মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
বুধবার, ১৫ জুন ২০১১, ১ আষাঢ় ১৪১৮
সিরিয়ায় অসন্তোষ থেকে গোষ্ঠীগত সংঘাতের আশঙ্কা
সিরিয়া সরকার এ সপ্তাহে নতুন করে একটি শহরের নিয়ন্ত্রণ নেয়ার পর বিভিন্ন গোষ্ঠীর মধ্যে উত্তেজনা বৃদ্ধি পাচ্ছে। সুন্নী ও সংখ্যালঘু আলাবি গোষ্ঠীর মধ্যে উত্তেজনা বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের পরিবার এই আলাবি গোষ্ঠীর অন্তর্গত। সিরিয়ায় বর্তমানে প্রতিটি গোষ্ঠী পরস্পরের বিরুদ্ধে অভিযোগের ফিরিস্তি হাজির করছেন। শরণার্থী বাসিন্দা আন্দোলনকারী সবাই গৃহযুদ্ধের আশঙ্কা করছেন। সিরিয়ায় সুন্নী আলাবি, খ্রিস্টান, কুর্দী ও অন্যান্য ৰুদ্র গোষ্ঠীর বসবাস। কিন্তু রাজনৈতিক ৰমতা আলাবি গোষ্ঠীর হাতেই কেন্দ্রীভূত।
জিসর আল শাগুর শহরে সরকারী বাহিনী ট্যাঙ্ক ও হেলিকপ্টারের মাধ্যমে অভিযান চালায়। সমসত্ম সন্ত্রাসী দল নির্মূল করতে এই অভিযান চালায় বলে সরকার দাবি করে। সুন্নী অধু্যষিত এই শহরের এক মাইলেরও কম দূরত্বে একটি আলাবি জনগোষ্ঠী অধু্যাষিত এলাকা রয়েছে। এই শহরের মধ্যেই খ্রিস্টান ও সুন্নী গোষ্ঠীর বিভিন্ন উপগোষ্ঠী রয়েছে। দামেস্কোর একজন আলাভি আইনজীবী বলেন, গোষ্ঠীগত দাঙ্গার ভয়ে আমি আতঙ্কিত।
এদিকে ওবামা প্রশাসনের এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেছেন, ওবামা প্রশাসন ও প্রতিবেশী আরব দেশগুলো আসাদকে সরিয়ে দিতে তেমন আগ্রহী নয়। তার প্রধান কারণ আসাদবিহীন সিরিয়ায় গোষ্ঠীগত সহিংসতা ভয়াবহ আকার নিতে পারে।
সিরিয়ায় গোষ্ঠীগত বিভেদ অনেক গভীর। সিরিয়ার গোষ্ঠীগত পরিস্থিতি ইরাক ও লেবাননের অনুরূপ। প্রতিবেশী দেশ দুটি দীর্ঘদিন গৃহযুদ্ধের মুখে রয়েছে। সিরিয়ার সরকারী কর্মকর্তারা বলছেন, মুসলিম জঙ্গীরা সাধারণের দুর্দশাকে কাজে লাগাচ্ছে সরকারের বিরম্নদ্ধে। সরকারের পতন ঘটলে খ্রীস্টান ও অন্য সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা হুমকির মুখে পড়বে বলে সিরিয়া কর্তৃপৰ উলেস্নখ করেন। এদিকে আসাদ বিরোধীরা গোষ্ঠীগত বিরোধকে তেমনভাবে সামনে আনছে না। তারা বলছে, চার দশক ধরে ৰমতা অাঁকড়ে এটি সরকারের একটি কূটকৌশল।
তবে গণবিস্ফোরণের সঙ্গে গোষ্ঠীগত বিরোধও বেড়ে উঠছে। এটি ক্রমশ গোষ্ঠীগত দাঙ্গার রূপ নিতে চলেছে। অপরদিকে বিরোধী রাজনীতিক ও মার্কিন কর্মকর্তারা সিরিয়ার আন্দোলনকারীদের শানত্মিকামী বলে চিত্রায়িত করে আসছেন। যদিও তাঁরা জানতেন যে, এই আন্দোলনকারীদের মধ্যে অস্ত্র ধারাও রয়েছে এবং তারা নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের ওপর হামলা চালিয়েছে। সরকার বলছে এই অস্ত্রধারীরা কয়েক শ' নিরাপত্তা রৰীকে হত্যা করেছে। অপরদিকে বিরোধীরা বলছে সরকারী বাহিনী এ পর্যনত্ম ১৩শ' বিৰোভকারীকে হত্যা করেছে।
সূত্র : নিউইয়র্ক টাইমস অনলাইন।