মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
শনিবার, ৯ এপ্রিল ২০১১, ২৬ চৈত্র ১৪১৭
উইজডেনের বর্ষসেরা ক্রিকেটার তামিম
অবশ্যই আমি অনেক বেশি আনন্দিত। নিজেকে অনেক বেশি ভাগ্যবানও মনে হচ্ছে। কারণ আমার আগে অনেক বড় বড় তারকা ব্যাটসম্যান ক্রিকেট খেলে গেছেন। কিন্তু তাদের নাম উইজডেনের বর্ষসেরা ক্রিকেটারের তালিকায় নেই, অথচ আমার নাম লেখা হলো_এটা সত্যিই সৌভাগ্যের বিষয়
স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ নিজে সম্মানিত হলেন। একই সঙ্গে বাংলাদেশের ক্রিকেটেকেও সম্মানিত করলেন তামিম ইকবাল। ক্রিকেটীয় প্রতিভার আরেকটি অন্যন্য স্বীকৃতি মিলেছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের এই মারকুটে ওপেনারের। প্রথম বাংলাদেশী ক্রিকেটার হিসেবে ক্রিকেটের বাইবেল উইজডেনের বর্ষসেরা ক্রিকেটারের তালিকায় জায়গা করে নিয়েছেন তামিম। উইজডেন ক্রিকেটার্স এ্যালম্যানাকের এবারের বর্ষসেরা ৪ ক্রিকেটারে তালিকায় রয়েছে তামিমের নাম। বাংলাদেশের এই কৃতী ব্যাটসম্যানকে এমন বিরল সম্মান এনে দিয়েছে গত বছর ইংল্যান্ড সফরে পর পর দুই টেস্টে সেঞ্চুরির হাঁকানোর কৃতিত্ব। ২০১০ সালের মে মাসে ইংল্যান্ড সফরে গিয়েছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। সফরে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিরম্নদ্ধে ২ টেস্ট ম্যাচ খেলে বাংলাদেশ। লর্ডসে অনুষ্ঠিত প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসে ৫৫ রানের একটি ইনিংস খেলেন তামিম। ওই ৫৫ রানেই তাকেই আটকে যেতে হয়েছিল রান আউটের শিকার হওয়ায়। তবে দ্বিতীয় ইনিংসে ঠিকই সেঞ্চুরি তুলে নেন তামিম। তাও আবার মাত্র ৯৪ বলে। যেখানে ছিল ১৫টি বাউন্ডারি আর ২টি ছক্কার মার। তামিমের ওই সেঞ্চুরি ছিল বাংলাদেশের ক্রিকেটের জন্য এক নতুন ইতিহাস। তার আগে আর কোন বাংলাদেশী ক্রিকেটার 'ক্রিকেটের মক্কা' লর্ডসে সেঞ্চুরি করার কৃতিত্ব দেখাতে পারেননি। ওই সেঞ্চুরির সুবাদে ক্যারিয়ার সেরা টেস্ট র্যাঙ্কিং (২৫) অর্জন করেন তামিম। লর্ডসের 'হল অব ফেম'-য় লেখা হয়ে যায় তামিমের নাম। ইংলিশদের বিরম্নদ্ধে বাংলাদেশ দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচটি খেলতে নেমেছিল ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে। লর্ডসের পর ওল্ড ট্র্যাফোর্ডেও সেঞ্চুরি হাঁকান তামিম। ইংলিশ বোলারদের পাত্তা না দিয়ে এবারে বাংলাদেশের প্রথম ইনিংসেই সেঞ্চুরি পেয়ে যান তিনি। তামিমের এবারের সেঞ্চুরিটি ছিল ১০০ বলে ১১টি বাউন্ডারি আর ১ ছক্কায় সাজানো। ইংলিশ মাটিতে স্বাগতিক বোলারদের এভাবে নাজেহাল করে এর আগে খুব কম সংখ্যক ব্যাটসম্যানই ব্যাক টু ব্যাক সেঞ্চুরির এমন দৃষ্টানত্ম স্থাপন করতে পেরেছেন। তামিম তাই ইংলিশদের কাছে তো বটেই, বিশ্ব ক্রিকেটেই বিশেষ পরিচিতি লাভ করেন। আর সেই দু'টি ঝলমলে সেঞ্চুরির সুবাদে এবার উইজডেনের বর্ষসেরা ক্রিকেটারের তালিকাতে স্থান করে নিলেন বাংলাদেশের হার্ড হিটিং ওপেনারটি। ক্রিকেট বিশ্বের সবচেয়ে প্রাচীন