মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
শুক্রবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০১১, ১৩ ফাল্গুন ১৪১৭
ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা
উপকূলীয় অঞ্চলের ৫৯৬টি ইউপিতে ২৯ মার্চ থেকে ৩ এপ্রিল ভোটগ্রহণ
স্টাফ রিপোর্টার ॥ অবশেষে বহুল প্রত্যাশিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন শুরু হচ্ছে আগামী ২৯ মার্চ থেকে। প্রথম পর্যায়ে দেশের উপকূলীয় অঞ্চলের ৫৯৬টি ইউনিয়ন পরিষদে ২৯ মার্চ থেকে ৩ এপ্রিল পর্যন্ত নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। বৃহস্পতিবার নির্বাচন কমিশন এ তফসিল ঘোষণা করে।
ইসি সচিবালয় জানায়, ২০০৩ সালে ৪ হাজারেরও বেশি ইউনিয়ন পরিষদে সর্বশেষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। তিন বছর আগেই মেয়াদ পেরিয়ে গেলেও ইউনিয়ন পরিষদের সংশোধিত আইন পাস ও মামলা সংক্রান্ত জটিলতার কারণে থমকে ছিল এ নির্বাচন। বৃহস্পতিবার ইসি সচিবালয়ের সম্মেলন কৰে স্থানীয় সরকারের তৃণমূল পর্যায়ের এ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) ড. এটিএম শামসুল হুদা। সে সময় তাঁর সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন দুই নির্বাচন কমিশনার মুহাম্মদ ছহুল হোসাইন, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) এম সাখাওয়াত হোসেন, কমিশন সচিবসহ কমিশনের সংশ্লিষ্ট উর্ধতন কর্মকতর্ারা। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, প্রথম পর্যায়ে তিনটি বিভাগের ১২টি জেলার ৭২টি উপজেলার ৫৯৬টি ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন শুরম্ন হবে। ২৯ মার্চ থেকে ৩ এপ্রিল পর্যন্ত নির্বাচন হবে। নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকতর্ার কাছে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় ৫ মার্চ। রিটার্নিং কর্মকর্তা কর্তৃক মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের শেষ সময় ৬ ও ৭ মার্চ। ১৩ মার্চ থেকে ১৮ মার্চ পর্যনত্ম প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ২৯ মার্চ থেকে ৩ এপ্রিল পর্যনত্ম।
নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, এ ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান, সংরৰিত নারী আসন ও সাধারণ আসনের মোট পদ রয়েছে ৭ হাজার ৭৪৮টি। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদের সংখ্যা ৫৯৬টি, সংরৰিত আসনের সদস্য পদ ১ হাজার ৭৮৮টি এবং সাধারণ আসনের পদ সংখ্যা ৫ হাজার ৩৬৪টি।
৫৯৬টি ইউনিয়ন পরিষদে মোট ভোটার সংখ্যা ৮৩ লাখ ৪৮ হাজার ৫১৬। এর মধ্যে পুরম্নষ ভোটার ৪১ লাখ ১ হাজার ৪৬৯ জন এবং নারী ভোটার সংখ্যা ৪২ লাখ ৪৭ হাজার ৪৭ জন। মোট ভোটকেন্দ্র রয়েছে ৫ হাজার ৬০৬টি এবং ভোট কৰ রয়েছে ২৬ হাজার ২৬৮টি।
নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের সম্মেলন কৰে তফসিল ঘোষণার সময় প্রধান নির্বাচন কমিশনার ড. এটিএম শামসুল হুদা সংবাদ সম্মেলনে বলেন, স্থানীয় সরকার নির্বাচন নির্দলীয়। তাই নির্বাচনের মনোনয়ন প্রক্রিয়ায় রাজনৈতিক দলগুলোর হসত্মৰেপ করা ঠিক নয়। তিনি বলেন, নির্বাচনে মনোনয়নপত্র গ্রহণ ও বাতিল দুটো ৰেত্রেই আপীল করা যাবে। সংশোধিত আইনে এ সুযোগ রাখা হয়েছে। মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের শেষ দিনের পর তিনদিনের মধ্যে সংশিস্নষ্ট জেলা নির্বাচন কর্মকতর্ার কাছে আপীল করতে হবে।
