মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
রবিবার, ১০ জুলাই ২০১১, ২৬ আষাঢ় ১৪১৮
বিরোধী দল ধর্মভীরু মানুষকে বিভ্রান্ত করছে ॥ মতিয়া চৌধুরী
নিজস্ব সংবাদদাতা, শেরপুর, ৯ জুলাই ॥ কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, শেখ হাসিনার সরকার কখনও জনগণের আমানত খেয়ানত করে না। আদালতের নির্দেশনা মোতাবেক সংবিধান সংশোধন করা হলেও সংবিধানে রাষ্ট্রধর্ম 'ইসলাম' ও 'বিসমিলস্নাহির রহমানির রাহিম' বহাল রাখা হয়েছে। তারপরও বিএনপি-জামায়াতসহ কিছু ধর্মভিত্তিক দল ঘোলাপানিতে মাছ শিকারের মতো সংবিধান থেকে আলস্নাহর নাম বাদ দেয়া হয়েছে বলে অপপ্রচার চালিয়ে হরতাল দিয়ে অরাজকতা সৃষ্টি করে ধর্মভীরম্নু মানুষকে বিভ্রানত্ম ও সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ সৃষ্টি করছে।
কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী শনিবার সকালে নকলা উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে টিআর প্রকল্পের বাসত্মবায়ন কার্যক্রম পর্যলোচনা ও চেক বিতরণ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন। নকলা উপজেলা চেয়ারম্যান শাহ মোঃ বোরহান উদ্দিনের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট নিরঞ্জন দেবনাথ, ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান, নকলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হানিফ উদ্দিন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান লিটন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দা উম্মে কুলছুম ও উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি গোলাম রব্বানীসহ স্থানীয় সরকারী বেসরকারী কর্মকর্তা, অন্যান্য জনপ্রতিনিধি ও দলীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
বিকেলে কৃষিমন্ত্রী নালিতাবাড়ী উপজেলা পাবলিক হল মিলনায়তনে উপজেলার টিআর প্রকল্পের বিপরীতে নগদ অর্থ চেক আকারে ৮৬ লাখ টাকা বিতরণ করেন।

ধামইরহাটে ফসল গুঁড়িয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা !
নিজস্ব সংবাদদাতা, নওগাঁ, ৯ জুলাই ॥ ধামইরহাট উপজেলার পশ্চিম চাঁদপুর গ্রামের প্রতিপৰের জমিতে লাগানো কলাগাছ, আকাশমণি, আখ ও হলুদের ৰেত প্রকাশ্য দিবালোকে ধ্বংস করে দিয়েছে। শুক্রবার রাতে উপজেলার পশ্চিম চাঁদপুর গ্রামের খাইরম্নল ইসলাম ও মোতালেব হোসেন ধামইরহাট প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন। তাঁরা বলেন, একই মৌজায় অবস্থিত তাঁদেরসহ আরও কয়েকজনের জমিতে রোপিত কলাগাছ, আকাশমণি, আখ ও হলুদ ৰেত একই গ্রামের বাবলু (নাটোরা), শহিদুল, মিরাজ, মিলাদ ও হুমায়নের নেতৃত্বে একদল দুর্বৃত্ত বুধবার সকালে প্রকাশ্য দিবালোকে গাছ কেটে এবং কলা ও হলুদ লুটপাট করে নিয়ে যায়।