মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
বৃহস্পতিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১১, ১ পৌষ ১৪১৮
কৃষকদের টাকা আত্মসাতের প্রতিবাদে বিক্ষোভ
নিজস্ব সংবাদদাতা, শরীয়তপুর, ১৪ ডিসেম্বর ॥ বুধবার সকালে জেলার গোসাইরহাট উপজেলা কৃষি অফিসের সামনে বিৰোভ মিছিল, সমাবেশ ও জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি পেশ করেছে কৃষকরা। উপজেলা কৃষি অফিসে কৃষকরা ভর্তুকির টাকা জমা দিয়েও সরকারীভাবে বরাদ্দকৃত পাওয়ার টিলার না পাওয়ার প্রতিবাদে কৃষকরা এ বিৰোভ মিছিল ও সমাবেশ করে। মিছিল শেষে উপজেলা পরিষদ সভাকৰে কৃষকরা এক সমাবেশে মিলিত হয়। এ সময় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ ফজলুল হক ঢালী উপস্থিত ছিলেন। জানা গেছে, কৃষি সমপ্রসারণ অধিদফতরের অধীনে গোসাইরহাট উপজেলার কৃষকদের জন্য ৫০টি যান্ত্রিক পাওয়ার টিলার ভতর্ুকি মূল্যে বরাদ্দ দেয় সরকার। এসব পাওয়ার টিলার প্রকৃত কৃষকদের মধ্যে ২৫% ভাগ ভতর্ুকি মূল্যে বিতরণের জন্য যাচাইবাছাই শেষে তালিকা করে গোসাইরহাট উপজেলা কৃষি অফিস। উপজেলা কৃষি বিভাগ কমিটির সদস্যদের নিয়ে যাচাইবাছাই শেষে ৫০ কৃষকের নামের তালিকা তৈরি করে অনুমোদন দেয়। তালিকা অনুযায়ী প্রত্যেক কৃষকের কাছ থেকে ২ হাজার ৫শ' টাকা করে নিয়ে তাদের সঙ্গে উপজেলা কৃষি অফিস স্ট্যাম্পে পাওয়ার টিলার দেয়ার চুক্তি করে। গত বছরের জুন মাসে সময়মতো উপজেলা কৃষি অফিস ছাড়পত্র না দেয়ায় ঐসব কৃষক পাওয়ার টিলার সরবরাহ করতে পারেনি। চলতি বছর ঐসব কৃষককে বাদ দিয়ে কিছুসংখ্যক প্রভাবশালীর সঙ্গে কৃষি অফিসের কর্মকর্তারা যোগসাজশে নতুন কৃষকদের কাছ থেকে পুনরায় ভতর্ুকির টাকা গ্রহণ করে এবং তাদের নামের তালিকা তৈরি করে পাওয়ার টিলার সরবরাহ করার ছাড়পত্র বিতরণ শুরম্ন করে। এতে উপজেলার প্রকৃত কৃষকরা বাদ পড়ে যায়। উপজেলার কুচাইপট্টি গ্রামের কৃষক জহিরম্নল ইসলাম জানান, সরকারী নিয়মনীতি উপেৰা করে প্রকৃত কৃষকদের বাদ দিয়ে প্রভাবশালীদের সঙ্গে যোগসাজশে ভ্যানচালক, রিঙ্াচালক ও কাঠমিস্ত্রিদের পাওয়ার টিলার দেয়ার নামের তালিকা তৈরি করা হয়েছে।