মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
বৃহস্পতিবার, ৬ জানুয়ারী ২০১১, ২৩ পৌষ ১৪১৭
যোগ্যতাসম্পন্ন অধিনায়ক হবেন কি সামি?
রুমেল খান ॥ সবাই সবকিছু হতে পারে না (তবে ব্যতিক্রমও আছে)। ভাল ছাত্র হলেই যেমন ভাল শিক্ষক হওয়া যায় না, তেমনি ভাল খেলোয়াড় হলেই ভাল কোচ হওয়া যায় না। তেন্ডুলকর-লারা গ্রেট ক্রিকেটার, কিন্তু গ্রেট ক্যাপ্টেন নন। আবার অনেক সাধারণ বা গড়পড়তা মানের ক্রিকেটার অধিনায়ক হিসেবে দারম্নণ সফল। যেমন ইংল্যান্ডের মাইক ব্রিয়ারলি। সর্বকালের সেরা টেস্ট অলরাউন্ডার হিসেবে যাঁকে ধরা হয়, ওয়েস্ট ইন্ডিজের সেই গারফিল্ড সেন্ট আব্রান সোবার্স, যাঁকে ক্রিকেটবিশ্ব স্যার গ্যারি সোবার্স নামেই বেশি চেনে; তিনি তাঁর লেখা 'ক্রিকেট এ্যাডভান্স' বইয়ে ক্যাপ্টেন হবার যোগ্যতা নিয়ে লিখেছেন, "ওয়েস্ট ইন্ডিজের অধিনায়ককে একসঙ্গে আধ ডজন মানুষ হতে হবে। জুয়াড়ির মতো হতে হবে তাঁর স্নায়ুর জোর, ব্যবসা-বাণিজ্য বা শিল্পে যিনি অর্থ লগি্ন করেন, তাঁর মতো ঠাণ্ডা মাথার মানুষ হতে হবে তাঁকে, মনোবিদের মতো তিনি বুঝবেন মানুষের মন, ক্রিকেট-বুদ্ধিতে তিনি এগিয়ে থাকবেন দশ বছর। এবং তাঁর ধৈর্য হতে হবে সাধুসন্তের মতো। আর তাঁকে তো বড় ক্রিকেটার হতেই হবে।" ক্রিকেটার হিসেবে সোবার্সের নৈপুণ্য ছিল অন্য সবার চেয়ে অনেক বেশি (টেস্ট-৯৩, রান-৮০৩২, শত-২৬, ৫০-৩০, উইকেট-২৩৫, ক্যাচ-১০৯)। তবুও তিনি সফল অধিনায়ক হতে পারেননি। ক্যারিবীয় দলের হয়ে ১৯৬৫ থেকে ১৯৭২ সাল পর্যন্ত মোট ৩৯ টেস্টে ক্যাপ্টেন্সি করেছেন। জিতেছেন ৯ ম্যাচে, হেরেছেন ১০ ম্যাচে, ড্র করেছেন বাকি ২০টিতে। পরিসংখ্যানেই বোঝা যায়, সোবার্সের ক্যাপ্টেন্সি যেভাবে বিকশিত হবার কথা ছিল, সেভাবে হয়নি। ক্রিকেটে ছয় বলে ছয় ছক্কা হাঁকানোর পথিকৃৎ সোবার্স তাঁর ২০ বছরের ক্রিকেট ক্যারিয়ারে ওয়ানডে খেলেছেন মাত্র একটি! সেটা ১৯৭৩ সালের ৫ সেপ্টেম্বর লিডসে; ইংল্যান্ডের বিরম্নদ্ধে। টসে জিতলেও সে ম্যাচে ৩ বল আগে থাকতে ক্যারিবীয়রা হেরেছিল ১ উইকেটে। ব্যাটিংয়ে ছয় নম্বরে নেমে ছয় বল খেলে 'শূন্য' রান করে ক্রিস ওল্ডের বলে কট বিহাইন্ড হয়েছিলেন উইকেটকীপার বব টেলরের হাতে। তবে বল হাতে ১০.৩ ওভারে (ম্যাচটি ছিল ৫৫ ওভারের) ৩ মেডেন ও ৩১ রান দিয়ে পেয়েছিলেন ১ উইকেট। মজার ব্যাপার, উইকেটটি ছিল ক্রিস ওল্ডের!
কখনও বিশ্বকাপ না খেললেও গ্যারি সোবার্সের সেই 'যোগ্যতাসম্পন্ন ক্যারিবীয় ক্যাপ্টেন' কি এবারের আসন্ন দশম বিশ্বকাপে দেখতে পাবে ক্রিকেটবিশ্ব? ক্রিস গেইল এখন আর ক্যাপ্টেন নন। নতুন অধিনায়ক ড্যারেন সামি। এ পর্যনত্ম ৩ টেস্টে নেতৃত্ব দিয়ে ড্র করেছেন প্রতিটিতেই। আর ওয়ানডেতে ক্যাপ্টেন হয়েছেন ২ ম্যাচে। জিতেছেন সবটাতেই। যদি এবারের বিশ্বকাপে অধিনায়ক হিসেবে তিনিই থাকেন, তাহলে তাঁর অধিনায়কত্বের চরম পরীৰাটা হয়ে যাবে এবারই। তিনি কি পারবেন পূর্বসূরি ক্লাইভ লয়েডের ১৯৭৫ ও ১৯৭৯ সালের মতো ওয়েস্ট ইন্ডিজকে আবারও বিশ্বকাপের শিরোপা এনে দিতে? কাজটা নিঃসন্দেহে কঠিন। কেননা, ক্যারিবীয়দের সেই স্বর্ণ সময় আগের মতো আর নেই। তবে দলটিতে আছেন এমন কিছু ক্রিকেটার, যাঁদের সম্মিলিত প্রয়াসে ৰয়িষ্ণু ক্যারিবীয় দলের আবার সুদিন ফিরে আসতেও পারে। সেটা আসন্ন বিশ্বকাপেই। সামি কি পারবেন সোবার্সের মতো যোগ্যতাসম্পন্ন অধিনায়ক হিসেবে উদ্ভাসিত নৈপুণ্য দেখিয়ে ইতিহাসের পাতায় ঠাঁই করে নিতে?