মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
বৃহস্পতিবার, ২২ আগষ্ট ২০১৩, ৭ ভাদ্র ১৪২০
বিচারপতি কামাল উদ্দিন হোসেন আর নেই
স্টাফ রিপোর্টার ॥ সাবেক প্রধান বিচারপতি কামালউদ্দিন হোসেন আর নেই। বুধবার ভোর ৪টা ৫৫ মিনিটে রাজধানীর বারিধারার ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন (ইন্নালিল্লাহি ...রাজিউন)। তাঁর বয়স হয়েছিল ৯০ বছর। পরে বাদ জোহর সুপ্রীমকোর্ট প্রাঙ্গণে তাঁর প্রথম জানাজা সম্পন্ন হয়েছে। এদিকে, সাবেক এই প্রধান বিচাপতির মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি এ্যাডভোকেট আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা. আইনমন্ত্রী ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ ও আইন প্রতিমন্ত্রী এ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।
সুপ্রীমকোর্ট প্রাঙ্গণে প্রথম জানাজা শেষে সাবেক প্রধান বিচারপতি কামাল উদ্দিন হোসেনের মরদেহ গুলশান আজাদ মসজিদে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে বাদ আছর দ্বিতীয় জানাজা শেষে বনানী কবরস্থানে সমাহিত করা হয় এই সাবেক প্রধান বিচারপতিকে।
সুপ্রীমকোর্টে প্রথম জানাজায় তিন ছেলের মধ্যে দুই ছেলে ইজাজ হোসেন ও ইশতিয়াক হোসেন উপস্থিত ছিলেন। শুক্রবার বাদ মাগরিব গুলশান ৭৪ নম্বর রোডের ৭০ নম্বর বাসায় কুলখানি অনুষ্ঠিত হবে বলে পারিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়।
প্রথম জানাজায় উপস্থিত ছিলেন ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা (এস কে সিনহা), আপীল বিভাগের বিচারপতি আব্দুল ওয়াহহাব মিঞা, সৈয়দ মাহমুদ হোসেন, হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী, সাবেক প্রধান বিচারপতি এম এম রুহুল আমিন, সাবেক প্রধান বিচারপতি ও আইন কমিশনের চেয়ারম্যান এবিএম খায়রুল হক, আপীল বিভাগের সাবেক বিচারপতি শাহ্ আবু নাঈম মোঃ মমিনুর রহমান, এ্যার্টনি জেনারেল মাহবুবে আলম, হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি নজরুল ইসলাম চৌধুরী, বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার, বিচারপতি বজলুর রহমান, বিচারপতি এসএম এমদাদুল হক, বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম, বিচারপতি মুহম্মদ খুরশিদ আলম সরকার, আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১-এর চেয়ারম্যান বিচারপতি এটিএম ফজলে কবির, আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২-এর চেয়ারম্যান ওবায়দুল হাসান শাহীন, সুপ্রীমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ্যাডভোকেট এ জে মোহাম্মদ আলী, সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা এ্যাডভোকেট জয়নুল আবদিন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকারসহ সুপ্রীমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সদস্যরা।
বিচারপতি কামালউদ্দিন হোসেন ১৯৭৮ সালের ১ ফেব্রুয়ারি থেকে ১৯৮২ সালের ১১ এপ্রিল পর্যন্ত প্রধান বিচারপতি ছিলেন। তিনি ১৯৬৮ সালে পূর্ব পাকিস্তান হাইকোর্টের ডেপুটি এ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে ও পরের বছর হাইকোর্টের বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ পান। এরপর ১৯৯৮ সালে আইন কমিশনের চেয়ারম্যান হন। ২০০১ সালে অবসরে যান তিনি।
রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক ॥ রাষ্ট্রপতি এ্যাডভোকেট আবদুল হামিদ সাবেক প্রধান বিচারপতি কামাল উদ্দিন হোসেনের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। রাষ্ট্রপতি এক শোকবার্তায় বলেন, তাঁর মৃত্যুতে জাতি একজন গুণী ব্যক্তিকে হারাল। রাষ্ট্রপতি বার্তায় দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় বিচারপতি হোসেনের অবদান স্মরণ করেন। শোকবার্তায় তাঁর বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা এবং শোকাহত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান তিনি।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাবেক প্রধান বিচারপতি কামালউদ্দিন হোসেনের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব আবুল কালাম আজাদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা এবং বিচার বিভাগ আরও সমৃদ্ধ করার ক্ষেত্রে বিচারপতি হোসেনের অবদানের কথা স্মরণ করেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতি তাঁর মৃত্যুতে একজন সৎ ও দেশপ্রেমিককে হারিয়েছে। শেখ হাসিনা মরহুমের আত্মার শান্তি কামনা করেন এবং শোকাহত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান।
