মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
শুক্রবার, ৩০ ডিসেম্বর ২০১১, ১৬ পৌষ ১৪১৮
অসি বোলিং তোপে অসহায় হার বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ভারতের
অস্ট্রেলিয়ার জয় ১২২ রানে
স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ সিরিজ শুরুর আগে থেকেই ক্রিকেটবিশেষজ্ঞরা বলে আসছিলেন, অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে অধরা টেস্ট সিরিজ জয়ের এবারই সুবর্ণ সুযোগ ভারতের। সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ার নড়বড়ে অবস্থার কারণেই তারা এমন অভিমত রেখেছিলেন। কিন্তু বিশেষজ্ঞদের ভবিষ্যদ্বাণী হয়ত মিথ্যা প্রমাণ হতে চলেছে। কেননা সফরের প্রথম টেস্টেই স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়ার কাছে অসহায় আত্মসমর্পণ করেছে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ভারত। হেরেছে ১২২ রানে। দ্বিতীয় ইনিংসে ২৯২ রানের জয়ের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে তিন অসি পেসার জেমস প্যাটিনসন, বেল হিলফেনহাস ও পিটার সিডলের তোপের মুখে মহেন্দ্র সিং ধোনির দল অলআউট হয় মাত্র ১৬৯ রানে। এর ফলে একদিন বাকি থাকতেই ম্যাচের চতুর্থ দিনে বক্সিং ডে টেস্ট জিতে নেয় সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া। দ্বিতীয় ইনিংসে ৪ ও প্রথম ইনিংসে ২ উইকেট কব্জা করে ম্যাচ সেরা হয়েছেন অসি উঠতি পেসার প্যাটিনসন। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট হাতেও সফলতা দেখান এ তরুণ। খেলেন হার না মানা ৩৭ রানের মূল্যবান ইনিংস। মেলবোর্নের ২১ বছর বয়সী তারকা এর মাধ্যমে ক্যারিয়ারের তিন টেস্টের দুটিতেই ম্যাচ সেরা হওয়ার কৃতিত্ব দেখালেন। এর আগে চলতি বছরের শুরম্নতে নিউজিল্যান্ডের বিরম্নদ্ধে ক্যারিয়ারের অভিষেক টেস্টেই ম্যান অব দ্য ম্যাচ হয়েছিলেন প্যাটিনসন। এই জয়ে চার ম্যাচের টেস্ট সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল মাইকেল ক্লার্কের দল। সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট শুরম্ন হবে আগামী ৩ জানুয়ারি সিডনিতে।
চলতি বছর ভারত ২৭ বছরের খরা কাটিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বকাপ জয় করলেও সাফল্যের ধারাবাহিকতা রৰা করতে পারেনি। বিশ্বকাপের পর দুর্বল শক্তির ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরম্নদ্ধে হোম ও এ্যাওয়ে সিরিজে জয় পেলেও প্রতিষ্ঠিত শক্তিধর দেশগুলোর কাছে রীতিমতো নাকাল হয়েছে ভারত। যার উৎকৃষ্ট প্রমাণ ইংল্যান্ড সফরে টেস্ট সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হওয়া। বিগত ৬৪ বছরে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে টেস্ট সিরিজ জেতা হয়নি ভারতের। এবার সে স্বপ্ন নিয়েই ধোনির নেতৃত্বে শচীন, দ্রাবিড়, লক্ষ্মণ, জহিররা পাড়ি জমিয়েছেন অসিভূমে। মেলবোর্নে প্রথম টেস্টের প্রথম তিন দিন সমানতালে লড়াইও করেছিল ধোনি বাহিনী। কিন্তু চতুর্থ দিনে হঠাৎ ধসে পড়া ব্যাটিংয়ের কারণে হার মানতে হয়েছে সফরকারীদের। এর ফলে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে অধরা টেস্ট সিরিজ জয়ের স্বপ্নে শুরম্নতেই হোঁচট খেল