মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
সোমবার, ২৮ অক্টোবর ২০১৩, ১৩ কার্তিক ১৪২০
সুয়ারেজের হ্যাটট্রিকে লিভারপুলের জয়
স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগ ফুটবলে জয়ে ফিরেছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও লিভারপুল। শনিবার অনুষ্ঠিত ম্যাচে দুবার পিছিয়ে পড়েও আসরের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ম্যানইউ ৩-২ গোলে পরাজিত করে স্টোক সিটিকে। উরুগুইয়ান তারকা লুইস সুয়ারেজের হ্যাটট্রিকে লিভারপুল ৪-১ গোলে উড়িয়ে দেয় ওয়েস্ট ব্রুমউইচকে। পরশুর অন্যান্য ম্যাচে এভারটন ২-০ গোলে এ্যাস্টন ভিলাকে ও সাউদাম্পটন একই ব্যবধানে হারিয়ে দেয় ফুলহ্যামকে। নরউইচ সিটি ও কার্ডিফ সিটির মধ্যকার অপর ম্যাচটি গোলশূন্য ড্র হয়।
লিভারপুল, ম্যানইউর জয়ের রাতে পূর্ণ পয়েন্ট পেয়েছে আর্সেনালও। এ্যাওয়ে ম্যাচ গানার্সরা ২-০ গোলে পরাজিত করে ক্রিস্টাল প্যালেসকে। এই জয়ে ৯ ম্যাচ শেষে ২২ পয়েন্ট নিয়ে ইপিএলের শীর্ষে আর্সেনাল। সমান ম্যাচে ২০ পয়েন্ট নিয়ে লিভারপুল দ্বিতীয়। ১৮ পয়েন্ট করে নিয়ে যথাক্রমে তৃতীয় ও চতুর্থ স্থানে সাউদাম্পটন ও এভারটন। ১৭ পয়েন্ট নিয়ে চেলসির অবস্থান পঞ্চম। ষষ্ঠ, সপ্তম ও অষ্টম স্থানে যথাক্রমে ম্যানসিটি, টটেনহ্যাম ও ম্যানইউ। অবশ্য গত রাতের ম্যাচের পর অবস্থানের উন্নতি হতে পারে চেলসি কিংবা সিটির। চলতি মৌসুমে দুর্দশার মধ্যে থাকা ম্যানইউকে তাদের ঘরের মাঠ ওল্ড ট্রাফোর্ডে শুরুতেই চমকে দেয় অতিথি স্টোক সিট। চতুর্থ মিনিটে স্ট্রাইকার পিটার ক্রাউচের গোলে পিছিয়ে পড়ে ম্যানইউ। ৪৩ মিনিটে স্বাগতিকদের সমতায় ফেরান ডাচ্ স্ট্রাইকার রবিন ভ্যান পার্সি। সমতায় ফেরার পর স্বস্তি অবশ্য বেশিক্ষণ উপভোগ করতে পারেনি আসরের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। বিরতির বাঁশি বাজার ঠিক আগ মুহূর্তে অস্ট্রিয়ান ফরোয়ার্ড মার্কো আর্নোতোভিচের গোলে আবার এগিয়ে যায় স্টোক সিটি। বিরতির পর গোল পরিশোধের জন্য মরিয়া হয়ে খেলতে থাকে রেড ডেভিলসরা। সাবেক কোচ স্যার এ্যালেক্স ফার্গুসনের উপস্থিতিতে অনুপ্রাণিত হয়ে খেলতে থাকেন রুনি, ন্যানি, পার্সিরা। যে কারণে ৭৮ মিনিটে গোল করে ম্যানইউকে সমতায় ফেরান রুনি। দুই মিনিট পর জয়সূচক গোল করেন মেক্সিকান স্ট্রাইকার জাভিয়ের হার্নান্দেজ। ম্যাচ শেষে সমর্থকদের ধন্যবাদ জানিয়ে ম্যানইউ কোচ ডেভিড মোয়েস বলেন, শেষ ১৫-২০ মিনিট সমর্থকরা দলকে দারুণ উৎসাহ জুগিয়েছে। যে কারণে পিছিয়ে থেকেও জয় পাওয়া সহজ হয়েছে। তাদের ধন্যবাদ। স্টোক সিটি কোচ মার্ক হিউজেস বলেন, আমরা শুরু থেকে ভাল খেলেছি। জয়ের দিকেই এগিয়ে যাচ্ছিলাম। সুবিধাজনক অবস্থায় থেকে এমন পরাজয় হতাশাজনক। ঘরের মাঠ এ্যানফিল্ডে সুয়ারেজ হ্যাটট্রিক পূরণ করেন ১২, ১৭ ও ৫৫ মিনিটে। এর ফলে লীগে চার ম্যাচ খেলে সুয়ারেজের গোলসংখ্যা দাঁড়াল ৬টি। নিষেধাজ্ঞার কারণে ইপিএলের প্রথম পাঁচ ম্যাচ খেলতে পারেননি উরুগুইয়ান তারকা। লিভারপুলের অন্য গোলটি করেন স্ট্রাইকার ড্যানিয়েল স্টারিজ। অতিথি ওয়েস্টব্রমের হয়ে সান্ত¡নাসূচক গোলদাতা স্কটল্যান্ডের ফরোয়ার্ড জেমস মরিসন। পেনাল্টি থেকে গোলটি করেন তিনি। পরশু রাতে ফুটবল-বিশ্বের দৃষ্টি এল ক্লাসিকোর দিকে থাকলেও সেটি কিছুটা হলেও নিজের দিকে ফিরিয়ে আনেন সুয়ারেজ। ম্যাচের শুরু থেকেই প্রতিপক্ষের রক্ষণভাগে ভীতি ছড়াতে থাকেন তিনি। শেষ পর্যন্ত তিনিই হয়ে ওঠেন অতিথিদের যমদূত। দারুণ এ জয়ের পর লিভারপুল কোচ ও অধিনায়ক সুয়ারেজের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন।