মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
রবিবার, ২ অক্টোবর ২০১১, ১৭ আশ্বিন ১৪১৮
বাড়ছে বিদ্যুত উৎপাদন
রাশেদ রাবি্ব
আধুনিক রাষ্ট্র ব্যবস্থার উন্নয়নের প্রধান শর্ত বিদ্যুত। বিদ্যুযত ছাড়া আধুনিক রাষ্ট্র ব্যবস্থা কল্পনা করাও অসম্ভব। কিন্তু আমাদের দেশে বিদু্যত উৎপাদন চাহিদার তুলনায় অপ্রতুল। ফলে বাধাগ্রস্ত দেশের উন্নয়ন। একদিকে যেমন উৎপাদন কম অন্যদিকে চাহিদা ক্রমবর্ধমান। ফলে সরবরাহ ব্যবস্থায় সৃষ্টি হয় নানা সমস্যা। বাড়ে মানুষের ভোগান্তি। দীর্ঘদিন ধরে এমন অবস্থা বিরাজ করলেও সম্প্রতি দেশের বিদু্যত ব্যবস্থার এসেছে পরিবর্তন। দেশে বিদ্যুত উৎপাদন ক্রমান্বয়ে বাড়ানোর জন্য সরকার গ্রহণ করছে একের পর এক প্রকল্প। ফলে প্রতিমাসেই বাড়ছে . . .
মন্দার তিন বছর পরও বাংলাদেশের অর্থনীতি ইতিবাচক অবস্থায়
২০০৮ ও ২০০৯ সালে উন্নত বিশ্বের দেশগুলোর অর্থনীতিতে যে ভীষণ মন্দাভাব পরিলক্ষিত হয়, তা ছিল দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধোত্তর কালপর্বে সবচেয়ে মারাত্মক অর্থনৈতিক মহামন্দা। আর এই ভয়ানক অর্থনৈতিক মন্দা অবস্থাকে আরও বেশি প্রলম্বিত করতে সহায়ক ভূমিকা পালন করেছিল এক দশক পূর্বের নাইন-ইলেভেন খ্যাত ২০০১ সালের সেপ্টেম্বর ১১-এ সংঘটিত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বিশ্ববাণিজ্য কেন্দ্র ও পেন্টাগনে সন্ত্রাসী হামলা। যাহোক, উন্নত বিশ্বের দেশগুলোর জাতীয় আয়ের প্রবৃদ্ধি নেমে আসে প্রায় শূন্যের কোটায়। দেশে দেশে দেখা দেয় আকস্মিক কর্মসংস্থানের . . .
মার্কিন অর্থনীতিতে ফেডারেল রিজার্ভের পরিকল্পনা
যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভ সম্প্রতি দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে গতিশীলতা ও চাঙ্গাভাব ফিরিয়ে আনতে একটি পরিকল্পনার ঘোষনা দেয়। ওই পরিকল্পনার আওতায় ব্যবসা ৰেত্রে ও ভোক্তাদের জন্য ক্রমবর্ধমান ব্যয় বৃদ্ধি হ্রাস করার সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হবে। যদিও এ মুহূর্তে বিরোধী দল রিপাবলিকানরা কেন্দ্রিয় ব্যাংকের কোন ধরনের প্রনোদমমূলক পদৰেপ গ্রহনের পৰে নয়। ফেডারেল রিজার্ভের পৰ থেকে বলা হয়েছে,প্রতিষ্ঠানটি র্দীঘ মেয়াদি অর্থনৈতিক নিরাপত্তার ম্বার্থে নয় মাস ব্যাপি এক কর্মসূচীর আওতায় চারশো বিলিয়ন ডলার . . .
ক্ষুদ্রঋণের ভালমন্দ
ক্ষুদ্রঋণের অবদানের কথা এ সময়ে জোরেশোরে উচ্চারিত হচ্ছে। তৃতীয় বিশ্বের একটি উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য ক্ষুদ্রঋণের ভূমিকা আলোচিত হচ্ছে। এক্ষেত্রে ড. ইউনূসের মাধ্যমে দারিদ্র্য দূর করতে ক্ষুদ্রঋণের বিষয়টি ব্যাপকভাবে গুরুত্ব পায়। আশির দশক থেকে তাদের ক্ষুদ্রঋণের কার্যক্রম শুরম্ন করে বাংলাদেশ। সত্যিই কি ক্ষুদ্রঋণ দিয়ে দরিদ্র জনসাধারণ উপকৃত হতে পেরেছে? আমরা যদি ঋণ বিতরণের ব্যবস্থাপনার দিকে লক্ষ্য রাখি, এটা নিঃসন্দেহে বলা যায়, বর্তমান ক্ষুদ্রঋণ ব্যবসায়ীরা হচ্ছেন রবীন্দ্রযুগের . . .