মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৩, ৩০ অগ্রহায়ন ১৪২০
পলাশবাড়ীর ড্রিমল্যান্ড
মুক্তিযুদ্ধের স্মারকসহ ২২৫ মনীষীর ভাস্কর্য
আবু জাফর সাবু, গাইবান্ধা থেকে
ড্রিমল্যান্ড বিনোদন কেন্দ্রের নাম জানেন এখন উত্তরবঙ্গের অনেকেই। গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী উপজেলায় ১৭ একর জায়গার ওপর বিশাল এই বিনোদন কেন্দ্রটি গড়ে উঠেছে। উদ্যোক্তারা বলছেন, এর নির্মাণ কাজ এখনও পুরোপুরিভাবে শেষ হয়নি। এ অঞ্চলের একমাত্র বিনোদন কেন্দ্র ও পিকনিক স্পট হওয়ায় প্রতিদিন প্রচুর লোক আসছেন ড্রিমল্যান্ডে বেড়াতে এবং বনভোজন করতে। রংপুর-বগুড়া মহাসড়কের পলাশবাড়ী চৌমাথা মোড় থেকে বগুড়ার দিকে প্রায় ১ কিলোমিটার যেতেই পথের পশ্চিম দিকে পড়বে ‘ড্রিমল্যান্ড।’ এর নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে ১৯৯৫ সালে। . . .
চোখজুড়ানো সৌন্দর্যের লীলা নিকেতন গোয়াইনঘাট
প্রকৃতি যেন হাতছানি দিয়ে ডাকে। ভোরের সূর্য অন্যরকম আলো ছড়ায়। সন্ধ্যায় পাহাড়ী মায়া নজর কাড়ে। টিলা পাহাড় সবুজ আর সবুজ। এখানেই সব ভাললাগা। প্রকৃতির প্রেমের সাথেই মাখামাখি করে বয়ে যাচ্ছে সময়-সকাল, দুপুর, সন্ধ্যা। কার না ভাল লাগে? চোখজুড়ানো অপার সৌন্দর্যের লীলা নিকেতন সিলেটের গোয়াইনঘাট। জেলার পূর্ব-উত্তর সীমান্তে গোয়াইনঘাট উপজেলার অবস্থান। সীমান্তবর্তী এই উপজেলায় রয়েছে অফুরন্ত প্রাকৃতিক সম্পদ। জাফলং ও বিছনাকান্দি পাথর কোয়ারি ছাড়াও তেল-গ্যাসের মজুদ রয়েছে এই মাটিতে। সারি, গোয়াইন দুুটি নদীতেই রয়েছে বালু। . . .
‘মাটির ময়না’র আনু এখন সীতাকুণ্ডের পান দোকানি
জাহেদুল আনোয়ার চৌধুরী, সীতাকুণ্ড থেকে
জা তীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত ছবি মাটির ময়নার ‘আনু’ এখন সীতাকুণ্ডের পান-সিগারেটের দোকানদার। প্রয়াত জাতীয় চলচিত্র ব্যক্তিত্ব তারেক মাসুদের ছবি ‘মাটির ময়না’এবং ছবিটির সেই ছোট্ট ছেলেটি যাকে নিয়ে লেখা যার ছবির চরিত্রের নাম ‘আনু’ বাস্তব নাম নূরুল ইসলাম বাবলু। সে সীতাকু- উপজেলার বারআউলিয়া হাফিজ জুট মিলের সামনে এখন পান-সিগারেটের দোকানদার। দেশের সীমানা পেরিয়ে যে চলচ্চিত্রটি সাড়া ফেলেছিল বিখ্যাত কান চলচিত্র উৎসব থেকে শুরু করে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে তাতে ‘আনু’ . . .
