মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
মঙ্গলবার, ১৯ জুলাই ২০১১, ৪ শ্রাবণ ১৪১৮
শরীরের জটিলতা এড়াতে হলে
অধ্যাপক শুভাগত চৌধুরী
শর্করা বাছতে সতর্ক হতে হয় শর্করা, স্বেতসার নিষেধ নয় ডায়াবেটিস হলে। তবে এমন শর্করা বেছে নিতে হয় যেগুলো শরীরের ভেতর ডাবে ধীরে, যাতে স্থিতিশীল শক্তির যোগান আসে। গোটাশস্য, বীনস, বাদাম, তাজা সবজি, ফল থেকে পাওয়া যায় এমন স্বেতসার। মিষ্টি হলেও ফল খেতে বাধা নেই। প্রতিবেলার খাবারে সঠিক পরিমাণ শর্করা গ্রহণ হলো বড় কথা। এজন্য চিকিৎসক ও পুষ্টিবিদের পরামর্শ নেয়া যেতে পারে। ওজন বেশি হলে হ্রাস করতে হবে দেহের ওজন কম কম করে ওজন কমানো শুরম্ন হোক। শরীর থেকে বাড়তি ১০-১৫ পাউন্ড ওজন কমালেও ডায়াবেটিসের জটিলতা অনেকটা . . .
ডায়াবেটিস রোগীর প্রতিদিনের খাদ্য তালিকা
ডা. শাহজাদা সেলিম
১. শক্তি প্রদানকারী খাদ্য (ক্যালরি হিসেবে) : প্রতি কেজি দৈহিক ওজনের জন্য ২৫-৩০ কিলোক্যালরি/প্রতিদিন । যাদের দৈহিক স্থূলতা আছে (বিএমআই ২৫-এর বেশি) তাদের জন্য ৩৫ কিলোক্যালরির কম। ২. শর্করা জাতীয় খাদ্য: মোট শক্তির ৫৫%-৬০% শর্করা থেকে আসতে হবে। এর প্রধান উৎস হতে পারে ভাত, রম্নটি, ডাল, মাছ-মাংস ও শিম ইত্যাদি। পরিশোধিত শর্করা যেমন_চিনি, মধু, ময়দা, গুড়, মিছরি, বেকারির তৈরি বিভিন্ন রকম খাদ্যদ্রব্য-পাউরম্নটি, কেক, বিস্কিট ইত্যাদি ও তেলে ভাজা খাবার-যতটা সম্ভব ত্যাগ করতে হবে। ৩. আমিষ জাতীয় খাদ্য: প্রতি . . .
প্রসাধনসামগ্রী এবং ক্যান্সার
ডা. এ.আর.এম. সাইফুদ্দীন একরাম
আধুনিক জগতে প্রসাধনীসামগ্রী ব্যবহার করেন না এমন মানুষ নেই বললেই চলে। প্রসাধনীসামগ্রী বলতে বিভিন্ন ধরনের স্নো, ক্রিম, ময়েশ্চারাইজার, ডি-ওডর্যান্ট বা দুর্গন্ধনাশক রাসায়নিক, চুলের শ্যাম্পু, দাঁতের মাজন, পেস্ট, লোমনাশক রাসায়নিক উপাদানসমূহকে বোঝানো হয়। অনেকের মনেই একটি সংশয় রয়েছে যে, এমন ব্যাপকভাবে প্রসাধনীসামগ্রী ব্যবহারের ফলে ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা আছে কিনা? সত্যিকার অর্থে এখন পর্যনত্ম বৈজ্ঞানিকভাবে পরীৰানিরীৰার সাহায্যে প্রসাধন সামগ্রীর সঙ্গে ক্যান্সারের কোন সম্পর্ক প্রমাণিত হয়নি। সব ধরনের প্রসাধনীসামগ্রীই . . .
ডিম প্রসঙ্গে
মুরগির ডিমে কোলেস্টেরেল অনেক বেশি থাকে। স্বভাবতই অধিক কোলেস্টেরলসমৃদ্ধ খাদ্য আপনার রক্তে কোলেস্টেরল বাড়িয়ে দেবে। তবে কি পরিমাণ আপনার রক্তে তা বাড়াবে তা ব্যক্তি থেকে ব্যক্তি পার্থক্য থাকবে। যখন আপনি ভাবছেন আপনার খাদ্য তালিকাতে ডিম যোগ হবে, তখন কতটুকু কোলেস্টেরল আপনি গ্রহণ করতে পারেন প্রতিদিন সে সম্পর্কে একটা ধারণা থাকতে হবে। আপনি যদি স্বাস্থ্যবান হন তাহলে আপনার নিত্য খাদ্যের কোলেস্টেরেল পরিমাণ হবে ৩০০ মি. গ্রামের নিচে। যদি আপনার হৃদযন্ত্রের রোগ থাকে, যদি আপনি ডায়াবেটিসে ভোগেন অথবা আপনার রক্তের . . .