মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
বুধবার, ২৯ জুন ২০১১, ১৫ আষাঢ় ১৪১৮
শীতলক্ষ্যায় ফেলে অপহৃত শিশুকে হত্যা, মুক্তিপণও আদায়
গ্রেফতার ৬
স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ ॥ নারায়ণগঞ্জে অপহরণ করে এক শিশুকে শীতলক্ষ্যা নদীতে ফেলে হত্যা করেছে অপহরণকারী চক্রের সদস্যরা। হত্যার পর তারা ওই শিশুর পরিবারের কাছ থেকে মুক্তিপণের এক লাখ টাকা আদায় করেছে। এ ঘটনায় র্যাব সদস্যরা দুই দফা অভিযান চালিয়ে এক নারীসহ অপহরণকারী চক্রের ৬ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে। মঙ্গলবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুলস্নার শিবু মার্কেট এলাকায় অভিযান চালিয়ে অপহরণকারী চক্রের সদস্যদের গ্রেফতার করা হয়।
গ্রেফতারকৃতরা হলো, ওয়াসিম, আব্দুস সালাম, সাদেক, স্বপন মিয়া, শাকিল আহম্মেদ ও লাকি আক্তার।
শহরের পুরনো কোর্ট এলাকায় অবস্থিত র্যাব-১১, ক্রাইম প্রিভেনশনাল স্পেশাল কোম্পানির দায়িত্বশীল এক কর্মকতর্া জানান, রবিবার সন্ধ্যা ৭টায় নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুলস্নার ধর্মগঞ্জ এলাকার আক্তার হোসেনের চার বছর বয়সী শিশু মোঃ জিহাদ অপহৃত হয়। পরে অপহরণকারীচক্রের সদস্যরা মোবাইল ফোনে শিশু জিহাদের মা মাসুদা আক্তারের কাছে তিন লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। মুক্তিপণের টাকা নিয়ে পরদিন সোমবার বিকেল ৫টায় শহরের চাষাঢ়া শহীদ মিনারের সামনে আসতে বলে, তাকে। অপহৃত শিশুর মা মাসুদা সোমবার দুপুরে বিষয়টি র্যাবকে জানান।
র্যাব-১১ এর একটি দল অপহৃত শিশুকে উদ্ধারে শহরের চাষাঢ়ায় আগে থেকে ওঁৎপেতে থাকে। কিন্তু অপহরণকারীরা মুক্তিপণের টাকা নিতে আসেনি। রাতে অপহরণকারীরা আবার মাসুদার মোবাইলে ফোন করে মুক্তিপণের টাকা নিয়ে মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৭টায় শহরের চাষাঢ়ায় এলে শিশুকে ফেরত দেয়া হবে বলে জানায়। বিষয়টি র্যাবকে জানানো হয়। অপহরণকারী চক্রের সদস্যরা মুক্তিপণের ১ লাখ টাকা নিয়ে চলে যাওয়ার সময় র্যাব সদস্যরা তাদের পিছু নেয় এবং ফতুলস্নার শিবু মার্কেট এলাকা থেকে অপহরণকারী চক্রের সদস্য মোঃ ওয়াসিম, সালাম ও সাদেককে গ্রেফতার করে। পরে তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী আরও তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়।
গেফতারকৃতরা র্যাবকে জানিয়েছে, মুক্তিপণের টাকার জন্য শিশু জিহাদকে অপহরণ করা হয়েছিল। চিনে ফেলার ভয়ে সোমবার সন্ধ্যা ৭টায় তারা কাঁচপুর ব্রিজের ওপর থেকে তোয়ালে দিয়ে মোড়ানো অবস্থায় ঘুমনত্ম শিশু জিহাদকে শীতলক্ষ্যা নদীতে ফেলে হত্যা করা হয়। হত্যার পরদিন মঙ্গলবার তারা ওই শিশুর পরিবারের কাছ থেকে মুক্তিপণের এক লাখ টাকাও আদায় করে।