মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১১, ২৬ অগ্রহায়ন ১৪১৮
মুক্তিযোদ্ধা ও এক কিশোরী
বিএম বরকতউল্লাহ
বারো বছরের মেয়ে অপরাজিতা। তার মনে একটা দুঃখ বার বার জেগে ওঠে, সেটা হলো সে এখনও কোন মুক্তিযোদ্ধাকে দেখেনি। সে তার বাবার কাছে আফসোস করে প্রায়ই তার এই দুঃখের কথাটা বলে। একদিন তার বাবা তাকে বললেন, আমি তোমাকে মুক্তিযোদ্ধা দেখাব। পরদিন অপরাজিতার বাবা তাকে তার স্কুলের গেটে নিয়ে গেলেন। তার বাবা সেখানে যবুথবু দাঁড়িয়ে থাকা এক ভিক্ষুককে দেখিয়ে বললেন, তিনি একজন মুক্তিযোদ্ধা। অপরাজিতা থ হয়ে গেল। সে তার বাবার মুখের দিকে তাকিয়ে বলে, কি বলো তুমি! তিনি তো ভিক্ষুক। ভিক্ষুক আবার মুক্তিযোদ্ধা হয় কিভাবে? বাবা বললেন, . . .
একাত্তরের রাণীপুর
শাহনেওয়াজ চৌধুরী
মোতালেব কেমন আছো? চিনতে পারছো আমাদের? মোতালেব সাহেব ওদের মোটেই চিনতে পারলেন না। তবু তার কাছে বসে ওরা ওদের কথা বলেই যাচ্ছে। তখন একজন বলল, আমাদের এখন চিনতে পারছ না? অথচ এক সময় তুমি আমাদের প্রায় সারাদিন সঙ্গে সঙ্গে রাখতে। এবার অন্যজন বলল, সকালে ঘুম থেকে জেগেই আমাদের খুঁজতে তুমি। তারপর আমাদের নিয়ে নিমের ডালে দাঁত মাজতে মাজতে পুকুরঘাটে যেতে। আমাদের পুকুরঘাটে রেখে পানিতে নামতে। তারপর প্রায় সারাটা দিন তোমার সঙ্গে কেটে যেত আমাদের। যখন ঘুমাতে যেতে কেবল তখন আমাদের লম্বা ছুটি। তাও তোমার আশপাশেই ঘুমাতাম আমরা। . . .