মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
শুক্রবার, ৩০ ডিসেম্বর ২০১১, ১৬ পৌষ ১৪১৮
আমিরাতের কোচ হতে আগ্রহী ম্যারাডোনা
স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ একদিন আগেই একটি সুখবর ভেসে এসেছে ম্যারাডোনার কানে। আর্জেন্টিনা ফুটবল এ্যাসোসিয়েশনের (এএফএ) মহা-ব্যবস্থাপক কার্লোস বিলার্ডো এক সাৰাতকারে বলেছেন, 'আর্জেন্টিনা জাতীয় দলের হয়ে ম্যারাডোনার কাজ করার সুযোগ শেষ হয়ে যায়নি। ম্যারাডোনার জন্য এখনও দরজা খোলা রয়েছে।' বিলার্ডোর এমন বক্তব্যের পর সবাই একটু নড়েচড়েই বসেছিল। হয়ত আবারও মেসিদের দেখভালের দায়িত্ব নিতেও পারেন ম্যারাডোনা। তবে বুধবার ভিন্ন কিছুরই আভাস দিয়েছেন আর্জেন্টাইন এই কিংবদন্তি। বলেছেন, আরব-আমিরাতের কোচ হতে তার আপত্তি নেই। প্রস্তাব পেলে তিনি প্রস্তুত আমিরাতের জাতীয় ফুটবল দলের কোচ হতে।'
আরব আমিরাতেরই ক্লাব আল ওয়াসলে ম্যারাডোনা কোচ হিসেবে কাজ করছেন চলতি বছরের মে থেকে। আর সেপ্টেম্বরে লেবাননের সঙ্গে ৩-১ গোলে হারার পর আরব আমিরাত ফুটবল কর্তৃপৰ বরখাস্ত করে জাতীয় দলের সেস্নাভিনিয়ান কোচ শ্রেকো কাটানেককে। এরপর থেকে আপদকালীন কোচই দেখাশোনা করে আসছে জাতীয় ফুটবল দলকে। তবে এখানেও তাদের পরিস্থিতি নাজুক। মূল কোচ বিদায়ের পর আরব আমিরাত ম্যাচ খেলেছে ৩টি, হেরেছে প্রত্যেকটিতে। এমন পরিস্থিতিতে নতুন কোচের সন্ধানে নেমেছে তারা। এই পর্যায়ে ম্যারাডোনার আগ্রহ আরব আমিরাত ফুটবলের নতুন দিগনত্মেরই আভাস দিল। ফুটবল কর্তৃপৰ রাজি থাকলে ম্যারাডোনাই হতে পারে আরব আমিরাতের পরবর্তী কোচ। যদিও কোচ হওয়ার আগ্রহ নিয়ে বিশদ ব্যাখ্যা দেননি ম্যারাডোনা। আর সে কারণে কিছুটা সংশয় থাকছেই। ম্যারাডোনা বলে কথা। আমিরাতের লোকাল মিডিয়ার সাৰাতকারে উঠে এসেছিল আর্জেন্টিনার কোচ হওয়ার প্রসঙ্গটিও। তবে নিজ দেশের কোচ হওয়া প্রসঙ্গে তার মূল্যায়ন, এখানেও আপত্তি নেই, সন্তুষ্ট চিত্তেই গ্রহণ করবেন প্রসত্মাব। যার কথার উপর ভিত্তি করে ম্যারাডোনার এই অগ্রগতি, সেই বিলার্ডো প্রসঙ্গে কোন মনত্মব্য করেননি ১৯৮৬ সালে আর্জেন্টিনার হয়ে বিশ্বকাপ জেতানোর মহানায়ক। তার কারণও রয়েছে। কার্লোস বিলার্ডোর সঙ্গে ম্যারাডোনার সম্পর্ক খুব একটা ভালো নয়। সেটা কদিন আগে পরিষ্কার করে বলেছেন বিলার্ডোও। অথচ এই দুজন এক সময় কাজ করেছেন একাত্ম হয়ে। বিলার্ডোর কোচিং ও ম্যারাডোনার অধিনায়কত্বেই ১৯৮৬ সালের বিশ্বকাপ জেতে আর্জেন্টিনা। একই নেতৃত্বে ১৯৯০ সালের বিশ্বকাপের ফাইনালে পেঁৗছেছিল দৰিণ আমেরিকার দেশটি। ফ্রান্স ফুটবল ম্যাগাজিনকে দেয়া এক সাৰাতকারে মঙ্গলবার বিলার্ডো বলেন, এখন আমাদের মধ্যে কথা হয় না। ১৯৮৩ সাল থেকে কমপৰে আমাদের মধ্যে ৪০ বার কথা কাটাকাটি হয়েছে। বর্তমানে আমাদের মধ্যে কথা না হলেও আমরা আর্জেন্টিনার হয়ে অনেক কাজ করেছি।' ২০০৮ সালের নবেম্বরে আর্জেন্টিনা জাতীয় দলের কোচের দায়িত্ব নিয়েছিলেন ৫১ বছর বয়সী ম্যারাডোনা। কিন্তু ২০১০ বিশ্বকাপে ব্যর্থ হওয়ার পর ম্যারাডোনাকে হারাতে হয় চাকরি। কেননা তার সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করেনি এএফএ। ওই ঘটনার পর থেকে ফুটবলের জীবনত্ম কিংবদনত্মির সঙ্গে কোন কথা বলেননি বলে স্বীকার করেছেন বিলার্ডো। তবে তিনি মনে করেন, এখনও আর্জেন্টিনা জাতীয় দলের সঙ্গে কাজ করার সুযোগ রয়েছে ম্যারাডোনার। গত দেড় বছরের ঘটনা মন থেকে ঝেড়ে ফেলার ইঙ্গিত দিয়ে তিনি বলেন, গত দেড় বছর এখন অতীত। কিন্তু আপনি কখনই বলতে পারেন না যে আর কখনই সে (ম্যারাডোনা) জাতীয় দলের সঙ্গে যুক্ত হবে না। ম্যারাডোনার কোচ হওয়ার সুযোগ এখনও রয়েছে। তবে হেঁয়ালি ম্যারাডোনা কখন কী যে করে বসেন, তা বলা মুশকিল।