মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
সোমবার, ১ ডিসেম্বর ২০১৪, ১৭ অগ্রহায়ন ১৪২১
৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি ॥ জগ্লুল আহ্মেদ চৌধূরীর দাফন আজ
স্টাফ রিপোর্টার ॥ সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার সাবেক প্রধান সম্পাদক, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও আন্তর্জাতিক বিশ্লেষক জগ্লুল আহ্মেদ চৌধূরীর জানাজা ও দাফন সম্পন্ন করা হবে আজ সোমবার। সকাল ১১টায় বনানী জামে মসজিদে প্রথম জানাজা এবং জোহরের নামাজের পর জাতীয় প্রেসক্লাবে দ্বিতীয় জানাজা শেষে আজিমপুর কবরস্থানে তার মায়ের কবরের পাশে সমাহিত করা হবে তাকে। রবিবার জগ্লুল আহ্মেদ চৌধূরীর পরিবারের পক্ষ থেকে এমনটাই জানানো হয়েছে। এর আগে শনিবার রাতে রাজধানীর কাওরান বাজারে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হন তিনি।
এদিকে জগ্লুল আহ্মেদ চৌধূরীর সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যুর ঘটনা তদন্তে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি করেছে সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয়। বিআরটিএ পরিচালক (প্রশাসন) মশিউর রহমানকে প্রধান করে গঠিক এই কমিটিকে তিন কর্ম দিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।
প্রখ্যাত এই সাংবাদিকের মৃত্যুতে রবিবার শোক প্রকাশ করেছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, সমাজকল্যাণমন্ত্রী সৈয়দ মহসিন আলী, ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার পঙ্কজ শরন। এছাড়া বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ, ঢাকা চেম্বার অব কমার্স এ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই), বিজিএমইএ, গণবিশ্ববিদ্যালয়, মওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ইনস্টিটিউট ফর এনভায়রনমেন্ট এ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (আইইডি), জাকের পার্টি, বাংলাদেশ বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টিসহ বিভিন্ন ব্যক্তি ও সংগঠন শোক প্রকাশ করেছে। এই প্রখ্যাত সাংবাদিকের মৃত্যুতে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) কালো পতাকা উত্তোলন ও কালো ব্যাজ ধারণ কর্মসূচী পালন করেছে রবিবার। এর আগে শনিবার রাতেই প্রবীণ সাংবাদিক জগ্লুল আহ্মেদ চৌধূরীর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেন রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, জাতীয় সংসদের স্পীকার ড. শিরীন শারমিন, বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া, স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোঃ নাসিম প্রমুখ। এছাড়া জাতীয় প্রেসক্লাব, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ), বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) শনিবার রাতেই শোক প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছে।
জগ্লুল আহ্মেদ চৌধূরীর জানাজা ও দাফনের বিষয়ে তার বড়বোনের ছেলে মারিফ মাহমুদ সাংবাদিকদের জানান, ওনার বড় মেয়ে অন্তরা চৌধুরী আমেরিকা থেকে সোমবার ভোর সকাল ৬টায় দেশে ফিরবেন। এরপর সকাল ১১টায় বনানী জামে মসজিদে প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। ২য় জানাজা অনুষ্ঠিত হবে জোহরের নামাজের পরে জাতীয় প্রেসক্লাব প্রাঙ্গণে। জানাজা শেষে তাকে আজিমপুর কবরস্থানে তার মায়ের কবরের পাশে শায়িত করা হবে বলে তিনি জানান।
তদন্ত কমিটি ॥ জগ্লুল আহ্মেদ চৌধূরীর সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যুর ঘটনা তদন্তে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি করেছে সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয়। বিআরটিএ পরিচালক (প্রশাসন) মশিউর রহমানকে প্রধান করে গঠিক এই কমিটিকে তিন কর্ম দিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। রবিবার মানিক মিয়া এভিনিউয়ে সড়ক দুর্ঘটনা রোধ ও ট্রাফিক আইন নিয়ে জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিদর্শন শেষে সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।
তদন্ত কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন, দৈনিক ভোরের কাগজের সম্পাদক শ্যামল দত্ত, ডিএমপি ট্রাফিক বিভাগের (পশ্চিম) উপ-কমিশনার ইমতিয়াজ আহমেদ, ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষের নগর পরিকল্পনাবিদ নাহমাদুল হাসান এবং ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তা খন্দকার মাহবুবুর রহমান।
শনিবার রাতে বেসরকারী টেলিভিশন এটিএন বাংলার একটি টক শো অনুষ্ঠানে অংশ নিতে যাওয়ার পথে রাজধানীর কাওরান বাজারে বাসের ধাক্কায় নিহত হন বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার (বাসস) সাবেক প্রধান সম্পাদক ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক, কলামিস্ট জগ্লুল আহ্মেদ চৌধূরী।
ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ইমরুল কায়েস সাংবাদিকদের বলেন, রাত পৌনে আটটার দিকে কাওরান বাজার সার্ক ফোয়ারার পশ্চিম পাশে ফার্মগেটগামী একটি বাস থেকে নামার সময় পড়ে গেলে ওই বাসেরই ধাক্কায় মাথায় আঘাত পেয়ে রাস্তায় পড়ে যান। পড়ে গিয়ে তার মাথা ফেটে রক্ত ঝরতে থাকলে কয়েক পথচারী তাকে নিয়ে প্রথমে নিকটস্থ মোহনা ক্লিনিকে যান। সেখানে জরুরী বিভাগে ডাক্তার না থাকায় তাঁকে গ্রীনরোডের কমফোর্ট হাসপাতালে নেয়া হয়। রাত আনুমানিক সাড়ে আটটার দিকে কমফোর্টের কর্তব্যরত ডাক্তার ইমরান হোসেন তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। খবর পেয়ে তার পরিবারের লোকজন এসে তাঁর মরদেহ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের হিমঘরে রাখার ব্যবস্থা করেন।
জগ্লুল আহ্মেদ চৌধূরী ঢাকার বনানীতে বাস করতেন। তার একমাত্র মেয়ে অন্তরা চৌধুরী যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী এবং একমাত্র ছেলে নাবিদ আহমেদ চৌধুরী ঢাকায় গ্রামীণফোনে কর্মরত। জগলুল আহমেদের গ্রামের বাড়ি হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার পিয়াম গ্রামে। বাবা নাসিরউদ্দিন চৌধুরী ছিলেন যুক্তফ্রন্ট সরকারের আইনমন্ত্রী। বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার (বাসস) সাবেক প্রধান সম্পাদক ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক জগলুল আহমেদ চৌধুরী সর্বশেষ ফিন্যান্সিয়াল এক্সপ্রেসের উপদেষ্টা সম্পাদক ছিলেন। জাতীয় প্রেসক্লাব, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির স্থায়ী সদস্যসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন জগ্লুল আহ্মেদ। ১৯৮৮-৮৯ সালে অবিভক্ত বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সহকারী মহাসচিব ছিলেন তিনি।