মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
শুক্রবার, ২৫ নভেম্বর ২০১১, ১১ অগ্রহায়ন ১৪১৮
একদিন সবাই যাবে ষাট প্লাসে
আফরোজা অদিতি
মানুষ জন্ম নেয়। আর জন্ম নিলে প্রকৃতিগত কারণে একসময় বার্ধক্যে উপনীত হয়। ৭০০ কোটি মানুষের এই বিশ্বে বর্তমানে প্রতি ১০ জনের একজন ৬০ বছর কিংবা তারও বেশি বয়সের মানুষ। পপুলেশন প্রজেকশন অনুযায়ী ২০৫০ সালে এই সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াবে প্রতি পাঁচজনে একজন। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও বাড়ছে প্রবীণ মানুষের সংখ্যা। বাংলাদেশে মোট জনসংখ্যার ছয় শতাংশ মানুষ প্রবীণ। বাংলাদেশে ১৯৭০ সালে মানুষের গড় আয়ু ছিল ৪৪ বছর। ১৯৯০ সালে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৪ বছর, ২০০৬ সালে গড় আয়ু বেড়ে হয়েছে ৬৩ বছর। কয়েক দশক ধরে বাংলাদেশে নানারকম . . .
উচ্চ শিক্ষায় মুসলিম বাঙালী নারীর অগ্রদূত
(পূর্ব প্রকাশের পর) নাসির উদ্দিন সাহেব যেন এক দুঃসাহসী সংকল্পের ছায়া দেখতে পেলেন ফজিলাতুন্নেছার চোখে-মুখে। তিনি ফজিলাতুন্নেছাকে বললেন, তাঁর উদ্দেশ্য যাতে সফল হয় সেজন্য তিনি প্রাণপণ চেষ্টা করবেন। তিনি মোহামেডান এডুকেশনের এডিপিআই খান বাহাদুর আবদুল লতিফকে তার অফিস শেষে সওগাত অফিসে আসার অনুরোধ জানালেন। খান বাহাদুর সওগাত অফিসে এলে তাঁকে সব খুলে বলা হলো। ফজিলাতুন্নেছাকেও তাঁর সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিলেন সওগাত সম্পাদক। সবকিছু শুনে খান বাহাদুর বললেন, এ বছরের জন্য স্কলারশিপ সব দেয়া হয়ে গেছে। তবে শিৰামন্ত্রীকে . . .
আত্মজিজ্ঞাসা ও একজন আলোকিত রোজিনা
আমি সাংবাদিক বা সাহিত্যিক নই। এই সমাজের একজন সাধারণ মানুষ। তবুও আমি যখন এই সমাজের নানা অসঙ্গতির কথা ভাবি তখন কেমন যেন থমকে যাই, মনে ভেসে আসে অনেক ঘটনা, অনেক মুখ, অনেক আশা ভরা প্রশ্ন। আর সে সব প্রশ্নের উত্তর খুঁজে ফেরা এক অসহায় আমি তখন দাঁড়িয়ে পড়ি নিজেরই আয়নায়। বসত্মি, মহানগরে গড়ে ওঠা রাষ্ট্রীয় পরিকল্পনায় অদৃশ্য এক সমাজ। অস্ত্র-মাদক আর অপরাধের বোঝা বেড়ায় এই বস্তিবাসীরা। প্রাকৃতিক বিপর্যয় আর ৰমতাবানদের নানা কর্মকাণ্ডে আশ্রয়, জমি, সমাজ, সংস্কৃতি হারিয়ে তারা নিজের অজান্তেই কখন যেন বসত্মিবাসী হয়ে যায়। . . .
তোমাকে অভিনন্দন
প্রথমেই অভিনন্দন জানাই ফারজানা ইয়াসমিন তোমাকে, তোমার ব্যক্তিত্ব ও সাহসিকতার জন্য। বরগুনার আমতলী উপজেলার কুকুয়া ইউনিয়নের কালিপুরা গ্রামের মেয়ে হয়ে তুমি যে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছ তা শহুরে মেয়ে হয়েও আজ অনেকেই পারেনি। তুমি সমাজেরই একটি অলিখিত নিয়ম ভেঙে দেখিয়ে দিয়েছ যে, মেয়েরা পণ্য নয়। গরু, ছাগলের মতো দরদাম করে তাদের কেনা যায় না। প্রতিটি নারী, পুরম্নষের মতো সকল বিষয়েই সমান অধিকার রাখে। ফারজানা, আমি তোমাকে দেখিনি, চিনিও না, পত্রিকার মাধ্যমে যা জেনেছি শুধু ভেবেছি কতটুকু দৃঢ় মনোবল ও আত্মসম্মান বোধ সম্পন্ন . . .