মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
বৃহস্পতিবার, ২৯ ডিসেম্বর ২০১১, ১৫ পৌষ ১৪১৮
উগ্রপন্থী গোঁড়া ইহুদীদের বিরুদ্ধে কয়েক হাজার ইসরাইলীর বিক্ষোভ
ইসরাইলের বেইত শেমেশ শহরে মঙ্গলবার রাতে কয়েক হাজার বিৰোভকারী উগ্রপন্থী গোঁড়া ইহুদীদের বিরুদ্ধে বিৰোভ করেছে। এই উগ্রপন্থী গোঁড়া ইহুদীদের জনসমক্ষে মহিলাদের পৃথক করার প্রচারণার ফলে মহিলারা মৌখিক ও শারীরিকভাবে হয়রানির শিকার হয়। এক আট বছরের মেয়ের স্কুলে যাওয়ার সময় হয়রানির ঘটনাকে কেন্দ্র করে ধর্ম নিরপেৰ ও উগ্রপন্থী গোঁড়া ইহুদীদের মধ্যে সোমবার সংঘর্ষ হয়। এরপর দিনই ইসরাইলীদের এ বিৰোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হলো। খবর বিবিসি ও এএফপির
পুলিশ জানায়, বেইত শেমেশ শহরে প্রায় তিন হাজার লোক মিছিলে অংশ দিয়েছে। বিক্ষোভকারী ও উগ্রপন্থী গোড়া ইহুদীদের মধ্যে কোন সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেনি। পুলিশের মুখপাত্র মিকি রোসেন ফেল্ড বলেন, কোন অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। তবে আমরা আগামী দিনগুলোতেও শহরে নিরাপত্তা টহল অব্যাহত রাখব। বিৰোভের আয়োজকরা ধারণা করেছিলেন, এতে ১০ হাজার লোক অংশ নেবে।
সংবাদ মাধ্যমে জানায়, সংঘর্ষ এড়াতে উগ্রপন্থী গোঁড়া ইহুদি ধর্মীয় নেতারা তাদের সম্প্রদায়ের সদস্যদের এই বিৰোভ মিছিল থেকে দূরে থাকার নির্দেশ দেয়।
ইসরাইলের প্রেসিডেন্ট শিমন পেরেজ এই বিৰোভের প্রতি সমর্থন জানিয়ে বলেন, সংখ্যালঘু ৰুদ্র একটি গোষ্ঠীর হাত থেকে সংখ্যাগরিষ্ঠকে রৰা করতে পুরো জাতিকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। ইসরাইলের রৰণশীল উগ্রপন্থী গোঁড়া ইহুদীদের প্রভাব বাড়তে থাকায় এবং মহিলাদের প্রতি তাদের দেয়া বিশেষ নির্দেশনার জন্য দেশটির জনগণের মধ্যে ক্ষোভের জন্ম নিয়েছে। ইসরাইলী জনসংখ্যার ১০ শতাংশের কম উগ্রপন্থী গোঁড়া ইহুদীরা। জেরুজালেম থেকে প্রায় ৩০ কিলোমিটার পশ্চিমের শহর বেইত শেমেশের প্রায় এক লাখ অধিবাসীর মধ্যে প্রায় অর্ধেকই উগ্রপন্থী গোঁড়া ইহুদী। এই উগ্রপন্থী গোঁড়া ইহুদী পুরুষদের বেশিরভাই কোন কাজ করে না, এমনকি সামরিক বাহিনীতেও নেই। তাদের ধর্মীয় বিষয়ে পড়াশুনার জন্য সরকার ভর্তুকি দিয়ে থাকে। এই শহরের এক নাগরিক ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এই উগ্রপন্থী গোঁড়া ইহুদীরা ইরানের চেয়েও ইসরাইলের জন্য বড় হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে। মঙ্গলবারের বিৰোভ ধর্মনিরপেৰ ও গোঁড়া ইহুদী উভয়ই অংশ নিয়েছে। তারা 'ইসরাইলকে ধর্মীয় নিপীড়ন থেকে মুক্ত কর' এবং 'ইসরাইলকে ইরানে পরিণত করা বন্ধ কর' বলে সেস্নাগান দিতে থাকে। ইরানের মহিলাদের কঠোর নিয়ন্ত্রণের মধ্যে রাখা হয়। বিক্ষোভকারীরা ইরানের মহিলাদের সঙ্গে তুলনা করে এই সেস্নাগান দেয়।