মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
মঙ্গলবার, ৪ জানুয়ারী ২০১১, ২১ পৌষ ১৪১৭
সেদিনের 'জোয়ান অব আর্ক' এখন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট
ব্রাজিলের ইতিহাসে প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট হিসেবে ডিলমা রৌসেফ শনিবার শপথ নিয়েছেন। তিনি ব্রাজিলের জনপ্রিয় প্রেসিডেন্ট লুইস ইনাসিও লুলা ডি সিলভার স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন। ডিলমা একজন অর্থনীতিবিদ। প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার আগে তিনি ছিলেন বিদু্যত ও খনিমন্ত্রী। পরবর্তী সময়ে মন্ত্রী পরিষদের প্রধান। তাঁর জন্ম ১৯৪৭ সালের ১৪ ডিসেম্বর ব্রাজিলে। তাঁর মা ছিলেন স্কুল শিৰক। বাবা ছিলেন বুলগেরিয়ার কমিউনিস্ট পার্টির সক্রিয় সদস্য। রাজনৈতিক চাপে তিনি দেশ ছেড়ে ফ্রান্সে চলে যান। পরে আর্জেন্টিনা থেকে ব্রাজিলে এসে বিয়ে করে স্থায়ীভাবে বসবাস শুরম্ন করেন। এখানে তিনি হয়ে ওঠেন সফল ব্যবসায়ী। মারা যান ১৯৬২ সালে।
বাবার কাছেই ডিলমার পড়াশোনার হাতেখড়ি। এর পর শিখেছেন ফ্রেঞ্চ, পাশাপাশি শিখেছেন পিয়ানো। ১৫ বছর বয়সে তিনি সেন্ট্রাল স্টেট হাই স্কুলে ভর্তি হন। ১৯৬৪ সালে ব্রাজিলের বাম সরকারকে পরাজিত করে সেনাবাহিনী ৰমতা দখল করে। যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তায় এই সেনা শাসন ছিল ২১ বছর। বাবার আদর্শই তাঁকে রাজনীতিতে সক্রিয় করে তোলে। ১৯৬৭ সালে তিনি ব্রাজিলিয়ান সোস্যালিস্ট পার্টির সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন। এর পর ফিদেল ক্যাস্ট্রো ও চে গুয়েভারার বন্ধু ফরাসী সমাজতান্ত্রিক ও সাংবাদিক রেজিস ডেবরায়ের লেখা 'রেভু্যলেশন ইনসাইড দ্য রেভু্যলেশন' পড়ার পর তিনি সশস্ত্র সংগ্রামে যোগ দেন। হয়ে ওঠেন দুর্দান্ত গেরিলা। অস্ত্রের ব্যবহার এবং পুলিশের মুখোমুখি গেরিলা কৌশল কীভাবে খাটাতে হয়, সে বিষয়ে তিনি ছিলেন অদ্বিতীয়। আর সে সময় সেনাবাহিনী তার নাম দিয়েছিল 'জোয়ান অব আর্ক।' তাঁর রাজনীতির সঙ্গে সংশিস্নষ্টতা ও আন্ডারগ্রাউন্ড সক্রিয়তার কথা পরিবারের সবাই জানতেন। খবর ওয়েবসাইটের।
১৯৭০ সালে তিনি গ্রেফতার হন। প্রায় তিন বছর কারাভোগের পর ১৯৭৩ সালে রৌসেফ মুক্তি পান। মুক্তির পর তিনি অর্থনীতি নিয়ে আবারও পড়াশোনা শুরু করেন এবং ১৯৭৭ সালে গ্রাজুয়েট ডিগ্রী লাভ করেন। কয়েক বছর চাকরি করেন। এরপর ধীরে ধীরে রাজনীতির পথে চলতে চলতে তাঁকে আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। ১৯৯৩ সালে স্টেট গবর্নর রিও গ্র্যান্ডি ডো সোল তাঁকে এনার্জি সেক্রেটারি নিযুক্ত করেন। ১৯৯৯ সালে তিনি বিদু্যত, খনি ও যোগাযোগমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ পান।
২০০১ সালে তিনি লুলার ওয়ার্কার্স পার্টিতে যোগ দেন। ২০০২ সালে তিনি লুলার নির্বাচনী প্রচারে যোগ দেন। প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়ে লুলা রৌসেফকে বিদু্যত ও খনিমন্ত্রীর দায়িত্ব দেন। ২০০৫ সালে তিনি প্রেসিডেন্ট লুলার চীফ অব স্টাফ পদে নিয়োগ পান। ব্রাজিলে লুলার জনপ্রিয়তা আকাশসমান। কিন্তু পর পর দু'বার নির্বাচিত হওয়ায় সাংবিধানিক বাধার কারণে তিনি প্রেসিডেন্ট পদে নির্বাচন করতে পারেননি। আর তাই প্রেসিডেন্ট পদে নির্বাচন করার জন্য লুলাই তাঁকে উৎসাহ দিয়েছেন। আর এ বিষয়টিই ডিলমার জন্য প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জেতা সহজ করেছে। এ ছাড়া নির্বাচনের আগে দিলমা বার বার অঙ্গীকার করেছেন, প্রেসিডেন্ট হলে তিনি লুলার নেয়া পদৰেপগুলোই এগিয়ে নিয়ে যাবেন।