মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
সোমবার, ১ ডিসেম্বর ২০১৪, ১৭ অগ্রহায়ন ১৪২১
সড়ক দুর্ঘটনায় আরও দু’জনের প্রাণ গেল ঢাকাতেই
০ গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যুতে স্বামী আটক
০ ছাদ থেকে পড়ে গৃহবধূর মৃত্যু
০ অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে সিএনজি খোয়া
স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীর মোহাম্মদপুরে এক গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের স্বামী রহিমকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। মুগদায় একটি চারতলা ভবনের ছাদ থেকে পড়ে আরেক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। আবারও নগরীতে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় এক শিক্ষার্থীসহ দু’জন নিহত হয়েছে। মিরপুরে একটি খাবার হোটেলে বিদ্যুতস্পৃষ্ট হয়ে এক হোটেল কর্মচারীর মৃত্যু হয়েছে। এদিকে মুগদায় অজ্ঞানপার্টির খপ্পরে পড়ে এক সিএনজি চালক তার সিএনজি অটোরিকশা খুঁইয়েছেন। রবিবার পুলিশ ও মেডিক্যাল সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। স্থানীয় সূত্র জানায়, রবিবার মোহাম্মদপুর থানাধীন বশিলার কাটাসুরে এক বাড়িতে ফেরদৌসী আক্তার মেরি (২৮) নামের এক গৃহবধূর মৃত্যু নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ দুপুরে তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ মর্গে পাঠায়। মোহাম্মদপুর থানার এসআই মাসুদুর রহমান জানান, মৃত মেরির গলায় লালচে দাগ পাওয়া গেছে। তার মৃত্যুর ঘটনায় যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের স্বামী রহিমকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। নিহত মেরির বাবার নাম মৃত ইউসুফ আলী। গ্রামের বাড়ি নোয়াখালী জেলার চাটখিল থানার উত্তর রামচন্দ্রপুর গ্রামে। নিহত মেরি স্বামী আব্দুর রহিম ও দুই ছেলেকে নিয়ে মোহাম্মদপুরের বশিলা রোডের কাটাসুর এলাকার ৮/২ নম্বর বাড়িতে বসবাস করতেন।
মোহাম্মদপুর থানার উপপরিদর্শক মাসুদুর রহমান জানান, নিহতের স্বামী আব্দুর রহিম স্টিলের ফার্নিচার ব্যবসায়ী। পারিবারিক বিষয় নিয়ে মেরির সঙ্গে তার স্বামী রহিমের প্রায়ই ঝগড়াবিবাদ লেগে থাকত। এরই জের ধরে মেরিকে নির্মম নির্যাতন করত তার স্বামী রহিম। শনিবার রাতেও তাদের মধ্যে ঝগড়া হয়। এরপর তারা রাতে আলাদা ঘরে শুয়ে পড়ে। পরেরদিন রবিবার সকালে স্বামী তার স্ত্রীকে ডেকে কোন সাড়াশব্দ না পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। দুপুর ১২টার দিকে খবর পেয়ে পুলিশ ওই বাসা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে। এদিন সকালে দক্ষিণ মুগদাপাড়ার এলজি বাটারফ্লাই শোরুমের পেছনে ৮৬/৭ নম্বর ভবনের চারতলার ছাদ থেকে পড়ে শাহিনুর আক্তার (৩৬) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। নিহতের স্বামীর নাম সাজ্জাদ কাদের। নিহতের ভাই সালাউদ্দিন জানান, তার বাসার পাশাপাশি শাহিনুরের বাসা। তিনি জানান, প্রতিদিনের ন্যায় রবিবার সকাল পৌনে ৭টার দিকে বোন শাহিনুর ছাদে ফুলগাছে পানি দিচ্ছিলেন। পানি দিয়ে ওই ছাদ থেকে তার (সালাউদ্দিনের) বাসার ছাদে যাচ্ছিলেন শাহিনুর আক্তার। তখন শাহিনুর পা পিছলে নিচে পড়ে যায়। পরে শাহিনুরকে গুরুতর আহত অবস্থায় ঢামেক হাসপাতালে আনলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২ ॥ রাজধানীর কাওরানবাজারে বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার (বাসস) সাবেক প্রধান সম্পাদক ও কলামিস্ট প্রবীণ সাংবাদিক জগ্লুল আহ্মেদের চৌধূরীর মৃত্যুর রেশ কাটতে না কাটতেই আবারও বেপরোয়া বাস চালকের চাপায় রবিবার এক শিক্ষার্থীসহ দু’জনের মৃত্যু হয়েছে। এদিন সকালে মালিবাগের মৌচাকে দুটি বাসের মাঝে চাপা পড়ে মোজাম্মেল হোসেন কাঞ্চন (২২) নামে এক বিবিএ শিক্ষার্থী নিহত হয়েছেন। তিনি ধানমণ্ডির ইন্টারন্যাশনাল ইসলামিক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিবিএ শেষ করে বাড্ডা শাখার উত্তরা ব্যাংকে ইন্টার্নশিপ করছিলেন। নিহতের বাবার নাম মোঃ কাশেম মাস্টার। গ্রামের বাড়ি নোয়াখালী জেলার সেনবাগ থানার মহিষদী গ্রামে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রবিবার সকাল ৯টার দিকে মালিবাগের মৌচাক এপেক্স শো-রুমের সামনে রাস্তা পার হচ্ছিলেন মোজাম্মেল হোসেন কাঞ্চন। এ সময় কাঞ্চন ডানদিকে ফালগুন ও বামদিকের দিবানিশি বাসের মাঝখানে পড়ে মারাত্মক আহত হন। পরে ফালগুন বাসের যাত্রী রাজি কাঞ্চনকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে সকাল ১০টার দিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে জরুরী বিভাগে আনলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহত কাঞ্চনের দুলাভাই আলমগীর হোসেন জানান, কাঞ্চন বনশ্রীর ৫ নম্বর রোডের ২৫ নম্বর বাসায় থাকতেন। এ বিষয়ে শাহজাহানপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) এসকে ক্ষুদে নেওয়াজ জানান, খবর পেয়ে হাসপাতাল থেকে তার মরদেহের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠানো হয়।
একইদিন সকালে মিরপুর থানাধীন কল্যাণপুরে বিআরটিসি বাস ডিপোর সামনে বাসের চাপায় হৃদয় খান (২০) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ সেখান থেকে তার লাশ উদ্ধার করে ঢামেক মর্গে পাঠায়। মিরপুর থানার উপপরিদর্শক মোঃ মোক্তারুজ্জামান জানান, রবিবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে কল্যাণপুর বিআরটিসি বাস ডিপোর সামনে রাস্তা পার হচ্ছিল ওই যুবক। এ সময় বাস চাপায় ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। প্রথমে অজ্ঞাত হিসেবে তার লাশের ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠানো হয়। পরে দুপুরে তার চাচা আবুল কালাম মর্গে এসে লাশ শনাক্ত করেন। নিহতের বাবার নাম মোঃ হোসেন আলী খান। গ্রামের বাড়ি বরিশাল জেলার গৌরনদী থানার লেবুতলি গ্রামে। সে ঘটনাস্থলের কাছে দুই নম্বর গলিতে বসবাস করত।
অন্যদিকে রবিবার ভোরেরদিকে মিরপুর মাজার রোডের রাজীব হোটেলে স্যুইস অন করতে গিয়ে মোঃ মোমিন (১০) নামে এক হোটেল বয়ের মৃত্যু হয়েছে। মৃত মোমিনের সহকর্মী ইখলাক ও এনামুল জানান, ১৫ দিন আগে মোমিন রাজীব হোটেলে বয় হিসেবে কাজে যোগ দেয়। শনিবার রাত ২টার দিকে হোটেলের পেছনে স্টাফ রুমে ঘুমাতে যায় সে। ওই সময় বিদ্যুতের স্যুইস অন করতে বৈদ্যুতিক ছেঁড়া তারে স্পৃষ্ট হয় মোমিন। মোমিনকে গুরুতর আহত অবস্থায় রাত সাড়ে ৩টার ঢামেক হাসপাতালের জরুরী বিভাগে আনলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
অজ্ঞানপার্টির খপ্পরে সিএনজি চালক ॥ আবারও রবিবার দুপুরে মুগদার মানিকনগর পুকুরপার এলাকায় অজ্ঞানপার্টির খপ্পরে মোঃ মাসুদ (৩২) নামে এক সিএনজি চালককে অচেতন করে তার সিএনজিটি নিয়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করেন। এর আগেরদিন শনিবার ভোরেরদিকে জুরাইন রেলগেট এলাকায় ছিনতাইকারীরা আব্দুর রাজ্জাক (৩৫) নামের চালককে কুপিয়ে কার সিএনজি অটোরিকশা ছিনিয়ে যায়। তাকে একই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে তিনি চিকিৎসাধীন। অজ্ঞানপার্টির শিকার মাসুদ নারায়ণগঞ্জ চাষাড়ার একটি গ্যারেজে থাকেন। আহত মোঃ মাসুদ জানান, নারায়ণগঞ্জ থেকে দুই যাত্রী নিয়ে তিনি গে-ারিয়ার উদ্দেশে রওনা দেন। পথে তারা তাকে কিছু খেতে দেয়। এর পর তারা সিএনজি নিয়ে চলে যায়।