ব্যক্তিগত সম্মানের মুকুটটি এখন তাই তামিম ইকবালের। উইজডেন সম্পাদক শিল্ড বেরির মতে, 'তামিমকে উইজডেনের বর্ষসেরা ক্রিকেটার নির্বাচন করা অবশ্যই আনন্দের বিষয়। কারণ ইংলিশ বোলারদের বাদে বাকি সবাইকে ওই দু'টি টেস্টে আনন্দে ভাসিয়েছে তামিমের ব্যাট। মৌসুমের শুরম্নতে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিরম্নদ্ধে কন্ডিশনকে কাজে লাগিয়ে গত ১০ বছরে তামিমের মতো আর কোন সফরকারী দলের ব্যাটসম্যান এভাবে ব্যাট চালাতে পারেনি। ফর্মের তুঙ্গে থাকা ম্যাথু হেইডেন কিংবা ক্রিস গেইলের ব্যাটিংয়ের সঙ্গেই তুলনা চলে তামিমের ওই দু'টি শতকের।' উলেস্নখ্য, গত বছর উইজডেন ক্রিকেটার্স সাময়িকীরও বর্ষসেরা ক্রিকেটার হিসেবেও স্বীকৃতি মিলেছিল তামিমের। এবারের উইজডেন ক্রিকেটার্স এ্যালম্যানাকের ১৪৮তম সংস্করণে বর্ষসেরা ক্রিকেটারের তালিকায় তামিম ছাড়াও যারা রয়েছেন এরা হলেন ইংল্যান্ড জাতীয় দলের তিন তরম্নণ ক্রিকেটার এওইন মরগান, জোনাথন ট্রট এবং ক্রিস রিড। ঐতিহ্য অনুযায়ী প্রতি বছর বর্ষসেরা ক্রিকেটার হিসেবে ৫ জনের তালিকা করে উইজডেন। ১৯২৬ সাল থেকে এমন ধারাই চলছে। তবে এবারে ক্রিকেটের বাইবেলের এই ঐতিহ্য ভেঙ্গে গেল। ৫ জনের পরিবর্তে ৪ জনকেই এবারে বর্ষসেরা ক্রিকেটার হিসেবে বেছে নিয়েছে উইজডেন কতর্ৃপৰ। এর কারণ পাকিসত্মানের তরম্নণ পেসার মোহাম্মদ আমির। উইজডেনের বর্ষসেরা ক্রিকেটারের তালিকায় তার নাম শোভা পেতে পারত। কিন্তু গত বছর ইংল্যান্ড সফরে স্পট ফিঙ্ংিয়ের অভিযোগ উঠে যে সকল পাকিসত্মানি ক্রিকেটারের বিরম্নদ্ধে, আমিরও ছিলেন সেই দলে। জুয়াড়িদের কাছ থেকে অর্থ নিয়ে স্পট ফিঙ্ংিয়ের মতো একটি নিন্দনীয় কাজের শাসত্মি হিসেবে বর্তমানে আনত্মর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের নিষেধাজ্ঞা বহন করতে হচ্ছে আমিরকে। শিল্ড বেরির মতে, 'রেকর্ড ভাঙ্গা আনন্দের। তবে ঐতিহ্য ভাঙ্গা কখনোই আনন্দের নয়। কিন্তু এরপরও বর্ষসেরা ক্রিকেটারের তালিকা প্রকাশের ঐতিহ্য এবারে আমরা ভাঙ্গতে বাধ্য হলাম। কারণ আমাদের বিশ্বাস ক্রিকেটের স্বার্থ পরিপন্থী কোন অপরাধের দায়ে অভিযুক্ত একজন ক্রিকেটার সম্মানের আসনে বসতে পারে না।' এদিকে উইজেডেনের বর্ষসেরা ক্রিকেটার হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন কথাটা জানতে পেরে ভীষণ আনন্দিত তামিম ইকবাল। আজ থেকে অতিথি অস্ট্রেলিয়ানদের বিরম্নদ্ধে ওয়ানডে সিরিজ খেলতে নামছে বাংলাদেশ। সিরিজের প্রস্তুতির ফাঁকেই নিজের খানিকটা অনুভূতি জানালেন তিনি, 'অবশ্যই আমি অনেক বেশি আনন্দিত। নিজেকে অনেক বেশি ভাগ্যবানও মনে হচ্ছে আমার। কারণ আমার আগে অনেক বড় বড় তারকা ব্যাটসম্যান ক্রিকেট খেলে গেছেন। কিন্তু তাদের নাম উইজডেনের বর্ষসেরা ক্রিকেটারের তালিকায় নেই, অথচ আমার নাম লেখা হলো_এটা সত্যিই সৌভাগ্যের বিষয়। তবে নিশ্চয় আমার পারফরমেন্স দেখেই তারা আমাকে বর্ষসেরা ক্রিকেটার নির্বাচন করেছে। সন্দেহ নেই, সামনের দিনগুলোতে এই প্রাপ্তি আরও বেশি ভালো ক্রিকেট খেলতে উৎসাহ দিবে আমাকে।'