কামরান ফয়সাল এনএবির একজন অধস্তন কর্মকর্তা ছিলেন। প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে দুর্নীতি মামলার তদন্তে তিনি যুক্ত ছিলেন। গত সপ্তাহে প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে সুপ্রীমকোর্টের গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হলে সর্বত্র রক্তপাতহীন সেনা অভ্যুত্থানের গুজব ওঠে। তবে সে সময় মামলাটি বুধবার পর্যন্ত স্থগিত করে আদালত। দুর্নীতির কেলেঙ্কারির অভিযোগে ২০১০ সালের ৩০ জানুয়ারি তাঁকেসহ সব কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার যে নির্দেশ দিয়েছিল আদালত তা পর্যালোচনা করার জন্য আবেদনটি সোমবার প্রত্যাহার করে নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।
এনএবি জানায়, ফয়সাল মানসিক চাপে ছিলেন।