মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
বুধবার, ৩ আগষ্ট ২০১১, ১৯ শ্রাবণ ১৪১৮
মাদারীপুর আদালতে অপ্রীতিকর ঘটনা ॥ আহত ২০
নিজস্ব সংবাদদাতা, মাদারীপুর, ২ আগস্ট ॥ মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার বাজিতপুর ইউনিয়নের আড়ুয়াকান্দি গ্রামের মনু বিশ্বাস হত্যার বিচার চাইতে এসে ৫ শতাধিক নারী-পুরম্নষ মিছিল নিয়ে মঙ্গলবার বেলা ১১টায় সরাসরি আদালত ভবনে প্রবেশ করে। এ সময় পুলিশ ও মুহুরিদের যৌথ হামলার শিকার হয় তারা। পুলিশ ও মুহুরিরা লাঠি ও বাঁশ দিয়ে পিটিয়ে এবং ইটপাটকেল নিৰেপ করে প্রায় ২০ জনকে আহত করে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ১৪ গ্রামবাসীকে আটক করেছে।
জানা গেছে, ট্রাক ও নসিমনযোগে রাজৈর উপজেলার আড়ুয়াকান্দি গ্রাম থেকে ৫ শতাধিক নারী-পুরম্নষ মাদারীপুর আদালত চত্বরে এসে বিচার দাবিতে মিছিল করে। নিরীহ ও অজ্ঞ গ্রামবাসী বিচারকের কাছে স্মারকলিপি দিতে বিৰোভ মিছিল নিয়ে দোতলায় উঠার চেষ্টা করলে আইনজীবীর সহকারী (মুহুরি) ও পুলিশ তাদের এলোপাতাড়ি পিটাতে থাকে। আকস্মিক মুহুরি ও পুলিশের হামলায় বৃদ্ধ নারী-পুরম্নষ ও শিশুবাচ্চা কোলে নিয়ে আসা গৃহবধূরা হতভম্ব হয়ে এদিক-সেদিক ছোটাছুটি করতে থাকে। এ সময় ২০ গ্রামবাসী আহত হয়। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ১৪ গ্রামবাসীকে আটক করে।
গ্রামবাসীর দাবি, মনু বিশ্বাস হত্যাকা-ের ঘটনায় মুহুরি সুভাষ বিশ্বাসের বিচার দাবি করায় আদালত চত্বরে মুহুরিরা পুলিশ নিয়ে নিরীহ গ্রামবাসীর ওপর হামলা চালায়।
আড়ুয়াকান্দি গ্রামের বাসিন্দা গোবিন্দ বিশ্বাস জানান, বিচার দাবিতে দুই শতাধিক নারী ও শিশুসহ আসা নিরীহ পাঁচ শতাধিক গ্রামবাসী অজ্ঞতাবশতই মিছিল নিয়ে আদালতের ঢোকার চেষ্টা করে। এ সময় সুভাষ বিশ্বাসের সহযোগী মুহুরিরা পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে হামলা চালায়। তাদের ইটপাটকেল ও লাঠির আঘাতে ২০ জনের বেশি গ্রামবাসী আহত হয়েছে। তাদের হাতে নারীরাও রেহাই পায়নি। আহতরা হলেন-কমলা বিশ্বাস, অর্চনা বিশ্বাস, শিখা বিশ্বাস, অঞ্জনা বিশ্বাস, গৌরী সরকার, রানী ম-ল, মালতী বাড়ৈ, রণজিত বাড়ৈ, গোবিন্দ বিশ্বাস, রণজিত পা-ে, অসীম পা-ে, অশোক সরকার, অমল সরকার, মোসত্মফা মাতুব্বর, ভুলু মাতুব্বর। আহতরা পুলিশ ও মুহুরিদের ভয়ে হাসপাতালে যেতে পারেনি। তাদের স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
উলেস্নখ্য, গত ২৮ জুলাই রাতে জমিজমা নিয়ে পূর্বশত্রম্নতার জের ধরে পাশের বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে মুহুরি সুভাষ বিশ্বাস ও তার লোকজন মনু বিশ্বাসকে পিটিয়ে গুরম্নতর জখম করে। পরে তার মুখে বিষ ঢেলে দেয়া হয়। হাসপাতালে নেয়ার পথে সে মারা যায়। এই ঘটনায় পরের একটি মামলা হলে পুলিশ মুহুরি সুভাষ বিশ্বাসকে আটক করে।