মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
বৃহস্পতিবার, ৬ জানুয়ারী ২০১১, ২৩ পৌষ ১৪১৭
সরকার পুরোপুরি ব্যর্থ, দু'বছরে কোন অগ্রগতি নেই
বিএনপি নেতাদের দাবি
স্টাফ রিপোর্টার ॥ আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকারের গত দুই বছরে দেশ ও জাতির বিন্দুমাত্র অগ্রগতি হয়নি বলে অভিযোগ প্রধান বিরোধী দল বিএনপির। দেশ পরিচালনায় সরকার পুরোপুরি ব্যর্থ বলেও কঠোর সমালোচনা করেন দলটির নেতারা। জাতীয় সংসদ সার্বভৌম নয়_ মনত্মব্য করে সংসদ ভেঙ্গে দিয়ে মধ্যবর্তী নির্বাচনের দাবি জানান তাঁরা।
এদিকে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, গত দুই বছরে সরকারের কাছ থেকে দেশ ও জাতির কোন প্রাপ্তি নেই। সরকারের কর্মকাণ্ডে দেশের মানুষ হতাশ। আগামী ৩ বছরেও আওয়ামী লীগ সরকার জাতির কোন প্রত্যাশা পূরণ করতে পারবে না, ব্যর্থতা আরও বাড়বে বলে মন্তব্য করেন তিনি।
স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, মহাজোট সরকারের হানিমুন পিরিয়ড শেষ। নির্বাচনী প্রতিশ্রুতির বাস্তবায়ন নেই, ব্যর্থতার পাল্লা ভারি। দুই বছরে দুর্নীতিতে সরকার সকল রেকর্ড ভঙ্গ করেছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।
বুধবার সকালে ও বিকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে মহাজোট সরকারের দুই বছর : প্রতিশ্রুতি, জনগণের প্রত্যাশা ও বাসত্মবতা শীর্ষক পৃথক দু'টি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য এই দুই নেতা।
ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, গত দুই বছরে সরকার গণতন্ত্রকে ধ্বংস ও রাজনীতিকে সংঘর্ষের দিকে নিয়ে অতীতের সব রেকর্ড ভঙ্গ করেছে। বর্তমানে গণতন্ত্র হুমকির সম্মুখীন। গণতন্ত্রের পরিবর্তে সরকার বাকশালী শাসন কায়েম করছে। সংসদীয় গণতন্ত্রে বিরোধী দল সরকারেরই অংশ। কিন্তু বর্তমান সরকার সংসদকে ব্যবহার করে শহীদ জিয়াউর রহমান সম্পর্কে এমন কোন কটূক্তি নেই যা করেনি। গত দুই বছরে জিয়ার নাম মুছে ফেলা এবং তাঁর পরিবারকে ধ্বংস করার ষড়যন্ত্র করা হয়েছে। রাজনৈতিক মামলা প্রত্যাহারে দুই নীতি অবলম্বন করা হয়েছে।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কঠোর সমালোচনা করে ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, দুই বছরে দেশ পরিচালনায় সরকার পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছে। নির্বাচনী ইশতেহারে আওয়ামী লীগ যে অঙ্গীকারের কথা বলেছিল, তাতেও আওয়ামী লীগ সফল হতে পারেনি। মূলত বর্তমান সরকার বিদেশীদের স্বার্থ রক্ষায় কাজ করছে। বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে দেশ রৰা ও মানুষ বাঁচানোর আন্দোলনে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।
এদিকে সংসদ সার্বভৌম নয়_ সুপ্রীমকোর্টের এ বক্তব্যকে সমর্থন জানিয়ে ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, এ বক্তব্যের পেছনে অনত্মর্নিহিত কারণ আছে। এটি সরকারের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ। আওয়ামী লীগের উপদেষ্টাম-লীর সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত যে দাবি করেছেন, সে দাবি প্রমাণে তাঁর প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে তিনি বলেন, সংসদ কীভাবে সার্বভৌম তা প্রমাণ করে দেখান। সংসদের অংশ দেখলে বোঝা যায়, বাজেট ও আইন_ সবকিছুই একদলীয়ভাবে পাস হচ্ছে। প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, এখন যদি সুপ্রীমকোর্ট বলে, সংসদ সার্বভৌম নয়, তাহলে সরকার প্রমাণ করে দেখাক।
সরকারের সাফল্যের চেয়ে ব্যর্থতার পালস্না অনেক ভারি উলেস্নখ করে মওদুদ আহমদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী দুই বছরপূর্তি উপলৰে তাঁর ভাষণে সফলতার ফিরিসত্মি দেবেন। কিন্তু সাধারণ মানুষ গ্রামাঞ্চলে এ সরকারের দুর্বৃত্তায়ন, দুর্নীতি, দ্রব্যমূল্যের উর্ধগতির বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করছে। সেদিকে সরকারের কোন নজর নেই বলেও মনত্মব্য করেন তিনি।