মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০১০, ৩০ চৈত্র ১৪১৬
আপনার কণ্ঠকে ভালবাসুন
বিশ্ব কণ্ঠ দিবস ২০১০
প্রতিবছর ১৬ এপ্রিল বিশ্ব কণ্ঠ দিবস পালিত হয়। গত বছর প্রথম বাংলাদেশে বিশ্ব কণ্ঠ দিবস পালন করা হয়। সমগ্র বিশ্বে ২০০২ সাল হতে বিশ্ব কণ্ঠ দিবস পালিত হচ্ছে। ব্রাজিলে ১৯৯৯ সালের এপ্রিল মাসে প্রথম মানুষের কণ্ঠ ও কণ্ঠনালীর সমস্যা এবং নাক গলা রোগ বিষয়ে জনগণকে সচেতন করার জন্য জাতীয় কণ্ঠ সপ্তাহ পালিত হয়। এক গবেষণায় দেখা যায় যে, আমেরিকার 'ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ডেফনেস এ্যান্ড কমিউনিকেশনের' সূত্র মতে ৭.৫ মিলিয়ন সব বয়সের জনগণ কোন না কোন কণ্ঠস্বরজনিত সমস্যায় ভুগছে। আমরা কণ্ঠস্বর সম্পর্কে সচেতন নই এবং . . .
যক্ষ্মা : বাংলাদেশে এর নিয়ন্ত্রণ
টিউবারকুলোসিস একটি সংক্রামক রোগ। এটি ঘটে থাকে মাইকোব্যাক্টেরিয়াম টিউবারকুলোসিস ব্যাকটেরিয়া দ্বারা। একে টিউবারকুল ব্যাসিলাইও বলা হয়। 'যার হয়েছে যা, তার নেই রা' এমন একটি কথা একসময় খুবই প্রচলিত ছিল। দিন বদলে গেছে। এখন মানুষ এভাবে ভাবতে আর অভ্যস্ত নয়। আমাদের হাতে এসে গেছে প্রথম সারি, দ্বিতীয় সারি এবং নতুন মলিক্যুলের এন্টিটিবি জাতীয় ঔষধ। তারপরও ভারত, চীন, ইন্দোনেশিয়া, নাইজেরিয়া, সাউথ আফ্রিকা ও বাংলাদেশ সহ বিশ্বের বাইশটি দেশ টিবি সমস্যায় জর্জরিত। অনুন্নত আর্থ-সামাজিক অবস্থার কারনে মানুষের অপুষ্টি . . .
মাম্পস
ছেলের বয়স ১২ বছর । গায়ে জ্বর অনেক। কানের নিচে দু পাশে ফোলা। খেতে পারছেনা সহজে। ব্যথা লাগছে ঢোক গিলতে। ডাক্তারের কাছে গেলে হয়ত বলবে মাম্পস হয়েছে। হা মাম্পস সাধারণত বড় বাচ্চাদের বেশি হয়। কানের নিচে ম্যান্ডিবনের কোনে প্যারাটিড গ্রন্থি ফুলে যায়। স্বভাবত দুপাশের গ্রন্থিই আক্রান্ত হয়। তবে এক পাশেও একা ফুলতে পারে। এ ছাড়া সাবলিংগুয়াল, সাব ম্যান্ডিবুলার গ্রন্থিও আক্রান্ত হতে পারে। প্যারামিক্সো ভাইরাসের কারণে সাধারণত মাম্পস হয়। যদি টিকা না দেওয়া থাকে যদি আগে মাম্পস না হয়ে থাকে তাহলে অবশ্যই প্রায় প্রত্যেক . . .
গনোরিয়া রোগে মুখের আলসার
সারাবিশ্বে সিফিলিসের চেয়ে গনোরিয়া রোগ প্রায় ১৫ গুণ বেশি পরিলক্ষিত হয়, যেখানে অন্যান্য যৌন রোগের ৰেত্রে এ হার তুলনামূলকভাবে কম। নাইসেরিয়া গনোরি নামক ব্যাকটেরিয়া দ্বারা গনোরিয়া রোগ বিস্তার লাভ করে। গনোরিয়ার কারণে মুখে সংক্রমণের হার কম। তা ছাড়া মুখের লালা গনোরিয়া রোগের ব্যাকটেরিয়া বংশবৃদ্ধি কমিয়ে দিতে সাহায্য করে। তবে মুখের লালা নিঃসরণ কমে গেলে অথবা শুষ্ক মুখ বা জেরোসটমিয়ার ক্ষেত্রে মুখের সংক্রমণ বেশি দেখা যেতে পারে। ওরোফ্যারিংস সচরাচর আক্রান্ত স্থানের অন্যতম। সাধারণত পুরুষ হোমোসেক্সুয়ালদের ক্ষেত্রে . . .
বায়ুদূষণ ঘটায় মারাত্মক হার্ট এ্যাটাক
সাবধান! রাস্তার ধোঁয়া ধুলো আপনার বস্নাড প্রেসারকে যথেষ্ট পরিমাণে বাড়িয়ে দিতে পারে। ঘটাতে পারে হার্ট এ্যাটাক, ঘটাতে পারে স্ট্রোক। হাইপারটেনশন নামক পত্রিকাটি তো তাই প্রকাশ করছে। বিজ্ঞানীরা দেখছে সে দু ঘণ্টা দূষিত বাতাসে থাকলে ডায়াস্টলিক প্রেসার যথেষ্ট বেড় যায় (নিচের ব্লাড প্রসার ব্রিডিং) এবং ২৪ ঘণ্টা পর্যন্ত শিরা উপশিরা ক্ষত বিক্ষত থাকে। আসলে দূষিত বায়ুর ধূলিকণা রক্তে গিয়ে প্রদাহের সৃষ্টি করে নার্ভ গুলো এবং করোনারি আর্টারি ও মস্তিষ্কের অন্যান্য শিরা ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে যায়। যৌবনেই দুপুরে ঘুমের মজা কথিত . . .