মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৩, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২০
যুগান্তকারী রায় ॥ ড. আনোয়ার
স্টাফ রিপোর্টার ॥ কর্নেল তাহের হত্যার বিচারের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে দায়ের করা রিটের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশের পর তার ভাই ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. আনোয়ার হোসেন তাঁর প্রতিক্রিয়ায় বলেন, এটা একটা যুগান্তকারী রায়। জেনারেল জিয়ার আমলে অনেক হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। ওইসময় ছিল অন্ধকারে ঢাকা। এখন সময়ে এসেছে ওইসব কর্মকা- প্রকাশের।
তিনি বলেন, আজকের এই দিন আমাদের পবিবারের কাছে সবচেয়ে মহান। প্রায় ২০০ পৃষ্ঠায় এই পূর্ণ রায় ঘোষিত হলো। এটা শুধু বাংলাদেশের জন্য, কেবল তৃতীয় বিশ্বের জন্য নয়- পুরো বিশ্বের জন্য যুগান্তকারী একটা মাইলফলক বিচার হিসেবে পরিগণিত হবে। শত শত বছর ধরে এবং এই বিচারিক যে ইতিহাস রচিত হবে- এই পৃথিবীতে মানব সভ্যতার ইতিহাসে সেখানে এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ রায় হিসেবে বিবেচিত হবে। এই রায়ে আরও উল্লেখ আছে, কর্নেল তাহের কোন দেশদ্রোহী ব্যক্তি ছিলেন না। তিনি ছিলেন একজন মহান দেশপ্রেমিক। তিনি আরও বলেন, এই যে কালো অধ্যায় ছিল, যে সময় শত শত হত্যাকা- হয়েছে। যেগুলোর কথা কেউ জানে না। অনেকেরই কারান্তরালে মৃত্যু হয়েছে। জিয়া যেসব হত্যাকা- করেছেন, তাঁদের অনেকের লাশ পাওয়া যায়নি। আবার অনেকের নাম ঠিকানা পাওয়া যায়নি।
অধ্যাপক আনোয়ার হোসেন বলেন, আজকে বর্তমান সরকারের কাছে সুযোগ এসেছে। যে রায়ের মাধ্যমে সরকার যদি চায় তাহলে একটা উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন বিচার বিভাগীয় কমিশন গঠন করতে পারেন, তাহলে সেই অন্ধকারের ইতিহাস উন্মুক্ত করা যাবে। এই রায় সেখানে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।
কর্নেল তাহেরের স্ত্রী লুতফা তাহের তাঁর প্রতিক্রিয়ায় বলেন, আমাদের পরিবারের প্রত্যেকটা সদস্যই মুক্তিযোদ্ধা। তাঁরা যুদ্ধের ময়দানে জীবনবাজি রেখে যুদ্ধ করেছেন। যুদ্ধ করে তাঁরা একটি দেশ নিয়ে এসেছেন। সেই দেশে জিয়াউর রহমান তাহেরকে হত্যা করেছেন। এর প্রতিকার চেয়ে এসেছি। আজ এই রায়ে আমরা অত্যন্ত খুশি ও আনন্দিত।