মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
সোমবার, ১ ডিসেম্বর ২০১৪, ১৭ অগ্রহায়ন ১৪২১
জয়ের জন্যই খেলতে চাই ॥ মাসাকাদজা
জিম্বাবুইয়ের অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান মনে করেন হোয়াইটওয়াশ এড়ানো সম্ভব
স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আর একটি ম্যাচ হারলেই হোয়াইটওয়াশের লজ্জা। ইতোমধ্যেই সিরিজ হারিয়েছে সফরকারী জিম্বাবুইয়ে। তাই আর সেটা নিয়ে চিন্তা করে লাভ নেই। আগের চারটি ওয়ানডে নিয়ে তাই কোন দুশ্চিন্তা করছে না দলের কেউ। এবার সামনে এগিয়ে যাওয়ার দিকে দৃষ্টি সবার। পঞ্চম ও শেষ ওয়ানডেতে তাই জয়ের লক্ষ্যেই মাঠে নামবে জিম্বাবুইয়ে। বাংলাদেশকে হারানোর সামর্থ্য আছে কিন্তু ব্যাটিং-বোলিং একই সঙ্গে জ্বলে না ওঠার কারণে হারতে হয়েছে। আজ সিরিজের শেষ ম্যাচের আগে রবিবার সকালে দীর্ঘ তিন ঘণ্টার অনুশীলন শেষে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বললেন জিম্বাবুইয়ের টপঅর্ডার অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান হ্যামিল্টন মাসাকাদজা। তিনি মনে করেন সর্বশেষ ম্যাচে যেভাবে দল খেলেছে সেটাই বাড়তি আত্মবিশ্বাস যোগাবে দলকে। বাংলাদেশের বিরুদ্ধে হোয়াইটওয়াশ এড়াতে পারবে দল এমনটাই প্রত্যয় মাসাকাদজার কণ্ঠে।
প্রশ্ন ॥ আপনার কি মনে হয় ৫-০ ব্যবধানে হোয়াইটওয়াশ এড়াতে পারবেন?
মাসাকাদজা ॥ আমি তাই মনে করি। আমরা সম্ভবত বেশ কয়েকটি ম্যাচে ভালভাবেই ছিলাম। কিন্তু কয়েকটি ম্যাচে খুবই বাজেভাবে হেরেছি। কিন্তু অন্য দুটিতে আমরা অন্যভাবেই এসেছি। আমরা সেটাকে শেষ পর্যন্ত টেনে নিতে পারিনি। কিন্তু আমার মনে হয় সবার মধ্যে সেটা এখনও কাজ করছে।
প্রশ্ন ॥ অনেক সমন্বয় গড়ে প্রচেষ্টা চালিয়েছেন আপনারা। শেষ ম্যাচে নতুন করে কি দেয়ার আছে?
মাসাকাদজা ॥ অধিকাংশ ম্যাচেই আমাদের যদি একটা অংশ কাজ করেছে তবে অন্যটা করেনি। আমরা যখন ভাল বোলিং করেছি, ব্যাটিং ভাল করতে পারিনি আবার ব্যাটিং ভাল করলে বোলিং খারাপ করেছি। তাই আমি মনে করি শেষ পর্যন্ত আমরা যখন ভাল করতে পারব তখনই আমরা জিততে পারব।
প্রশ্ন ॥ শেষ ম্যাচে তাহলে কি জিম্বাবুইয়ের কাছ থেকে আগের চেয়ে উন্নতি লক্ষ্য করা যাবে?
মাসাকাদজা ॥ হ্যাঁ, অবশ্যই। আমি তাই মনে করি। সব ম্যাচেই বলতে গেলে আমরা নাজেহাল হয়েছি। সুতরাং আমি মনে করি যে কয়টি ম্যাচে আমরা ভাল করেছি সেটাই আমাদের জন্য আত্মবিশ্বাস হবে। সর্বশেষ ম্যাচে আমরা ৩০ রানে চার উইকেট ফেলে দিয়েছিলাম। আমরা যদিও শেষ পর্যন্ত নিজেদের সাফল্যটা ধরে রাখতে পারিনি কিন্তু আমার মনে হয় ম্যাচ জেতার সব সুযোগই আমাদের ছিল।
প্রশ্ন ॥ বাংলাদেশের পেসারদের কেমন মনে হয়েছে?
মাসাকাদজা ॥ আমি মনে করি সিমাররা খুব ভাল বোলিং করেছেন। নিশ্চিতভাবেই স্পিনাররা আমাদের অনেক বেশি সমস্যায় ফেলেছেন সিমারদের তুলনায়। কিন্তু যতটা আমরা ভেবেছিলাম তারচেয়ে বেশিই সমস্যা তৈরি করেছেন তাঁরা (পেসাররা)। আমার মনে হয় বাংলাদেশের অনেক সিমার আছেন ভাল করার।
প্রশ্ন ॥ কামুনগোজি ও সলোমন মিরে বেশ ভাল করেছেন। তাঁদের বিষয়ে আপনার মনোভাব কী? বিশ্বকাপে ভাল কিছু প্রত্যাশা করছেন?
মাসাকাদজা ॥ কামুনগোজি এমন একজন যার অভিষেক বেশ আগেই হয়েছে। তবে তিনি দলে আসা-যাওয়ার মধ্যে ছিলেন। এখন তিনি খুব ভালভাবে ফিরেছেন। সেটা আমারদের জন্য অনেক বড় ইতিবাচক বিষয়। আমরা তাঁর দিকে (সলোমন) তাকিয়ে আছি। তিনি অস্ট্রেলিয়ায় অনেকদিন খেলেছেন এবং এখন আমাদের হয়ে খেলতে ফিরে এসেছেন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ভালভাবেই যাত্রা শুরু করেছেন তিনি।
প্রশ্ন ॥ জিম্বাবুইয়ের পেসাররা পুরো সিরিজেই দারুণ বোলিং করেছেন। কাইল জারভিস কিংবা ব্রায়ান ভিটোরিরা থাকলে কি আরেকটু ভাল হতো?
মাসাকাদজা ॥ না, আমি মনে করি আমাদের এখন যেসব সিমার এ সফরে আছেন তাঁরা অনেক ভাল বোলিং করেছেন। সে কারণে আমার মনে হয় না খুব বেশি পার্থক্য হতো। এখানে যারা আছেন সবাই বেশ ভাল খেলেছেন।
প্রশ্ন ॥ আপনার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে কঠিন সিরিজ খেলছেন বলে মনে হচ্ছে?
মাসাকাদজা ॥ আমরা এরচেয়েও খারাপ সময় কাটিয়েছি। এখন সবকিছুই অনেক কঠিন হয়ে গেছে। কিন্তু সত্যিই আমরা খারাপ সময়ের মধ্যে আছি। কিন্তু আমরা শেষ ম্যাচে জয়ের লক্ষ্যেই নামব।
প্রশ্ন ॥ পানিয়াঙ্গারা সর্বশেষ ম্যাচ খেলেননি। তিনি কি এ ম্যাচে ফিরবেন?
মাসাকাদজা ॥ এখন পর্যন্ত একাদশ ঘোষণা করা হয়নি। তাঁকে শুধু বিশ্রাম দেয়া হয়েছিল গত ম্যাচে।