তিনি জানান, চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনী ব্যয় সবের্াচ্চ ৫ লাখ টাকা এবং ব্যক্তিগত ব্যয় সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করা হচ্ছে। আর মেম্বার পদে নির্বাচনী ব্যয় সর্বোচ্চ ১ লাখ টাকা এবং ব্যক্তিগত ব্যয় সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা করা যাবে।
সিইসি জানান, জাতীয় সংসদের স্পীকার, ডেপুটি স্পীকার, চিফ হুইপ, মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী, উপমন্ত্রী বা তাদের সমমর্যাদাসম্পন্ন সরকারী সুবিধাভোগী ব্যক্তিরা ভোট দেয়া ছাড়া নির্বাচনী প্রচারে অংশ নিতে পারবে না। কোন সরকারী কর্মকতর্া কোন প্রটোকল নিতে পারবেন না।
এদিকে নির্বাচন কমিশন সচিবালয় জানিয়েছে, এ নির্বাচনের প্রতীক বরাদ্দের আগে কোন প্রাথর্ী প্রচারে অংশ নিতে পারবেন না। দেয়াল লিখন, পোস্টার, ব্যানার, লিফলেট ইত্যাদি ১ মার্চের আগেই নিজ দায়িত্বে মুছে ফেলতে হবে। ১ মার্চের পর তা পাওয়া গেলে মনোনয়নপত্র বাতিল করা হবে। কোন পোস্টার বা লিফলেট কোন স্থানেই লাগানো যাবে না। ঝুলিয়ে দিতে হবে দড়ি দিয়ে। পোস্টারে মুদ্রণকারী প্রতিষ্ঠানের নাম, ঠিকানা এবং মুদ্রণের তারিখ উলেস্নখ থাকতে হবে। পোস্টারে নিজের ছবি ও প্রতীক ছাড়া অন্য কারও ছবি ব্যবহার করা যাবে না। পথসভা ও ঘরোয়া সভা ছাড়া কোন সভা করা যাবে না। মাইকিং ব্যবহার করা যাবে দুপুর ২টা থেকে রাত ৯টার মধ্যে। একসঙ্গে একটি পথসভার জন্য বা নির্বাচনী প্রচারের জন্য একটির বেশি মাইক ব্যবহার করা যাবে না।
যে ৭২ উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন ॥ প্রথম পযর্ায়ে বরিশাল, খুলনা ও চট্টগ্রাম বিভাগের ৭২ উপজেলার ৫৯৬টি ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন হবে। উপজেলাগুলো হচ্ছে- বরিশাল বিভাগের বরিশাল জেলার বরিশাল সদর উপজেলা, বাকেরগঞ্জ, বানারীপাড়া, উজিরপুর, বাবুগঞ্জ, গৌরনদী, আগৈলঝড়া, হিজলা, মুলাদী ও মেহেন্দীগঞ্জ। পটুয়াখালী জেলার পটুয়াখালী সদর, দুমকী, বাউফল, মিজর্াগঞ্জ, কলাপাড়া, গলাচিপা ও দশমিনা। পিরোজপুর জেলার নাজিরপুর, নেছারাবাদ, কাউখালী, সদর, জিয়ানগর, ভান্ডারিয়া, মঠবাড়ীয়া। বরগুনা জেলার সদর উপজেলা, আমতলী, পাথরঘাটা, বামনা ও বেতাগী। ভোলা জেলার সদর, দৌলতখান, বোরহানউদ্দিন, তজুমদ্দিন, লালমোহন, চরফ্যাশন ও মনপুরা। ঝালকাঠির সদর, নলছিটি, রাজাপুর ও কাঁঠালিয়া উপজেলা।
খুলনা বিভাগের খুলনা জেলার রূপসা, দিঘলিয়া, ফুলতলা, বটিয়াঘাটা, তেরখাদা, কয়রা, পাইকগাছা, দাকোপ ও ডুমুরিয়া উপজেলা। সাতৰীরা জেলার কলারোয়া, দেবহাটা, শ্যামনগর, কালীগঞ্জ, আশাশুনি, সদর ও তালা উপজেলা। বাগেরহাট জেলার সদর, ফকিরহাট, মোলস্নারহাট, কচুয়া, চিতলমারী, মোড়লগঞ্জ, রামপাল, মংলা ও শরণখোলা উপজেলা।
চট্টগ্রাম বিভাগের কঙ্বাজার জেলার ৮টি উপজেলার মধ্যে কুতুবদিয়া, টেকনাফ ও মহেশখালী এ তিনটি উপজেলা। লক্ষ্মীপুর জেলার ৫টি উপজেলার রামগতি ও কমলনগর এ দুটিতে নির্বাচন হবে এবং নোয়াখালী জেলার ৯টি উপজেলার মধ্যে হাতিয়া ও সুর্বণচরে নির্বাচন হবে।
নির্বাচন কমিশন সচিবালয় জানিয়েছে, দেশে মোট ইউনিয়ন পরিষদের সংখ্যা ৪ হাজার ৫০৫টি। এর মধ্যে নির্বাচনযোগ্য ইউনিয়ন পরিষদের সংখ্যা ৪ হাজার ৩শ'টি। মেয়াদ উত্তীর্ণ না হওয়া, মামলা ও নানা কারণে নির্বাচনের অনুপযোগী ২০৫টি ইউনিয়ন পরিষদ।