মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
শুক্রবার, ২৫ নভেম্বর ২০১১, ১১ অগ্রহায়ন ১৪১৮
পুঁজিবাজারে ব্যাংকের বিনিয়োগ বাড়াতে চার পদক্ষেপ
কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সাকর্লার
অর্থনৈতিক রিপোর্টার॥ পুঁজিবাজারে স্থিতিশীলতা আনতে ঘোষিত প্রণোদনা প্যাকেজের আওতায় চারটি পদৰেপের বাস্তবায়ন করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। পুঁজিবাজারে বিপর্যয়ের ফলে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোতে সৃষ্ট সঙ্কট নিরসন এবং বাজারে ব্যাংকগুলোর নতুন বিনিয়োগের সৰমতা বাড়াতে বৃহস্পতিবার এ বিষয়ে সাকর্ুলার জারি করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ডিপার্টমেন্ট অব অফ-সাইট সুপারভিশন থেকে জারি করা ওই সার্কুলারে বলা হয়েছে, এখন থেকে সাবসিডিয়ারি কোম্পানিকে দেয়া মূলধনকে শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ হিসেবে ধরা হবে না। পাশাপাশি কোন কোম্পানির শেয়ারে বাণিজ্যিক ব্যাংকের দীর্ঘমেয়াদী ইকু্যয়িটি বিনিয়োগকেও শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ বলে গণ্য করা হবে না।
এর আগে ব্যাংকের মোট বিনিয়োগ হিসাবের ৰেত্রে নিজস্ব পোর্টফোলিওতে কেনা শেয়ার ছাড়াও সাবসিডিয়ারি কোম্পানিকে দেয়া মূলধন বিনিয়োগ ও প্রদেয় ঋণ এবং অন্যান্য কোম্পানিতে দীর্ঘমেয়াদী ইকু্যয়িটি বিনিয়োগকে হিসেবে ধরা হতো। এ দুটি সিদ্ধান্তের ফলে শেয়ারবাজারে ব্যাংকের নতুন বিনিয়োগের সুযোগ বৃদ্ধি পাবে।
অন্যদিকে শেয়ার ব্যবসায় নিয়োজিত কোন ব্যাংক এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সাবসিডিয়ারি কোম্পানিকে দেয়া ঋণের পরিমাণ ব্যাংকের একক গ্রাহক ঋণসীমা (সিঙ্গেল বরোয়ার এঙ্পোজার লিমিট) অতিক্রম করে থাকলে অতিরিক্ত ঋণ সমন্বয়ের সময়সীমা ২০১৩ সালের ডিসেম্বর পর্যনত্ম বাড়ানো হয়েছে। এর আগে ২০১২ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে এই ঋণ সমন্বয় করতে বলা হয়েছিল।
শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ করে ব্যাংক লোকসানে পড়লে এর বিপরীতে নিরাপত্তা জামানত (প্রভিশন) সংরৰণের ৰেত্রেও ছাড় দেয়া হয়েছে। আগে ব্যাংকগুলো যে সব শেয়ার লোকসানে রয়েছে_ শুধু তার ওপর জামানত রাখতে হতো। এর পরিবর্তে এখন থেকে লাভে থাকা শেয়ারের সঙ্গে লোকসানী শেয়ারের সমন্বয়ের (নেট অফ) ভিত্তিতে প্রভিশনের বিষয়টি নির্ধারিত হবে।
এ ছাড়া বিদেশী পোর্টফোলিও ব্যবস্থাপকদের বাংলাদেশের শেয়ারবাজারে বিনিয়োগে উৎসাহিত করতে পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। এখন থেকে বিদেশী প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীর ৰেত্রে বিদেশী ব্রোকারেজ হাউসের প্রাপ্য কমিশন প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দাখিল করা হলে দ্রম্নত প্রেরণের ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ সব পদৰেপের ফলে শেয়ারবাজারে বিদেশী তহবিল প্রবাহ বৃদ্ধি পাবে বলে এসইসি চেয়ারম্যান আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
বুধবার পুঁজিবাজার নিয়ে সিকিউরিটিজ এ্যান্ড এঙ্চেঞ্জ কমিশনের (এসইসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক খায়রম্নল হোসেন ঘোষিত প্রণোদনা প্যাকেজের মধ্যেও এ বিষয়গুলো অনত্মর্ভুক্ত ছিল। প্যাকেজ ঘোষণাকালে এসইসি চেয়ারম্যান বলেছিলেন, অর্থমন্ত্রীর পরামর্শ অনুযায়ী বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো আরও অধিক হারে পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ করতে সম্মত হয়েছে। বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় ব্যাংক ওই ঘোষণার সংশিস্নষ্ট অংশ বাস্তবায়ন করেছে।