সাবেক প্রধান বিচারপতি কামালউদ্দিন হোসেনের মৃত্যুতে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়কমন্ত্রী ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ এবং আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী এ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। পৃথক শোক বার্তায় আইনমন্ত্রী ও আইন প্রতিমন্ত্রী মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা করেন। তাঁরা মরহুমের শোকসন্তপ্ত পরিবারবর্গ, আত্মীয়-স্বজন, সহকর্মী ও গুণগ্রাহীদের প্রতি গভীর সমবেদনা ও সহমর্মিতা জানান। আইনমন্ত্রী ও আইন প্রতিমন্ত্রী বিচারাঙ্গনে মরহুমের অবদানের কথা শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন। সাবেক প্রধান বিচারপতি কামালউদ্দিন হোসেনের মৃত্যু দেশের আইন ও বিচারাঙ্গনের জন্য এক অপূরণীয় ক্ষতি বলে তাঁরা উল্লেখ করেন।
স্পিকার ও ডেপুটি স্পিকার ॥ জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন ও ডেপুটি স্পিকার শওকত আলী সাবেক প্রধান বিচারপতি কামালউদ্দিন হোসেনের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। এক শোক বার্তায় স্পিকার বলেন, কামালউদ্দিন হোসেন একজন অসাধারণ মেধাসম্পন্ন বিচারপতি ছিলেন। তাঁর মৃত্যুতে বাংলাদেশের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে। তিনি মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।
ডেপুটি স্পিকার আরেক শোক বার্তায় বলেন, কামালউদ্দিন হোসেনের মৃত্যুতে বাংলাদেশের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে। তাঁর অবদান এদেশের মানুষ আজীবন শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করবে। তিনি মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।
জাতীয় পার্টি ॥ সাবেক প্রধান বিচারপতি কামালউদ্দিন হোসেনের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসাইন মুহম্মদ এরশাদ। এক শোক বার্তায় তিনি বলেন, মরহুম বিচারপতি কামালউদ্দিন হোসেন বিচার বিভাগে যে অসামান্য অবদান রেখে গেছেন এদেশের বিচার বিভাগে তা চিরদিন অম্লান হয়ে থাকবে। এদেশের জনগণ ও বিচার বিভাগ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ আজীবন শ্রদ্ধার সঙ্গে তাকে স্মরণ করবেন। সাবেক এই রাষ্ট্রপতি তাঁর বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবার পরিজনের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।
আরেক শোক বার্তায় জাতীয় পার্টির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার এমপিও সাবেক এই প্রধান বিচারপতি মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেন।
মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটি ॥ সাবেক প্রধান বিচারপতি কামালউদ্দিন হোসেনের মৃত্যুতে বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি কানুতোষ মজুমদার ও সাধারণ সম্পাদক মনীন্দ্র কুমার নাথ এবং মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটির সভাপতি মাসুদেব ধর ও সাধারণ সম্পাদক নির্মল কুমার চ্যাটার্জী গভীর শোক প্রকাশ করেন।
মাস্টারদা সূর্য সেন পরিষদ ॥ সাবেক প্রধান বিচারপতি কামালউদ্দিন হোসেনের মৃত্যুতে মাস্টারদা সূর্য সেন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, তাঁর মৃত্যুতে দেশ একজন অন্যতম কৃতী সন্তানকে হারাল যা কোনদিন পূরণ হওয়ার নয়। মাস্টারদা সূর্য সেন পরিষদ তাঁর বিদেহী আত্মার সুখ ও শান্তি কামনা করেছেন এবং পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা ও সহানুভূতি জ্ঞাপন করেছেন। সাবেক প্রধান বিচারপতি কামালউদ্দিন হোসেন মাস্টারদা সূর্য সেন জন্মশতবার্ষিকী উদ্যাপন পরিষদের আহ্বায়ক ছিলেন বলেও বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়।