মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
শুক্রবার, ৩০ ডিসেম্বর ২০১১, ১৬ পৌষ ১৪১৮
বিপিএলের বর্ণিল লোগো উন্মোচন
স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ক্রীড়া নৈপুণ্য কিংবা ক্রীড়া শৈলী লেখার মাধ্যমে রিপোর্টাররা খেলাধুলাকে অনেক সময় শিল্পের পর্যায়ে নিয়ে যায়। তবু ক্রিকেটের অনুষ্ঠানে দেশ বিখ্যাত চিত্রশিল্পীদের আঁকাআঁকি নিশ্চয়ই অভিনব এক সংযোজন। গতকাল বিপিএল টি২০'র লোগো উন্মোচন অনুষ্ঠানে তেমনই অনেকগুলো আনন্দমুখর বিষয় উপভোগ করল সবাই। ভারতের আইপিএল আদলে বাংলাদেশে শুরু হতে যাওয়া বিপিএলের আনুষ্ঠানিক লোগো উন্মোচন ছিল গতকাল স্থানীয় এক ফাইভ স্টার হোটেলে। নিপুণ আয়োজনে পুরো অনুষ্ঠানের পরতে পরতে ছিল চমক। যদিও নির্ধারিত সময়ের চেয়ে প্রায় এক ঘণ্টা দেরিতে শুরম্ন হওয়ায় বিরক্ত হন অনেকে। তবু দেশসেরা বর্তমান ও সাবেক ক্রিকেটার, কর্মকর্তা ও ক্রীড়ামোদীদের অংশগ্রহণে উৎসবে রূপ নেয় এ অনুষ্ঠান।
বিগ বস এনসিএল আয়োজনের পরেই বিপিএল। গতকালের এ অনুষ্ঠানের শুরু সংক্ষেপে জানানো হয় বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসের বিভিন্ন মাইলস্টোনকে। ওয়ানডে স্ট্যাটাস প্রাপ্তি, ঢাকায় মিনি বিশ্বকাপের আয়োজন, অভিষেক টেস্ট থেকে শুরু করে ঘরের মাঠের সেই দিনের বিশ্বকাপ... নতুন করে মনে করিয়ে দেয় সবাইকে। ব্যক্তিগত অর্জনগুলোও উঠে আসে ভিডিও চিত্রে। ওয়ানডে ও টেস্টে বিশ্বের এক নম্বর অলরাউন্ডার খেতাবপ্রাপ্ত শাকিব আল হাসানকে দেখানো হয় আলাদা করে। এরপর বিনোদন পর্ব। র্যাম্প মডেলদের কালো ড্রেস পরে ক্যাটওয়াকের পরেই মঞ্চে আসে বিভিন্ন পেশার মানুষ। প্রত্যেকেই ছিলেন ক্রিকেটের সাজে। আইনজীবী, ডাক্তার, কৃষক, জেলে, গ্রামের মেয়ে, গৃহবধূ, শিক্ষক, আর্মি, পাহাড়ী মেয়ে, চা বাগানের মেয়ে, ছাত্রী কেউ বাদ দিল না এই পর্বে। শেষে তারা একটি ক্রিকেট ম্যাচ খেলে। 'আমরা করব জয়' গানটির সঙ্গে মঞ্চে আসে এরপর ৬ বিভাগের ৬ জন আইকন ক্রিকেটার। পেশাদার মডেলদের সঙ্গে ক্রিকেটারদের ক্যাটওয়াক হাস্যরোল তোলে দর্শকদের মাঝে। পুরো অনুষ্ঠানের সঞ্চালক মুনমুন হলেও লোগো উন্মোচন পর্বে মঞ্চে আসেন বিশিষ্ট অভিনেতা আফজাল হোসেন। তাঁর সরস উপস্থাপনা এবার আনন্দ দেয় সবাইকে। তিনি এসেই এক অভিনব ঘোষণা দেন। বিপিএলের লোগোর চার পাশে ছবি অাঁকবেন দেশসেরা তথা বিশ্বখ্যাত চিত্রশিল্পীরা। সবার