মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
রবিবার, ৪ সেপ্টেম্বর ২০১১, ২০ ভাদ্র ১৪১৮
পরমাণু অস্ত্র তৈরিতে ইরানের গোপন পরীক্ষা-নিরীক্ষা
জাতিসংঘ পরমাণু সংস্থার উদ্বেগ
পারমাণবিক অস্ত্র তৈরির জন্য ইরানের গোপনে কাজ করে যাওয়ার বিশ্বাসযোগ্য প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ পরমাণু সংস্থা। ইরান পারমাণবিক অস্ত্র তৈরি করতে বিশেষত ক্ষেপণাস্ত্রের সাহায্যে বহনের জন্য এরূপ অস্ত্র তৈরি করতে পরীৰা চালানোতে ঐ সংস্থা 'ক্রমবর্ধমানভাবেই উদ্বিগ্ন' বলে জানিয়েছে। খবর ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল ও অন্যান্য ওয়েবসাইটের।
আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থা (আইএইএ) শুক্রবার প্রকাশিত রিপোর্টে বলেছে, ইরান নাতাঞ্জে অবস্থিত এর সবচেয়ে বড় ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণ স্থাপনায় তথাকথিত সেকেন্ড জেনারেশন সেন্ট্রিফিউজ মোতায়েন করতে শুরু করেছে। এর ফলে দেশটি বর্তমান গতির তুলনায় তিন গুণ বেশি গতিতে পারমাণবিক জ্বালানি উৎপাদন করতে সক্ষম হতে পারে।
জাতিসংঘের ঐ সংস্থার মতে, ইরান বর্তমানে পবিত্র শহর কোমের কাছে এক ভূগর্ভস্থ স্থাপনায় সেন্ট্রিফিউজ মেশিনপত্র বসাতে শুরু করেছে। এর ফলে ইরানের পারমাণবিক স্থাপনাগুলোর বিরম্নদ্ধে সামরিক হামলা চালাতে যুক্তরাষ্ট্র বা ইসরাইলের সামর্থ্য সর্বনিম্ন পর্যায়ে চলে আসতে পারে।
মার্কিন কর্মকর্তারা বলেন, ইরান পারমারণবিক অস্ত্র নির্মাণের প্রযুক্তি উন্নয়ন করছে বলে ক্রমবর্ধমান আন্তর্জাতিক উদ্বেগই রিপোর্টে প্রতিফলিত হয়েছে। ইরান অভিযোগটি বারবার অস্বীকার করে এসেছে।
ওয়াশিংটন আরও বলেছে, জাতিসংঘের প্রস্তাবাদি মেনে নিতে তেহরান সরকারকে বাধ্য করতে এর ওপর আরও আন্তর্জাতিক আর্থিক চাপ প্রয়োগ করা যে প্রয়োজনীয়, ইরানের পদক্ষেপগুলো সেই আভাসই দেয়। এসব প্রস্তাবে ইরানকে ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের সব কাজ স্থগিত করতে বলা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের মুখপাত্র টোমি ভিটর বলেন, ইরানের পরমাণু কর্মসূচীর প্রকৃতি ও অভিপ্রায় নিয়ে বিশেষত কোন স্থাপনা নিয়ে আইএইএ ও ব্যাপকতর আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের গভীর উদ্বেগ রয়েছে। ইরানের উচিত অবিলম্বে এর কর্মসূচীকে সঠিক পথে ফিরিয়ে আনা।
আইএইএ বছরের পর বছর ধরে উদ্বেগ ব্যক্ত করে এসেছে যে, ইরান পারমাণবিক অস্ত্র তৈরির উপায় বিয়ে গোপনে গবেষণা চালিয়েছে। ইরান উঁচু আকাশে বিস্ফোরক নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালিয়েছে এবং পারমাণবিক ওয়ারহেড বহনের জন্য দূরপালস্নার শাহাব ৰেপণাস্ত্রে পরিবর্তন এনেছে।
ভিয়েনাভিত্তিক আইএইএ-এর সর্বশেষ রিপোর্টে বলা হয়েছে, সংস্থাটি ইরানের পারমাণবিক অস্ত্র তৈরির বিষয়ে গোপনে গবেষণা চালানোর নতুন তথ্যটি স্বতন্ত্র সূত্রে এবং সদস্য রাষ্ট্রগুলোর কাছ থেকে পেয়েছে। আইএইএ বলেছে, সংস্থাটি ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচীর সম্ভাব্য সামরিক দিকগুলো সম্পর্কিত সব প্রশ্নের জবাব দিতে ইরানকে চাপ দিয়ে যাচ্ছে, কিন্তু ইরান এ পর্যন্ত সেগুলোর জবাব দিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে এসেছে।
ইরানের কথিত পারমাণবিক অস্ত্র কর্মসূচী নিয়ে আলোচনা করতে গিয়ে আইএইএ'র পূর্ববতী রিপোর্টগুলোতে 'ক্রমবর্ধমান উদ্বেগ' ব্যক্ত করা হয়নি। আর এরূপ উদ্বেগে সংস্থার প্রধান ইমুকিয়া আমানোর অনুসন্ধান কাজে অগ্রগতির অভাব নিয়ে তাঁর হতাশাই প্রতিফলিত হয়। তাঁর রিপোর্টে বলা হয়, সংস্থাটি ইরানের অতীত বা বর্তমানের অপ্রকাশিত অস্ত্র সংক্রান্ত পারমাণবিক কর্মসূচীর সম্ভাব্য অস্তিত্ব নিয়ে ক্রমবর্ধমানভাবেই উদ্বিগ্ন। বিশেষত রিপোর্টে বলা হয়, সংস্থাটি ক্ষেপণাস্ত্রের জন্য পারমাণবিক বিস্ফোরক উদ্ভাবন সংক্রান্ত তৎপরতা নিয়ে নতুন তথ্য পেয়ে যাচ্ছে।