ওয়ানডের বর্তমান বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। সেই সঙ্গে আবারও প্রমাণ হওয়ার পথে, 'ভারত দেশের মাটিতে বাঘ, বিদেশের মাটিতে বিড়াল'। মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে (এমসিজি) গতকাল চতুর্থ দিনে মূলত অসি পেসারদের নিখুঁত বোলিংয়ের কাছেই অসহায় আত্মসমর্পণ করে ভারতের বিশ্বসেরা ব্যাটিং লাইনআপ। এদিন আরেকবার অস্ট্রেলিয়ার তিন পেসার প্যাটিনসন, হিলফেনহাস ও সিডল পেস বোলিংয়ের সামনে ভারতের ব্যাটিংয়ের দুর্বলতা স্পষ্ট করে দেন। ভারতের দ্বিতীয় ইনিংসের ৯ উইকেটই ভাগাভাগি করে নেন এ তিন ত্রয়ী। প্রথম ইংনিসে তো ১০ উইকেটই ভাগাভাগি করে নিয়েছিলেন এ তিন পেসার। মেলবোর্ন টেস্টে ভারত তিন অসি পেসারের কাছেই হেরেছে এ কথা তাই নির্দ্বিধায় বলা যায়! তৃতীয় দিন শেষেও মেলবোর্ন টেস্টের ভাগ্য ঝুলছিল পেন্ডুলামের মতো। ভারতীয় ওপেনার বীরেন্দর শেবাগ তো ঘোষণাই দিয়েছিলেন, তিন শ'র নিচে টার্গেট থাকলে জয় পাওয়া সমস্যা হবে না। কিন্তু কথা রাখতে পারেননি ভারতের বিশ্বসেরা ব্যাটিং লাইনআপ। জয়ের লক্ষ্যে ২৯২ তাড়া করতে গিয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে মাত্র ৬৯ রানে পাঁচ উইকেট হারিয়ে পরাজয়ের দ্বারপ্রানত্মে পেঁৗছে যায় ভারত। শেষ দিকে অধিনায়ক ধোনি ও স্পিনার আশ্বিন কিছুটা প্রতিরোধ গড়লে পরাজয়ের ব্যবধানটাই কেবল কম হয়। জয়ের স্বপ্ন নিয়ে ব্যাটিংয়ে নামা ভারত শুরম্ন থেকেই নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে। দলীয় ১৭ রানের মাথায় প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে সাজঘরের পথ ধরেন বীরেন্দর শেবাগ (৭)। এরপর একে একে তাকে অনুসরণ করেন ভারতীয় ব্যাটিংয়ের সত্মম্ভ গৌতম গম্ভীর (১৩), রাহুল দ্রাবিড় (১০), শচীন টেন্ডুলকর (৩২) ও ভিভিএস লক্ষ্মণ (১)। শুরম্নর এই বিপর্যয় অব্যাহত থেকে মাত্র ৪৭.৫ ওভারে ১৬৯ রানে গুটিয়ে যায় ভারতের ইনিংস। ফলে ১২২ রানের দুর্দানত্ম জয় পায় অস্ট্রেলিয়া। দলের পৰে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ৩২ রান করেন শচীন টেন্ডুলকর। রবিচন্দ্রন আশ্বিন করেন দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩০ রান। অধিনায়ক ধোনি করেন ২৩ রান। এছাড়া আর কোন ভারতীয় ব্যাটসম্যান উলেস্নখ করার মতো রান করতে পারেনি। অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে প্যাটিনসন ৫৩ রানে ৪, সিডল ৪২ রানে ৩ ও হিলফেনহাস ৩৯ রানে ২ উইকেট দখল করেন।
এর আগে গতকাল চতুর্থ দিনের সকালে অস্ট্রেলিয়া আগের দিনের ৮ উইকেটে ১৭৯ রান নিয়ে পুনরায় ব্যাটিং শুরম্ন করে। আগের দিনের অপরাজিত ব্যাটসম্যান মাইক হাসি তার ৭৯ রানের ইনিংসটিকে টেনে নিয়ে যান ৮৯ রানে। দলীয় ১৯৭ রানের মাথায় জহির খানের বলে উইকেটের পেছনে ধোনির হাতে ধরা পড়ার আগে তিনি তার ১৫১ বলের ইনিংসটি সাজান নয়টি চার দিয়ে। এরপর শেষ উইকেট জুটিতে প্যাটিনসন ও হিলফেনহাস আরও ৪৩ রান যোগ করলে দ্বিতীয় ইনিংসে অস্ট্রেলিয়া অলআউট হয় ২৪০ রানে। ৩৭ রানে অপরাজিত থাকেন প্যাটিনসন। ভারতের পৰে উমেশ যাদব ৪ ও জহির খান ৩ উইকেট দখল করেন। এর আগে অস্ট্রেলিয়ার প্রথম ইনিংসে ৩৩৩ রানের জবাবে ভারত করেছিল ২৮২ রান।