বিস্ময়মাখা উচ্চারণের মধ্যে একে একে মঞ্চে এসে হাজির হন শিল্পী কাইয়ুম চৌধুরী, হাশেম খান, রফিকুন্নবী, মনিরম্নল ইসলাম, শিশির ভট্টাচার্য ও কনকচাঁপা। এই শিল্পীদের মঞ্চে আনার পেছনে আফজাল হোসেন জানান, 'ক্রিকেট খেলাতেও শিল্প থাকে, যেমন থাকে এদের অাঁকাতে।' এ চিত্রশিল্পীরা একই সঙ্গে বিশাল ক্যানভাসে ছবি অাঁকেন সবাই মিলে। রফিকুন্নবী তাঁর বিখ্যাত কার্টুন চরিত্র টোকাইকে ব্যাটসম্যান বানিয়ে ছবি অাঁকেন। রণবী, কাইয়ুম চৌধুরী ক্রিকেট নিয়ে তাদের বিভিন্ন ব্যাঙ্গচিত্রের কথা বলে সবাইকে মজা দেন। শিল্পীদের ছবি অাঁকার সময় মঞ্চে নাচ পরিবেশন করেন নাজিবা বাশার। এরপর শুরম্ন হয় একটি মজার পরীক্ষা। ক্রিকেটারদের ক্যানভাসে ছবি অাঁকতে বলা হয়। খুলনা বিভাগে আইকন ক্রিকেটার শাকিব আল হাসান ও সিলেট বিভাগের আইকন ক্রিকেটার অলক কাপালী বল অাঁকেন ক্যানভাসে। রাজশাহী বিভাগের আইকন ক্রিকেটার ও জাতীয় দলের অধিনায়ক মুশফিকুর রহীমকে একটি সরল রেখা অাঁকতে বলা হয়। একই কাজ করেন চট্টগ্রাম বিভাগের আইকন ক্রিকেটার তামিম ইকবাল। উভয়ের সরল রেখা হাসির রোল তুলে দর্শকদের মধ্যে। ঢাকা বিভাগের আইকন ক্রিকেটার আশরাফুল তাঁর নামের শেষ অংশ অর্থাৎ ফুল এঁকে দেখান। তবে সেই ফুল... নাকি পাতা বোঝা যায়নি। ক্যাটওয়াক কিংবা চিত্রাঙ্কন দুই জায়গাতে কিছুটা স্বচ্ছন্দ মনে হয়েছে বরিশাল বিভাগের আইকন ক্রিকেটার শাহরিয়ার নাফিসকে। তিনি একটি পেন্সিল অাঁকেন। সবার কাঙ্ৰিত লোগো উন্মোচন পর্ব শুরম্ন হয় এই বার। ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী আহাদ আলী সরকার, ক্রীড়াবিষয়ক সংসদীয় কমিটির চেয়ারম্যান জাহিদ আহসান রাসেল, বিসিবি সভাপতি আ হ ম মোসত্মফা কামাল, টুর্নামেন্টের গেমস অন স্পোর্টসের আহ্বায়ক অঞ্জন চৌধুরী ও এ আসরের ব্রডকাস্টিংয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত চ্যানেল নাইনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এনায়েতুর রহমান বাপ্পী উপস্থিত ছিলেন লোগো উন্মোচন কালে। বিশাল এক বাদক দল প্রচ- আওয়াজে উৎসবের আমেজ এনে দেয় চারপাশে। বিপিএল টি২০'র গেমস অন স্পোর্টসের পক্ষ থেকে সাবেক ক্রিকেটার ও ধারাভাষ্যকার অরুন লাল মঞ্চে এসে বলেন, 'পুরো আয়োজন দেখে আমি খুব খুশি। এটা শুধু ক্রিকেট টুর্নামেন্টই নয়, এর মাধ্যমে ব্র্যান্ডিং করা হলো বাংলাদেশকে। এখন ক্রিকেটের মাধ্যমে এদেশকে চিনবে সবাই।'