শুঁটকি পল্লীতে পুরুষের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে কাজ করে নারীরা
বিকাশ চৌধুরী, পটিয়া থেকে
শুঁটকি উৎপাদনের ভরা মৌসুমে চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলার পশ্চিম পটিয়ায় শত শত শ্রমিক শুঁটকি শুকানোর কাজে ব্যস্ত। বর্তমানে এ কাজে পুরুষের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে কাজ করছে নারী শ্রমিক। তবে একশ্রেণীর মালিক শিশুশ্রম আইনের তোয়াক্কা না করে শুঁটকি উৎপাদনে শিশুদের কাজে লাগাচ্ছেন। যাদের বয়স ১০ থেকে ১২ বছর। এই বয়সে শিশুদের স্কুলে যাওয়ার কথা থাকলেও এখানে তার ব্যতিক্রম ঘটছে। আর্থিক সমস্যা ও জনসচেতনতার অভাবে দিন দিন উপজেলার ইছানগর, চরপাথরঘাটা, খোঁয়াজনগর, ডাঙ্গারচর, জুলধা ও কর্ণফুলী এলাকায় শিশু শ্রমিক বেড়েই চলেছে। প্রতিবছর . . .
শেয়াল বানরের অদ্ভুত বন্ধুত্ব
এক সময় পশু-পাখি, বন্য প্রাণীর অভয়াশ্রম ছিল হাওড়-বাঁওড়, বিল-ঝিল আর নদী-নালাবেষ্টিত সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজার উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চল। সময়ের বিবর্তনে এখন আর তেমন বন জঙ্গল নেই এ এলাকায়। বন্য প্রাণীদেরও দেখা যায় না প্রকাশ্য দিবালোকে। ঘনবসতি আর মানুষের উৎপীড়নে বন্যপ্রাণীরা অনেক আগেই চলে গেছে ভারতের পাহাড়ী এলাকায়। প্রতিবছর পাহাড় ছেড়ে অনেক প্রাণী সমতলে পাড়ি জমায় নিরাপদ আশ্রয়ের খোঁজে। কিন্তু প্রকৃতির নির্মমতায় এখানেও নিরাপদে থাকতে পারে না তারা। মানুষের উৎপীড়ন আর নির্মম নির্যাতনের শিকার হয়ে বনের এ বাসিন্দাদের . . .
রণাঙ্গনের সাংবাদিক হিসেবে মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি মেলেনি দীপক রায়ের
সঞ্জয় রায় চৌধুরী, মাগুরা থেকে
স্বাধীনতার ৪২ বছর পরও রণাঙ্গনের সাংবাদিক হিসেবে মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি মেলেনি মাগুরার সাংবাদিক এ্যাডভোকেট দীপক রায় চৌধুরীর। তিনি ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় বাংলাদেশের অস্থায়ী রাজধানী মুজিবনগর থেকে রক্তাক্ত বাংলার মুখপাত্র সাপ্তাহিক বাংলার ডাক নামে পত্রিকা প্রকাশ করতেন। দীপক রায় চৌধুরী জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রণাঙ্গনে ঘুরে ঘুরে মুক্তিযোদ্ধাদের বীরত্বগাথা সংবাদগুলো সাপ্তাহিক বাংলার ডাক পত্রিকার মাধ্যমে প্রকাশ করতেন। এই পত্রিকার সব সাংবাদিকই ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা। ভারতের পশ্চিম বাংলার রানাঘাট মহকুমার একটি . . .
হেঁটে তেঁতুলিয়া থেকে টেকনাফ
শতভাগ শিক্ষা অর্জনের লক্ষ্যে ইউনিভার্সিটি স্টুডেন্ট অব বাংলাদেশ (টঝঅই)-এর আয়োজনে বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া একদল তরুণ তেঁতুলিয়ার বাংলাবান্ধা জিরো পয়েন্ট থেকে টেকনাফ পর্যন্ত পদযাত্রা শুরু করেছে। ‘আসুন আমরা সবাই একজন শিক্ষাবঞ্চিত শিশুর দায়িত্ব নিয়ে একটি মেধাবী জাতি গড়ি’- এই স্লোগান নিয়ে সোমবার সকেলে তেঁতুলিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুনিরুজ্জামান পদযাত্রার উদ্বোধন করেন। এর আগে গত শুক্রবার বাংলাবান্ধার উদ্দেশে আগত শিক্ষার্থীদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক অপরাজেয় . . .